Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭, ২৪ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

বিআরইবি’র লক্ষ্য অর্জন : গ্রাহক সংখ্যা দেড় কোটি ছাড়ালো

প্রকাশের সময় : ৩ এপ্রিল, ২০১৬, ১২:০০ এএম

বিশেষ সংবাদদাতা : মহান স্বাধীনতার মাসে গ্রাহক সংখ্যা দেড় কোটিতে উন্নীত করার মেগা পরিকল্পনা বাস্তবে রূপ দিয়েছে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (বিআরইবি)। এই লক্ষ্য অর্জনে মার্চ মাসে বিআরইবি ৫ লাখ ৮ হাজার ৭৩৪ জন নতুন গ্রাহককে সংযোগ প্রদান করেছে বলে প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মঈন উদ্দিন গতকাল (শনিবার) ইনকিলাবকে জানান।
উল্লেখ্য, ফেব্রæয়ারিতে সারাদেশে ৩ লাখ ৩ হাজার ২১৬ পরিবারকে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান করেছিল বিআরইবি। ওই সময় বিআরইবি’র গ্রাহক সংখ্যা দাঁড়িয়েছিল ১ কোটি ৪৫ লাখ ১০ হাজার।
এ ব্যপারে বিআরইবি’র চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মঈন উদ্দিন ইনকিলাবকে বলেন, ২০১৫-২০১৬ অর্থ বছরে ৩০ লাখ নতুন গ্রাহককে বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় নিয়ে আসার যে লক্ষ্যমাত্রা বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড নির্ধারণ করেছে; তারই ধারাবাহিকতায় প্রতি মাসে এভাবেই নতুন গ্রাহকদের বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান করা হচ্ছে। আমরা পরিকল্পনা এঁটেছিলাম-মহান স্বাধীনতার মাসে বিআরইবি’র গ্রাহক সংখ্যা দেড় কোটিতে উন্নিত করবো। ইনশ্আাল্লাহ মার্চে বিআরইবি’র গ্রাহক সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ৫০ লাখ ১৮ হাজার ৯৫০ জনে।
্মেজর জেনারেল মঈন উদ্দিন বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে শতভাগ এলাকা বিদ্যুতায়নের লক্ষ্যে আরো ৬০ লাখ নতুন পরিবারকে আমরা বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় নিয়ে আসবো। তিনি বলেন, সরকারের কাছে বিদ্যুৎ এখন অগ্রাধিকারমূলক একটি প্রকল্প। এটি শুধু বাংলাদেশের ক্ষেরেত্রই নয়; বিশ্বের সব দেশেই বিদ্যুৎ খাতকে অগ্রাধিকার দেয়া হয়েছে। আগে জাতিসংঘ ঘোষিত এমডিজি’তে অন্ন, বস্ত্র ও বাসস্থানের বিষয়টিকে প্রাধান্য দেয়া হয়েছিল। আর এখন এসডিজি চালু হয়েছে। এতে অন্ন, বস্ত্র ও বাসস্থানের সাথে বিদ্যুৎকেও যুক্ত করা হয়েছে। জাতিসংঘের ঘোষণা অনুযায়ী, শতভাগ মানুষকে বিদ্যুৎ দিতে হবে।
মেজর জেনারেল মঈন উদ্দিন আরও বলেন, বাংলাদেশ জাতিসংঘ ঘোষিত এসডিজি বাস্তবায়নে নিরলসভাবে কাজ করে চলেছে। যাতে করে ২০২১ সালের মধ্যে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়া যায়। তিনি বলেন, বিআরইবি’র সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা শুরু হয়েছে ২০১৫ সালের জুলাই; আর শেষ হবে ২০২০ সালের জুনে। এর মধ্যে রয়েছে ১ লাখ ৫০ হাজার কিলোমিটার লাইন নির্মাণ করা, ৪৮০টি সাব-স্টেশন নির্মাণ ও উন্নত করা, ৭০ লাখ নতুন গ্রাহককে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান করা, ৪০টি সুইচিং স্টেশন নির্মাণ করা, ৪০টি রিভার ক্রসিং টাওয়ার নির্মাণ করা, ১ লাখ ৯০ হাজার ওভারলোডেড ট্রান্সফরমার নতুনভাবে পুনস্থাপন করা, ৭৫ লাখ ডিজিটাল ও প্রি-পেইড মিটার বিতরন এবং ১৫ হাজার সোলার ইরিগেশন পাম্প স্থাপন করাই বিআরইবি’র সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনার মূল লক্ষ্য।
উল্লেখ্য, এই অর্জনের পেছনে বিআরইবি এবং পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিতে কর্মরতরা নিরলসভাবে শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন। বিদ্যুৎ বিতরণকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে সবচেয়ে সফলতার সাথে এই প্রতিষ্ঠানটি কাজ করায় সারাদেশে বিআরইবি’র ভাবমূর্তিও অতিতের তুলনায় অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। জানা যায়, বিদ্যুৎ নিয়ে সরকারের ভিশন ২০২১ বাস্তবায়নে ঘাটতি জনবল নিয়েই দ্রæততার সাথে প্রতিষ্ঠানটি তার গৃহীত সকল পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিআরইবি’র লক্ষ্য অর্জন : গ্রাহক সংখ্যা দেড় কোটি ছাড়ালো
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ