Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯, ০৭ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

বাজার মূলধন বেড়েছে সাড়ে ১৩ হাজার কোটি টাকা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৮ এপ্রিল, ২০১৮, ১২:০০ এএম

সপ্তাহের ব্যবধানে (১ থেকে ৫ এপ্রিল) দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) বাজার মূলধন বেড়েছে সাড়ে ১৩ হাজার কোটি টাকা। এসময় ডিএসই’র সার্বিক লেনদেন আগের সপ্তাহের তুলনায় ১১১.৪৭ শতাংশ বেড়েছে। লেনদেন ও সূচকের অব্যাহত উত্থানে বিনিয়োগকারীদের আস্থা সংকট কেটেছে। তাই নতুন রেকর্ডের প্রত্যাশায় বিনিয়োগকারীরা। ডিএসই’র সপ্তাহিক বাজার পর্যালোচনায় এ তথ্য জানা গেছে।
জানা যায়, সপ্তাহ শেষে ডিএসই’র বাজার মূলধন ৪ লাখ ৫ হাজার ১৫৬ কোটি ৭ লাখ ৯৭ হাজার টাকায় দাঁড়িয়েছে। আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ডিএসই’র বাজার মূলধন ছিল ৩ লাখ ৯১ হাজার ৭১৮ কোটি ৫৮ লাখ ৬৮ হাজার টাকায় স্থিতি ছিল। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসই’র বাজার মূলধন বেড়েছে ১৩ হাজার ৪৯৭ কোটি ৪৯ লাখ ২৯ হাজার টাকা।
‘‘আমাদের নিয়মিত আপডেট পেতে ‘পাঠক ফোরাম’-এ যুক্ত হোন। ‘পাঠক ফোরামে যুক্ত হতে ক্লিক করুন।
এদিকে, গত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২ হাজার ৭১৪ কোটি ৬২ লাখ ৭৭ হাজার ৭৮৫ টাকা। এর আগের সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ২৮৩ কোটি ৭০ লাখ ৬৩ হাজার ৮৫ টাকা। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ১১১.৪৭ শতাংশ।
সদ্য সমাপ্ত সপ্তাহে ডিএসইতে দৈনিক গড় লেনদেন হয়েছে ৫৪২ কোটি ৯২ লাখ টাকা। এর আগের সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৩২০ কোটি ৯২ লাখ টাকা। এ সময় ডিএসইতে শেয়ার সংখ্যায় লেনদেন বেড়েছে ৬৯.১৭ শতাংশ।
গত সপ্তাহে ডিএসইতে ৮১ কোটি ৮৪ লাখ ৫৬ হাজার ২৫৯টি শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। তার আগের সপ্তাহে ডিএসইতে ৩৬ কোটি ৯৪ লাখ ২ হাজার ৪৫৬ লাখ টি শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছিল। এদিকে, সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৪১টি কোম্পানি ও ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ২৯৪টির, দর কমেছে ৩৩টির ও দর অপরিবর্তিত ছিল ১৩টি প্রতিষ্ঠানের। এর আগের সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৪১টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দর বেড়েছিল ১০৪টির, দর কমেছে ২০২টির। সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসই’র সার্বিক মূল্য সূচক বেড়েছে ২৪৩.৭৫ পয়েন্ট। এ সময় ডিএসই’র সার্বিক মূল্য সূচক ৫৫৯৭.৪৪ পয়েন্ট থেকে বেড়ে ৫৮৪১.১৯ পয়েন্টে স্থিতি পেয়েছে। এ সময় শরীয়াহ্ সূচক বেড়েছে ৪১.৮৯ পয়েন্ট ও ডিএস-৩০ সূচক বেড়েছে ৮৮.৫১ পয়েন্ট।
সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে টার্নওভার তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে বাংলাদেশ এক্সপোর্ট ইমপোর্ট কোম্পানি লিমিটেড (বেক্সিমকো)। এ সময় কোম্পানিডিটর ১০৫ কোটি ৪২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা ডিএসই’র সর্বমোট লেনদেনের ৩.৮৮ শতাংশ। এসময় ডিএসইতে কোম্পানিটির শেয়ার দর বেড়েছে ১৮.১১ পয়েন্ট। টার্নওভার তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল ব্র্যাক ব্যাংক, গত সপ্তাহে কোম্পানিটির ৯৫ কোটি ৮৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ৬৭ কোটি ৯৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মধ্যে দিয়ে টার্নওভারের তৃতীয় অবস্থানে ছিল ইফাদ অটোস।
টার্নওভার তালিকায় থাকা অন্যান্য কোম্পানিগুলো হলো- লংকাবাংলা ফাইন্যান্স, ইউনিক হোটেল, মুন্নু সিরামিক, আমরা নেটওয়ার্ক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, সিটি ব্যাংক ও বেক্সিমকো ফার্মাসিটিউক্যালস লিমিটেড। এদিকে, সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে গেইনার তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে মুন্নু সিরামিকস। সপ্তাহের শেষে কোম্পানিটির শেয়ার ৪১.৮৬ শতাংশ বেড়ে গেইনার তালিকায় শীর্ষে উঠে আসে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন