Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ০৬ জুন ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১৩ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

গাজায় ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে সাংবাদিকসহ ৯ ফিলিস্তিনি নিহত

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৮ এপ্রিল, ২০১৮, ১২:০০ এএম

হুমকি উপেক্ষা করে ভূমি দিবসের কর্মসূচির খবর সংগ্রহ গিয়ে ইসরাইলি সেনাবাহিনীর গুলিতে গাজা উপত্যকায় প্রাণ হারিয়েছেন সাংবাদিকরাও। গত শুক্রবার ইসরাইলি গুলিতে নিহত হয়েছে ৯ ফিলিস্তিনি। মারণাস্ত্রের বিপরীতে পাথর ছুঁড়ে প্রতিহত করতে গিয়ে আহত হয়েছে আরও সহস্রাধিক ফিলিস্তিনি। গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় শুক্রবারের সংঘর্ষে সাত জনের মৃত্যুর খবর দিলেও ইসরাইলের সংবাদমাধ্যম হারেৎজের খবরে বলা হয়েছে সংঘর্ষের সময় আহত এক সাংবাদিকসহ অপর একজন চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার নিহত হয়েছেন। এনিয়ে ভূমি দিবসের কর্মসূচিতে নিহতের সংখ্যা দাঁড়ালো ২৯ জনে। নিরস্ত্র বিক্ষোভকারীদের হত্যার ঘটনায় ইসরাইলের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ তৈরির আহ্বান জানিয়েছেন ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস।
ভূমি দিবস উপলক্ষে ফিলিস্তিনিদের টানা ছয় সপ্তাহের বিক্ষোভের দ্বিতীয় পর্বে শুক্রবার দিন জোরালো বিক্ষোভের কর্মসূচি সফল করতে আগে থেকেই প্রস্তুতি নেয় ফিলিস্তিনিরা। ইসরাইলি প্রতিরক্ষামন্ত্রী আভিগদর লিবারম্যান বৃহস্পতিবারই গুলি ছোড়া অব্যাহত রাখার হুমকি দিয়ে রাখেন। এদিন তিনি বলেন, ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে সেনাবাহিনীর অভ্যন্তরীণ নীতিমালায় পরিবর্তন আনার কোনও ইচ্ছে নেই। ইসরাইলের সরকারি রেডিওতে তিনি বলেন, ‘কোনও ধরনের উত্তেজনা দেখা গেলে গত সপ্তাহের মতো করেই কঠোরভাবে জবাব দেওয়া হবে।’ ওই সপ্তাহে ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে প্রাণ হারিয়েছিলেন ১৭ ফিলিস্তিনি।
হারেৎজের খবরে বলা হয়েছে, প্রেস লেখা জ্যাকেট পরে গাজা উপত্যকায় সংবাদ সংগ্রহের সময় ইসরাইলের সেনাবাহিনীর গুলিতে আহত হন সাংবাদিক ইয়াসির মুর্তজা। গতকাল শনিবার হাসপাতালে প্রাণ হারিয়েছেন তিনি। ফিলিফিস্তিনি সাংবাদিক সিন্ডিকেটের তরফে বলা হয়েছে, এদিন ইসরাইলের গুলিতের আগত হয়েছেন আরও ছয় সাংবাদিক। তারা সবাই প্রেস লেখা জ্যাকেট পরে সেখানে সংবাদ সংগ্রহ করছিলেন।
ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গাজা সীমান্তে এদিন ইসরাইলের ছোঁড়া গুলিতে ২৯৩ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। এদের মধ্যে ২৫ জনের শরীরের মাথা বা উপরের অংশে গুলিবিদ্ধ হয়েছে। আরও সহস্রাধিক মানুষ টিয়ার গ্যাস ও অন্য ছোটখাট আহত হয়েছে।
গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় নিহত নয় ফিলিস্তিনির নাম প্রকাশ করেছে। তারা হলো ওসামা খামিস (৩৮), মাজদি সাবত, হুসেইন মোহাম্মদ মাদি (১৬), সুবি আবু আতওয়াই (২০), মো. সায়িদ আল-হাজ (৩৩), সোদকি ফারাজ আবু আতওয়াই (৪৫), আলা আদিন আজমালি (১৭)। এছাড়া শনিবার নিহত হয়েছেন হামজা আবদ আল-আল (২০) ও সাংবাদিক ইয়াসির মুর্তজা (৩০)। ফিলিফিস্তিনি সাংবাদিক সিন্ডিকেট জানিয়েছে, গাজা সীমান্ত বেড়া থেকে ৩৫০ মিটার দূরে প্রেস লেখা জ্যাকেট পরে খবর সংগ্রহের সময় গুলিবিদ্ধ হন মুর্তজা।
ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস গতকাল শনিবার এক বিবৃতিতে ইসরাইলের হত্যা ও নিপীড়নের নিন্দা জানিয়েছেন। এছাড়া তিনি জাতিসংঘে নিযুক্ত ফিলিস্তিনি দূত, আরব লীগ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নে ফিলিস্তিনি প্রতিনিধিদের ইসরাইলের চালানো সন্ত্রাস, ও নিরস্ত্র বিক্ষোভকারীদের হত্যার বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক স¤প্রদায়ের চাপ সৃষ্টির আহŸান জানিয়েছেন।
ইসরাইলের প্রতিরক্ষা বাহিনীর মুখপাত্র রনেন ম্যানালিস দাবি করেছেন, শুক্রবার গাজা সীমান্তের পাঁচটি স্থানে ২০ হাজার ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারী জড়ো হয়। এসব বিক্ষোভকারীরা ইসরাইলের সীমান্ত বেড়া লক্ষ্য করে পাথর ও ফায়ারবোমা ছুঁড়েছে। এই সেনা মুখপাত্রের দাবি, অবৈধভাবে ইসরাইলের ভূখন্ডে প্রবেশের বেশ কয়েকটি চেষ্টা তারা প্রতিহত করেছে। সূত্র : ওয়েবাসইট।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গাজায় ইসরাইলি
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ