Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১১ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

ভারতবর্ষ ভাগের অসমাপ্ত এজেন্ডা হলো কাশ্মীর ইস্যু : আব্বাসি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ এপ্রিল, ২০১৮, ১২:০০ এএম

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শহিদ খাকান আব্বাসি বলেছেন, দেশভাগের এক অমীমাংসিত ইস্যু হল কাশ্মীর। গত শুক্রবার কাশ্মীর সলিডারিটি ডে (সংহতি দিবস) উপলক্ষে দেয়া এক বিবৃতিতে তিনি এ কথা বলেন। দিনটি উপলক্ষে কাশ্মীরে ভারতীয় সেনাবাহিনীর সা¤প্রতিক সহিংসতার নিন্দাও জানান খাকান। জম্মু ও কাশ্মীরের জনগণের আত্ম-নিয়ন্ত্রণের দাবির প্রতি ইসলামাবাদের সমর্থন জানানো হয়েছে বিবৃতিতে। আব্বাসি বলেন, জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাবে কাশ্মীরিদের আত্ম-নিয়ন্ত্রণের কথা বলা হলেও ভারত তা ক্রমাগত অস্বীকার করে যাচ্ছে। খবরে বলা হয়, জম্মু ও কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘনে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে পাকিস্তানের শীর্ষ নেতৃত্ব কাশ্মীরিদের আত্মনিয়ন্ত্রণাধিকারের প্রতি রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক সমর্থন বাড়ানোর কথা ঘোষণা করেছেন। কাশ্মীর সংহতি দিবসে এক বার্তায় প্রধানমন্ত্রী শাহিদ খাকান আব্বাসি বলেন, ‘ভারতীয় আগ্রাসনে’ প্রায় ২০ জন মারা গেছে। তিনি বলেন, জাতিসঙ্ঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাবে উল্লেখিত কাশ্মীরি জনগণের আত্মনিয়ন্ত্রণাধিকারের বিষয়টি ভারত অব্যাহতভাবে প্রত্যাখ্যান করে আসছে। তিনি কাশ্মীর ইস্যুটিকে ‘বিভক্তির অসমাপ্ত এজেন্ডা’ হিসেবে অভিহিত করেন। তিনি কাশ্মীরের বর্তমান সহিংসতা ও হুরিয়াত নেতৃবৃন্দের আটকাদেশের নিন্দা করে বলেন, অধিকার লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে বিশ্ব স¤প্রদায়ের এগিয়ে আসা উচিত। তিনি বলেন, কাশ্মীরে নির্যাতনের ব্যাপারে তথ্য অনুসন্ধানের জন্য তদন্ত কমিটিকে কাজ করার অনুমতি দেওয়া উচিত ভারতের। অপর এক বিবৃতিতে আফগান তালেবানদের যুদ্ধ থেকে সরে এসে শান্তিপূর্ণ অবস্থানে আসার আহŸান জানিয়েছে আফগানিস্তান ও পাকিস্তান। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর আফগানিস্তান সফরের পর শুক্রবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে প্রকাশ করা এক বিবৃতিতে বলা হয়, পাক প্রধানমন্ত্রী শহীদ খান আব্বাসি ও আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি তালেবানদের সরাসরি কথা বলে আফগান সরকারকে সহযোগিতা করার আহŸান জানিয়েছেন। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘তালেবানদের আর দেরি না করে শান্তির প্রস্তাবে সাড়া দেয়ার আহŸান জানিয়েছেন এ দুই নেতা। তারা মনে করেন আফগানিস্তানে চলমান দ্ব›দ্ব নিরসনে সামরিক নয় বরং রাজনৈতিক সমাধানই সামনে এগিয়ে যাওয়ার জন্য সবচেয়ে ভালো।’ এরআগে ফেব্রুয়ারিতে আফগান তালেবানদের সংঘাতের বিরুদ্ধে ‘পূর্বশর্ত’ ছাড়াই আলোচনার প্রস্তাব দিয়েছিলেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ঘানি। যেখানে তিনি দীর্ঘ ১৬ বছরের যুদ্ধের অবসান ঘটিয়ে তালেবানকে একটি রাজনৈতিক দল হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার এবং যুদ্ধের পরিবর্তে কারাবন্দীদের মুক্তির কথা বলেছিলেন। কিন্তু এখনও তালেবানরা এ বিষয়ে কোনো সাড়া দেয়নি। আব্বাসি বলেন, আত্মনিয়ন্ত্রণাধিকার না পাওয়া পর্যন্ত কাশ্মীরি জনগণের প্রতি পাকিস্তান তার রাজনৈতিক, নৈতিক, কূটনৈতিক সমর্থন অব্যাহত রাখবে। শুক্রবারকে কাশ্মীর সংহতি দিবস হিসেবে পালনের জন্য ২ এপ্রিল পাকিস্তান মন্ত্রিসভার বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলাদা এক বার্তায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী খাজা আসিফ বলেন, কাশ্মীর এখনো দুই দেশের মধ্যকার ‘মূল বিরোধপূর্ণ’ বিষয় হিসেবে রয়ে গেছে। কাশ্মীরিদের ইচ্ছা অনুযায়ী সমাধান না হলে এ অঞ্চলে শান্তি আসার সম্ভাবনা নেই। ভারত বন্দুকের নল দিয়ে বিরোধ নিষ্পত্তি করতে চায় বলেও অভিযোগ করেন তিনি। এসএএম, ডন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ