Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ০৩ কার্তিক ১৪২৬, ১৯ সফর ১৪৪১ হিজরী

‘কোটার বিরুদ্ধে তরুণদের জয় অনিবার্য’ -অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১০ এপ্রিল, ২০১৮, ১২:০০ এএম

কোটা সংস্কারের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন নিয়ে ব্যক্তিগত ফেসবুক পেজ-এ একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল। ইনকিলাব পাঠকদের জন্য তা হুবহু তুলে ধরা হলো। তিনি লিখেছেন- কোটা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী, প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য অবমাননাকর এবং দুর্নীতি লালনকারী একটি বিষয়।
এর বিরুদ্ধে বহুবার লিখেছি আমি। কোটার বিরুদ্ধে দাঁড়ানো মানে ন্যায় এবং জীবিকার অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম। এই সংগ্রামে এদেশের তরুণ সমাজের জয় অনিবার্য বলে আমি বিশ্বাস করি। আসিফ নজরুল আরো লিখেছেন- সহিংসতা থেকে দুরে থাকুন, ঐক্য ধরে রাখুন, প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে রাখুন। এই আন্দোলন নিয়ে যেন কেউ বিভ্রান্তি ছড়াতে না পারে সেজন্য কৌশলী এবং সজাগ থাকুন। সংবিধান বিশেষজ্ঞ এই অধ্যাপক লিখেছেন, ১৯৭২ সালের সংবিধানে মুক্তিযোদ্ধাদের কোটা সম্পর্কে কিছু বলা নেই। এই সংবিধান প্রণীত হয়েছিল যে গণপরিষদে, সেখানে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য চাকরিতে কোটা প্রদানের কথা উত্থাপিতই হয়নি। গণপরিষদে কেবল সংবিধানের ১৫ অনুচ্ছেদের অধীনে নাগরিকদের সামাজিক নিরাপত্তা প্রদান প্রসঙ্গে পঙ্গু মুক্তিযোদ্ধা ও নিহত মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের কথা বিশেষভাবে উল্লেখ করা হয় (বাংলাদেশ গণপরিষদের বিতর্ক, দ্বিতীয় খÐ, ১৯৭২, পৃষ্ঠা ৪৭০-১)। সামাজিক নিরাপত্তার উদার ব্যাখ্যা করলে শুধুমাত্র পঙ্গু বা নিহত মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের জন্য চাকরিতে কোটা সংরক্ষণ বৈধ হতে পারে, অন্যদের জন্য নয়। জনসংখ্যার অনুপাতে এই কোটা হতে পারে বড়জোর ১ শতাংশ। বাকী ৯ শতাংশ হতে পারে নারী, প্রতিবন্ধী আর ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য। কোটা কোনভাবেই মোট চাকরির ১০ শতাংশের বেশী হওয়া উচিত না। উচিত না কোটা পুরন না হলে পদ শুন্য রেখে দেয়া। মুক্তিযোদ্ধারা এজাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান। তাদের সম্মানিত করতে হবে অন্যভাবে। আমি দৃঢভাবে বিশ্বাস করি, ঢালাও কোটা বরং অসম্মানিত করে তাদের।



 

Show all comments
  • MOMTAZ ১০ এপ্রিল, ২০১৮, ১১:৫৫ এএম says : 0
    only thank sir,
    Total Reply(0) Reply
  • গনতন্ত্র ১০ এপ্রিল, ২০১৮, ১২:০০ পিএম says : 0
    জনগন বলছেন, “ রুখে দাঁড়াও-২০১৮ “ কোঠা পদ্ধতির যেদিন হবে অবসান আন্দোলন সেদিন থেমে যাবে, আহত ছাত্র-ছাত্রীদের বিচার চাই আটক নীরহরা কভে মুক্ত হবে ? চাকুরী আমি যদিনা পাই তরে কি লাভ এত লেখাপড়া করে, র্দুনীতিবাজরা পকেট ভরে কোঠা পদ্ধতি আমাদের ঘাড়ে ৷ আত্মহত্যা নতুবা বিদেশে পাড়ি আমরা কি অনুপ্রবেশকারী, শান্তিপূর্ন আন্দোলনে পুলিশের বারাবারি নিরস্রদেরকে আঘাত করে কোন বাহাদুরী ? ৭১-এর গর্জে গর্জিলে ওরে আঘাত কারে বলে বুঝছি পরে, অস্র উঠিয়ে মারিছ যাদেরে রুখে দাঁড়ালে প্রান বাঁচাবি কেমন করে ??
    Total Reply(0) Reply
  • Amir ১০ এপ্রিল, ২০১৮, ১২:০৭ পিএম says : 0
    ebar na bujhlam indonta kotha theke ase!
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কোটা


আরও
আরও পড়ুন