Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ০২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

মসনবী শরীফ

মাওলানা জালাল উদ্দীন রূমী রহ./ কাব্যানুবাদ : রূহুল আমীন খান | প্রকাশের সময় : ২০ এপ্রিল, ২০১৮, ১২:০০ এএম

৬০০. খোদার কসম, মোদের ’পরে এমন যুলুম করবেনা
‘আজ নহে কাল’ বলে এরূপ মিথ্যে ছলে ছলবেনা।

৬০১. এটা ই কি চাইছ তুমি তোমার পাগল ভক্তদল
তোমার বিছেদ বহ্ণিতে হোক জ্বলে পুড়ে খাক সকল!

৬০২. ডাঙায় তোলা মাছের মতো ছটফটিয়ে মরছি সব
বাঁধ ভেঙে দাও হোক পানিতে মৎসকুলের মহোৎসব।

৬০৩. এই যমানায় তোমার মত কামিল বোযোর্গ আর তো নাই
দের করোনা ফিরে এসো হে ওলী- খোদার দোহাই।

মুরীদদের প্রতি উযির

৬০৪. ধর্মোপদেশ শোনার লাগি ব্যাকুল যাদের কান ও মন
তাদের করুন ফরিয়াদে বলল উযির, বৎসগণ !

৬০৫. বন্ধ করো তুলো ঠেশে কান তোমাদের শ্রবণের
পর্দা তুলে দাও সমুখে চক্ষু দ্বয়ের দর্শনের।

৬০৬. ভেদের কথা শোনার পথে বাধা দু’কান মস্তকের
বন্ধ যাবত হয় না সে কান, খোলেনা কান রহস্যের।

৬০৭. চিন্তা হুশ ও বুদ্ধি তামাম হলে বিবস স্থবির
শুনতে কেবল পাবে তখন ওই আহ্বান- ‘ইরজিঈর’১

৬০৮. থাকবে জেগে, কথায়-কাজে ব্যস্ত রবে যাবৎ কাল
বুঝতে তুমি পারবে নাকো স্বপ্নপুরীর ভেদ ও হাল।

৬০৯. দেখা, বলা, ভ্রমণ হেথা অপূর্ণ সব, বিনশ্বর
সত্যিকারের সায়ের৩ সফর ঊর্ধ লোকে- ব্যোম-উপর।

৬১০. দেহের উপকরণ ভ‚মির, ভ‚মেই বিচরণ তাহার
মূসা রূপী আত্মা অসীম- সমুদ্রে সে দেয় সাতার।

৬১১. যোগ এ দেহের ভ‚মির সাথে ভ‚মেই তার পর্যটন
অসীম-সাথে যোগ পরানের, অনন্তে তার সন্তরণ।

৬১২. গেল কেটে জীবনটা হায় এই যমিনের শুষ্কতায়
মরু সাগর বন-বাদারে পর্বতে উপত্যকায়।

৬১৩. কেমনে পাবে ‘আবে হায়াত’ জীবনটাই ব্যর্থ ছাই
অকুল সাগর তরঙ্গে তো ভাসালেনা কিশ্তিটাই !

৬১৪. মর্ত্যলোকের ঢেউ হলো এই চিন্তা ফেকের মগ্নতার
ঊর্ধলোকের ঢেউ হলো ওই অসীম সাথে যোগ আত্মার।

৬১৫. এই দুনিয়ার শরাব-নেশায় যাবৎ মজে রইবে হায়
বুঝবে নাকো কীযে আমেজ ওই শরাবের মত্ততায়।

৬১৬. এই যাহেরী কথন ভাষণ তুচ্ছ ধূলো-বালির ন্যায়
কিছুটা দিন নীরব থাকো, কাটাও কঠোর তপস্যায়।

মুরীদদের আরয

৬১৭. বলল : তোমার ভক্তেরা সব পাগলপারা খুব অধীর
কথার মারে বঞ্চিত আর করোনা পীর দস্তগীর।

৬১৮. পশুর পিঠে চাপাও বোঝা যেমন বহনসাধ্য তার
সাধ্য যাহার যতটুকু দাও সেটুই কার্যভার।

৬১৯. হরেক পাখি আহার করে যেমন রুচি, খাদ্য যার
পারে নাকো খেতে কভু সকল পাখি সব আহার।

৬২০. দুধের শিশুর মুখে যদি শুকনো রুটি দাও খাবার
আহার সে তো দূরের কথা হবে বরং মৃত্যু তার।

৬২১. কিছু দিবস পরে যখন দন্ত গজায় তার মুখে
ওই রুটি সে ফুল্লমনে আহার করে খুব সুখে।

৬২২. পাখির ছানা- গজায়নিকো ডানায় পালক এখন যার
উড়তে গেলে পড়বে মারা বনবিড়ালে ভাঙবে ঘাড়।

৬২৩. পালক যখন হবে ডানায় তখন ছানা স্বইচ্ছায়
শিস ছাড়াই উড়বে খোশে ভর করিয়া নিজ ডানায়।

৬২৪. তোমার বাণী বন্দি করে রাখে রীপু-দৈত্তদের
উৎসাহ ও উদ্দীপনা জাগায় প্রাণে নেক কাজের।

৬২৫. তোমার পুত বাণীর সারে মনের যমিন সতেজ হয়
তোমার উতাল সাগরবানে মরা গাঙে জোয়ার বয়।

৬২৬. থাকলে তুমি মোদের ভ‚মি আকাশ হতে শ্রেষ্ঠ হয়
উজাল তারা! তোমার আলোয় আকাশ, যমিন জ্যোতির্ময়।

৬২৭. তুমি ছাড়া প্রভু মোদের হৃদয়-আকাশ অন্ধকার
দূর কর এ ঘোর তমসা জোছনা ছড়াও চন্দ্রিমার।

৬২৮. বাহ্য চোখে দেখায় বটে উচ্চ অতি নীলাম্বর
পবিত্র পাক আত্মা হলো তাত্থেকেও উচ্চতর।

৬২৯. এই যে জড় দেহখানা এইটা যেন শুধুই নাম
মানেই তো বস্তু আসল, বস্তু ছাড়া কী এর দাম !

৬৩০. এই দেহটা নামের মতো, আত্মা হলো অর্থ তার
আত্মা ছাড়া দেহ কেবল শব্দ ধ্বনি ঝনৎকার।

৬৩১. খোদার কসম- পীরজি এবার একটু দয়ার দৃষ্টি দাও
দীর্ঘ হলো দুঃখের রাতি- এ কাল্রাতের ছেদ ঘটাও।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর