Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫, ১০ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

ফ্রান্সে কুরআনের কয়েকটি আয়াত মুছে ফেলার পিটিশন, নিন্দা-ক্ষোভ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ এপ্রিল, ২০১৮, ১২:০০ এএম

ফ্রান্সের ২৫০ জন রাজনীতিক পিটিশন ইস্যু করে মুসলমানদেরকে কুরআনের কয়েকটি আয়াত মুছে ফেলার আহ্বান জানিয়েছেন। কারণ আয়াতগুলো ইহুদি-খৃষ্টানদের হত্যা ও শাস্তির কথা বলে। ফ্রান্সের গ্রান্ড মসজিদ দলিল বু বকরের প্রধান বলেন, এটি একটি অন্যায় ও হাস্যকর বক্তব্য। এটা বিভিন্ন ধর্মের সহাবস্থানের জন্য ক্ষতিকর। তিনি বলেন, ফ্রান্সের মুসলিম নাগরিকরা এমন একটি পিটিশন আশা করেনি। বরং মুসলমানরাই দশকের পর দশক ধরে বর্ণবাদ ও ধর্মীয় সহিংসতার শিকার হয়ে আসছে এবং এর নিন্দা জানাচ্ছে। ইসলাম ফোবিয়া বিষয়ে একটি জাতীয় প্রতিষ্ঠানের প্রধান আব্দুল্লাহ যুকরা এই পিটিশনটিকে ভয়াবহ ও বিপজ্জনক বিতর্কিত বলে আখ্যায়িত করেছেন। তিনি ইসলাম ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে এসব অপপ্রচার বন্ধ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, এই পিটিশনটি আন্তর্জাতিক মিডিয়ায় চেহারা দেখাতে ইচ্ছুক কিছু অদ্ভূত রাজনীতিকের কাজ তারা ইসলাম ও মুসলমানদেরকে তাদের উদ্দেশ্য হাসিলের মাধ্যম বানিয়েছে। বুরদু মসজিদের ইমাম তারেক বলেন, কুরআন হত্যাকান্ড ঘটাতে বলে- এটা খুবই স্থুল ও হাস্যকর একটা অভিযোগ। তিনি কঠোর ভাষায় এই মন্তব্যের নিন্দা করে বলেন, কুরআন আরবীতে অবতীর্ণ হয়েছে। আমি নিশ্চিত যারা পিটিশনটি ইস্যু করেছেন তারা কুরআনের সেই আয়াতগুলোর অনুবাদ বা ব্যখ্যা পড়েছেন। তাদের পাঠ করা অনুবাদ বা ব্যাখ্যাটি যথাযথ নাও হতে পারে। তিনি আরও বলেন, অথবা ধর্মীয় টেক্সেটের পাঠের সাথে অপরিচিতিই তাদেরকে উত্তেজিত করেছে। তারা যদি কুরআনের আয়াতগুলোকে হিংসাত্মক বলেন তাহলে ইঞ্জিলসহ সব পবিত্র গ্রন্থকেই হিংসাত্মক বলতে হবে। আল-জাজিরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ