Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭, ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

বেঈমানদের ছাড় দেয়া উচিত না

১৪ দলের আলোচনা সভায় নাসিম

| প্রকাশের সময় : ২৭ এপ্রিল, ২০১৮, ১২:০০ এএম


ডিসেম্বরেই নির্বাচন, একচুলও ছাড় নয় : বিএনপি মাজাভাঙ্গা দল
স্টাফ রিপোর্টার : ইতিহাস বিকৃতি করে বিএনপি হীনমন্যতার পরিচয় দিয়েছে উল্লেখ করে ১৪দলের মুখপাত্র ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, ছোটমন ছোটই থাকে। কখনও বড় হতে পারে না। বঙ্গবন্ধু হিমালয়ের মত। তাকে মুছে ফেলা যাবে না। তিনি বলেন, বেঈমান সমসময় বেঈমানই থাকে। তাকে কখনই ছাড় দেয়া উচিত নয়।
গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটের মিলনায়তনে কেন্দ্রীয় ১৪দল আয়োজিত ঐতিহাসিক মুজিবনগর সরকার দিবসের আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, জাসদের একাংশের সভাপতি শরীফ নুরুল আম্বিয়া, অপর অংশের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার, জাতীয় পার্টি জেপির সাধারণ সম্পাদক শেখ শহিদুল ইসলাম, সিপিবির নেতা আনু মোহাম্মদ, গণতন্ত্রী পার্টিও সাধারণ সম্পাদক ডা. সাহাদৎ হোসেন প্রমুখ। আলোচনা সভা পরিচালনা করেন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ।
শেখ হাসিনা যা বলেন তাই করেন মন্তব্য করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, পদ্মাসেতু করতে চেয়েছেন করছেন, ৭১, ৭৫এর ঘাতকদের বিচারের প্রতিশ্রæতি দিয়েছিলেন, করেছেন। ২১আগস্ট গ্রনেড হামলার বিচারও হচ্ছে। আগামী ডিসেম্বরে নির্বাচনের ঘোষণা দিয়েছেন, ডিসেম্বরেই নির্বাচন হবে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ও সাংবিধানিকভাবে ডিসেম্বরে নির্বাচন হবে। কেউ ঠেকাতে পারবে না। ৫জানুয়ারির নির্বাচন করেছি। বিএনপিকে দেখিয়ে দিয়েছি। প্রতিরোধ চেষ্টা করেও তারা ঠেকাতে পারেনি। নাসিম বলেন, আমরা বলেছিলাম ৫বছর ক্ষমতায় থাকব। ৫বছর ক্ষমতা শেষে ডিসেম্বরেই নির্বাচন হবে। এখান থেকে আমরা একচুলও ছাড় দেব না।
বিএনপিকে মাজাভাঙ্গা দল উল্লেখ করে নাসিম বলেন, এবার একটু মাজা সোজা করে দাঁড়ান। সামনে ৭০ এর মত নির্র্বাচন হবে। সে নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়নে নৌকার প্রার্থীকে বিপুলভোটে নির্বাচিত করবে। নিজেদের ছোট ছোট ভুলের কথা স্বীকার করে বলেন, তবে আমরা কোনো বড় ভুল করিনি।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি এখন শুধু প্রেসব্রিফিং করে। রাস্তায় নামতে ভয় পায়। বিএনপির আমলে আওয়ামী লীগ নেতাদের আন্দোলনের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেন, তখন কি পুলিশ আমাদের চুমো খেয়েছিল? আন্দোলনে নামলে পুলিশ আদর করে এমন নজির নেই। আন্দোলন সংগ্রাম করে আপনাদের নেত্রীকে মুক্ত করার কথা বলছেন; তাকে ছাড়া নির্বাচনে যাবেন না। তাহলে আন্দোলন করেই আপনাদের নেতাকে মুক্ত করুন।
১৪দলের নেতাদের ঐক্যভদ্ধ থাকার আহŸান জানিয়ে নাসিম বলেন, আগামী নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ নির্বাচনে আমাদের বিকল্প নেই। নির্বাচনে যাকেই নৌকার মনোনয়ন দেয়া হবে তার পক্ষেই ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।
এবছর বিশ্বকাপ ফুটবলের মত বাংলাদেশে নির্বাচন বিশ্বকাপ হবে জানিয়ে ১৪দলের এই নেতা বলেন, এই নির্বাচনে গোল দিয়েই শেখ হাসিনা হ্যাট্রিক করবে।
জিয়া পরিবারের সামলোচনা করে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেন, এই পরিবারের ঐহিত্য হলো অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করা, দূর্নীতি, ঘুষ ও হাওয়া ভবন সৃষ্টি করা। এই পরিবারের এখন ঐতিহ্য হলো নিজের দেশ ছেড়ে ভিন দেশে আশ্রয় গ্রহণ করা। বাংলাদেশের কান্ডারী হওয়ার স্বপ্ন দেখা তারেক রহমান দেশের নাগরিকত্ব প্রত্যাহার করেন কীভাবে? সকল ষড়যন্ত্র রুখতে ১৪দলের নেতাদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে বলেও জানান তিনি।
শেখ হাসিনার বিকল্প নেই জানিয়ে সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দীলিপ বড়–য়া বলেন, চীনের উন্নয়ন আরো টেকসই করতে সেদেশের ক্ষমতার পট পরিবর্তনে স্থায়ী পদ্ধতিতে গেছে। তারা আজীবন বর্তমান প্রেসিডেন্টকে ক্ষমতায় রাখার বিধান করেছে। বাংলাদেশেও উন্নয়ন টেকসই করতে শেখ হাসিনাকে আজীবন ক্ষমতায় রাখতে হবে। এর বিকল্প নেই।

 



 

Show all comments
  • আজগর ২৭ এপ্রিল, ২০১৮, ১:৩৯ এএম says : 0
    কারা বেঈমান তা এদেশের মানুষ ভালো করেই জানে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ