Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০১৯, ০৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৭ রমজান ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

মিয়ানমার রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর উপর গণহত্যা চালিয়েছে -ওআইসি

উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শনকালে ওআইসি প্রতিনিধি দল

কক্সবাজার ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৪ মে, ২০১৮, ৮:০৭ পিএম

ওআইসি জোটভূক্ত ৫৮টি ইসলামিক দেশের উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল গতকাল কক্সবাজারের উখিয়া কুতুপালং শরণার্থী ক্যাম্প পরিদর্শন করেছেন। পরিদর্শনকালে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের অবস্থা অবস্থান পর্যবেক্ষণ ও নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের সাথে কথা বলেন এবং তাদের মূখ থেকে নির্যাতনের করুন কাহিনী ধৈর্য্য সহকারে শুনেন।

পরিদর্শন শেষে প্রতিনিধি দলের সদস্যরা বলেন, রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে প্রত্যর্পণের বিষয়ে জাতিসংঘের সাথে কাজ করবে অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশান (ওআইসি)। সামনে বর্ষা মৌসুমে দুর্যোগকালীন পরিস্থিতিতে ও প্রত্যাবাসন শেষ না হওয়া পর্যন্ত ওআইসি রোহিঙ্গাদের পাশে থাকবে।

ওআইসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের ৪৫তম সম্মেলন উপলক্ষে বাংলাদেশে অবস্থানরত বিভিন্ন দেশের ৭০ জন প্রতিনিধির একটি দল শুক্রবার সকালে কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শিবিরগুলো পরিদর্শনে আসেন। এদের মধ্যে রয়েছেন আটজন মন্ত্রী, তিনজন প্রতিমন্ত্রী ও আটজন পররাষ্ট্রসচিব।

প্রতিনিধি দলের প্রধান হাশেম ইউছেফ বলেন, মিয়ানমার রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর উপর যে নিপীড়ন চালিয়েছে তা গণহত্যা। বিশ্বব্যাপী এ ঘটনার জন্য উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। শুরু থেকে ওআইসি বাংলাদেশে প্রশংসিত উদ্যোগের পক্ষে। এখন এ সংকটের সমাধানের জন্য সবাইকে কাজ করতে হবে। পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সম্মেলনে প্রধান আলোচনার বিষয় হবে রোহিঙ্গা ইস্যু।

উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দলটি বলেছে, রোহিঙ্গা সমস্যা মিয়ানমারের তৈরি। মিয়ানমারকে এর সমাধান করতে হবে। রোহিঙ্গারা নিরাপদে যেন স্বদেশে বাস করতে পারেন তার জন্য পরিবেশ তৈরির দায়িত্বও মিয়ানমার সরকারের।

ওই সময় বাংলাদেশে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী, বিভিন্ন দেশের কুটনৈতিক, বাংলাদেশে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত, আর্ন্তজাতিক দাতা সংস্থার প্রতিনিধি, কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো: কামাল হোসেন, শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কর্মকর্তা মো: আবুল কালাম, জেলা পুলিশ সুপার ড. ইকবাল হোসেন, উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিকারুজ্জামান চৌধুরী প্রতিনিধিদলটির সাথে ছিলেন।

বিকেল ৩টার দিক ওআইসি প্রতিনিধি দলটি একই ফ্লাইটে ঢাকার উদ্দেশ্যে কক্সবাজার ত্যাগ করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ওআইসি


আরও
আরও পড়ুন