Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫, ১৪ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

লন্ডনের চার কাউন্সিলে ৫০ বাঙালি নির্বাচিত

| প্রকাশের সময় : ৬ মে, ২০১৮, ১২:০০ এএম

যুক্তরাজ্যের স্থানীয় সরকার নির্বাচনে অনেক বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থী কাউন্সিলর পদে বিজয়ী হয়েছেন। কেবল পূর্ব লন্ডনের চারটি কাউন্সিলে নির্বাচিত হয়েছেন ৫০ জন বাংলাদেশি। অন্য কাউন্সিলগুলোতেও বাঙালি প্রার্থীদের বিজয়ের খবর পাওয়া গেছে। স্থানীয় সরকার নির্বাচনের এমন ফলাফল যুক্তরাজ্যের রাজনীতিতে বাঙালিদের অংশগ্রহণ বৃদ্ধিকে নির্দেশ করছে। গত বৃহস্পতিবার যুক্তরাজ্যের ইংল্যান্ডে ১৫০টি কাউন্সিলের ৪ হাজার ৩০টি কাউন্সিলর পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনকে ঘিরে পূর্ব লন্ডনের কাউন্সিলগুলোই সাধারণত বাংলাদেশিদের আগ্রহের কেন্দ্রে থাকে। এসব কাউন্সিলে বাঙালি ভোটার যেমন বেশি, বাঙালিদের প্রার্থী হওয়ার হিড়িকও বেশি। ফলাফলেও বাঙালি ভোটের প্রভাব থাকে স্পষ্ট।
এবার পূর্ব লন্ডনের টাওয়ার হ্যামলেটস, নিউহাম, রেড ব্রিজ এবং বার্কিং অ্যান্ড ডেগেনহাম, এই চার কাউন্সিলে নির্বাচিত হয়েছেন ৫০ জন বাঙালি কাউন্সিলর। এর মধ্যে টাওয়ার হ্যামলেটসের নির্বাচিত ৪৫ জন কাউন্সিলরের মধ্যে ২৬ জনই বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত। পার্শ্ববর্তী নিউহ্যাম কাউন্সিলে ১০ জন, রেডব্রিজ কাউন্সিলে ৮ জন এবং বাকিং অ্যান্ড ডেগেনহাম কাউন্সিলে ৬ জন বাঙালি প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। এ ছাড়া লন্ডনের কেমডেন কাউন্সিলে ৪ জন এবং দক্ষিণ-পশ্চিম ইংল্যান্ডের শহর সুইনডনে ২ জন বাঙালি প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। লন্ডনের ব্রেন্ট, ক্রয়ডন, হ্যাকনিসহ বিভিন্ন কাউন্সিলে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থীর বিজয়ের খবর পাওয়া গেছে।
যুক্তরাজ্যের বাঙালিরা সাধারণত লেবার দলের সমর্থক। ফলে লেবার দল থেকে বাঙালি প্রার্থী মনোনয়নের হারও বেশি। নির্বাচিত কাউন্সিলরদের প্রায় সবাই লেবার দলীয় রাজনীতিক।
বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত লুৎফুর রহমান লেবার পার্টি থেকে বের হয়ে স্বতন্ত্র নির্বাচন করলে বিভক্তির সৃষ্টি হয়। তিনি ‘অ্যাসপায়ার’ দলের ব্যানারে মেয়র পদের পাশাপাশি ৪৫টি কাউন্সিলর পদে প্রার্থী দেন। তার দলের কোনো প্রার্থীই এবার বিজয় পাননি। ফলে এত দিন তার দলের নিয়ন্ত্রণে থাকা ১৮টি কাউন্সিলর পদের সব কটিই হারিয়েছেন তিনি।
বিপরীতে লেবারদলীয় মেয়র প্রার্থী জন বিগস বিপুল ভোটে জয় পেয়েছেন। ৪৫টি কাউন্সিলর পদের মধ্যে ৪২টিতেই জয় পেয়েছে দলটি। বিশেষ করে বাংলাদেশি ভোটারদের সমর্থনের কারণেই লেবারের এমন ভূমিধস বিজয়। সূত্র : ওয়েবসাইট।

 



 

Show all comments
  • আরিফ ৬ মে, ২০১৮, ৩:০০ এএম says : 0
    এটা শুনে খুব ভালো লাগলো
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর