Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫, ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

বেলের উপকারিতা

| প্রকাশের সময় : ১১ মে, ২০১৮, ১২:০০ এএম

বেল একটি সুস্বাদু ও পুষ্টিকর ফল। এতে প্রচুর পরিমাণে শ্বেতসার, ক্যারোটিন, ভিটামিন বি কমপ্লেক্স, ক্যালসিয়াম ও লৌহ রয়েছে। আমাদের দেশে ছোট বড় বিভিন্ন আকারের বেল দেখা যায়। তবে অনুমোদিত কোনো জাত নেই। বাংলাদেশ ও ভারতের পল্লী অঞ্চলে সর্বত্র বেল পাওয়া যায়। বেলগাছের ছাল, পাতা, ফুল সবই ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়। তবে বেল সম্বন্ধে আমাদের সবারই একটি ভূল ধারণা আছে। পÐিত চরক তার গ্রন্থে বলেছেন, আমরা সবাই জানি পাকা বেল সবচেয়ে উপকারী। তাই বেল কেনা বা খাওয়ার সময় পাকা বেল খুঁজি। সবাই ভাবে, পাকা বেল পেট পরিস্কার করে। অন্ত্র ও মলভাÐের দোষ নিরসন হয়। কিন্তু তার মতে, পাকা বেল অপকারী। পাকা বেল হজম কষ্ঠসাধ্য। দীর্ঘ দিন পাকা বেল খেলে অন্ত্রে ছিদ্র তৈরি হতে পারে। কিন্তু কাঁচা বেল ঠিক বিপরীত কাজ করে। অর্থাৎ অন্ত্রে ছিদ্র হতে দেয় না এবং ছিদ্র হলে তা বন্ধ করায় সহায়ক হয়। তাই নিয়মিত দীর্ঘ দিন পাকা বেল খাওয়া ঠিক নয়, বরং কাঁচা বেল পোড়া বা কাঁচা বেল শুটকি উপকারী।
জেনে নেই বেলের কিছু স্বাস্থ্য উপকারিতা ঃ
পুষ্টি উপাদান: প্রতি ১০০ গ্রাম বেলে রয়েছে ক্যারোটিন ৫৫ মিলিগ্রাম, থায়ামিন ০.১৩ মিলিগ্রাম, রিবোফ্লোভিন ১.১৯ মিলিগ্রাম, এসকরবিক এসিড ৮.৬ মিলিগ্রাম, আয়রন ৩.২৫ মিলিগ্রাম, নিয়াসিন ১.১ মিলিগ্রাম, টারটানিক এসিড ২.১১ মিলিগ্রাম, প্রোটিন ১.৮-২.২৬ গ্রাম, জলীয় অংশ ৫৪.৯৬-৬১.৫ গ্রাম, ¯েœহ পদার্থ ০.২-০.৩৯ গ্রাম, শর্করা ২৮.১১-৩১.৮ গ্রাম, এছাড়াও শ্বেতসার, ভিটামিন বি কমপ্লেক্স, ক্যালসিয়াম ও লৌহ রয়েছে। বেলের উপকারিতা:-
*পেটের অসুখে : অনেকের পেট ব্যথা ও পেটখারাপ থাকে প্রায় সারা বছর। হজমের গোলযোগ পেটের ভেতর গড়গড় করা, ভুটভাট করা ও ফেট ফাঁপা হয়। যাদের এই সমস্যা রয়েছে, তারা কাঁচা বেলের গায়ে আধা ইঞ্চি পুরু করে কাদা মাখিয়ে চুলার কাঠের আগুনে পুড়িয়ে সকাল-বিকালে তিন-চার চামচ বেল সামান্য গুড় বা চিনি দিয়ে তিন-চার দিন খেলে উপকার পাবেন। এ ছাড়া কাঁচা বেলের শাঁস শুঁটকি পানিতে ভিজিয়ে সেই পানি খেলেও উপকৃত হবেন। এতে পুরনো আমাশয়ও ভালো হয়।
* স্মৃতিশক্তি বাড়াতে : ছাত্রছাত্রীদের স্মৃতিশক্তি বর্ধনে দুই বা তিনটি বেলপাতা ঘিয়ে ভেজে মচমচে করে মিছরির গুঁড়োর সাথে এক সপ্তাহ প্রতিদিন সকাল খাওয়ালে স্মৃতিশক্তি বেড়ে যায়।
* সর্দি ও জ্বরজ্বর ভাব হলে: সর্দি হলে বা গায়ে ব্যথা এবং জ্বরজ্বর ভাব হলে বেলপাতা বেটে রস বের করে এক ফোঁটা মধুসহ তিন-চার দিন খেলে ভালো হয়।
* শুক্র তারল্যে : বেলগাছের শিকড় ভালো করে ধুয়ে সামান্য জিরার সাথে বেটে ঘিয়ের সাথে খেলে শুক্র গাঢ় হয়।
* গায়ের দুর্গন্ধে : অনেকের শরীর থেকে দুর্গন্ধ নির্গত হয়। এ জন্য দাম্পত্য কলহ এমনকি বিবাহ বিচ্ছেদ পর্যন্ত হয়। তাদের পাশে কেউ বসতে পারে না। তারা বেলপাতা দিয়ে পানি সেদ্ধ করে সেই পানিতে শরীর মুছলে বা ওই পানি দিয়ে গোসল করলে শরীরের দুর্গন্ধ দূরীভূত হয়।
ঔষধিগুণ ঃ- বেল কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে ও আমাশয়ে উপকার করে। আধাপাকা সিদ্ধফল আমাশয়ে অধিক কার্যকরী । বেলের শরবত হজম শক্তি বাড়ায় এবং বলবর্ধক । বেলের পাতার রস মধুর সাথে মিশিয়ে পান করলে চোখের ছানি ও জ্বালা উপশম হয়। পাতার রস, মধু ও গোল মরিচের গুঁড়া মিশিয়ে পান করলে জন্ডিস রোগ নিরাময় হয়।
ব্যবহার : কাঁচা ও পাকা বেল সুস্বাদু খাবার । পাকা বেলের জুস তৈরি করে খাওয়া যায়।

ষ ডা: মাও: লোকমান হেকিম
সভাপতি, শাহপরান সাহিত্য ফোরাম,
আম্বরখানা পয়েন্ট,সিলেট।
মোবা : ০১৭১৬২৭০১২০



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।