Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৫ আশ্বিন ১৪২৫, ৯ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

অমার্জনীয়, নিন্দনীয়

প্রকাশের সময় : ১৭ জানুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ফরাসী বিপ্লবের উত্তরাধিকার হিসেবে যারা নিজেদের মানবতাবাদী বলে দাবি করেন তারা এটা কি করলেন? জীবন রক্ষার্থে ব্যর্থ হয়ে উত্তাল সাগরের টানে যে নিষ্পাপ শিশুটির মৃত্যু বিশ্ব মানবতার দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিল সেই শিশুটিই মানবতার ইতিহাসে সম্ভবত সবচেয়ে ঘৃণ্য আক্রমণের শিকারে পরিণত হয়েছে ফরাসী দেশে। ২০১৫ সালে যখন চরমপন্থীদের আক্রমণের পড়ে ফ্রান্সের ব্যঙ্গাত্মক পত্রিকা শার্লি এবদো তখন সারাবিশ্ব সমালোচনায় মুখরিত হয়ে উঠেছিল। এবার সেই শার্লি এবদোরই এক সাম্প্রতিক প্রচ্ছদে সিরিয়ার উদ্বাস্তু শিশু আয়লান কুর্দিকে ধর্ষণকারী হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে। গত বছর সেপ্টেম্বরে দক্ষিণ-পশ্চিম তুরস্ক থেকে গ্রিসের কোস দ্বীপে যাওয়ার পথেসমুদ্রে ডুবে যায় দু’টি নৌকা। তার মধ্যে একটি নৌকায় ছিল আয়লান। ছোট্ট হাত দু’টো ছুঁড়ে বাঁচার আপ্রাণ চেষ্টা করেও কোন কাজ হয়নি। ভয়ঙ্কর ঢেউ কিছুক্ষণের মধ্যেই গিলে নেয় তাকে। তারপর ঢেউয়ের তোড়েই আয়লানের দেহ একসময় এসে পৌঁছায় সমুদ্রতটে। তোলপাড় পড়ে যায় সারাবিশ্বে। ছোট কুর্দির মৃত্যুর পর তাকে নিয়ে বিভিন্ন কার্টুন অনেক সময়ই ছেপেছে এই পত্রিকা। এই কার্টুনটি প্রকাশ্যে আসার পর শার্লি এবদো মারাত্মক সমালোচনার সম্মুখীন হয়েছে।
একথা কে না জানে শিশু আয়লান সময়ের প্রতীকে পরিণত হয়েছিল। তার মৃত্যু বিশ্ব বিবেককে নাড়া দিয়েছিল। অভিবাসীদের মর্মান্তিক চিত্র উঠে এসেছিল। সেই সাথে চলমান ঘটনার জীবন্ত প্রতীক হয়েছিল আয়লান। পাশ্চাত্যের যেসব দেশ অভিবাসী ঠাঁই না দিতে নানা রকম ফন্দি-ফিকির করছিল তারাও আয়লানের করুণ মৃত্যুর পর তাদের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছিল বা অসতে বাধ্য হয়েছিল। আয়লান এখন ইতিহাসের অংশ। মৃত্যুর মধ্যদিয়ে সে অমরত্ব লাভ করেছে। মূলত সোশ্যাল মিডিয়াতে তার ছবি ছড়িয়ে পড়লে দুনিয়াজুড়ে আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছিল। যে কোন ঘটনাকেই নানা দৃষ্টিভঙ্গিতে দেখার বিবেচনা গৃহীত। এর ইতিবাচক-নেতিবাচক দিক থেকেই যায়। এর মধ্য দিয়ে মূলত চিন্তা-চেতনা মানসিকতার বহিঃপ্রকাশ ঘটে। দ্য ভিঞ্চির মোনালিসা ফরাসী বিপ্লবে যেমনি প্ররেণা জুগিয়েছে আয়লানের সে ছবিও তেমনি এ সময়ে মানবতাবোধ জাগ্রতকরণে প্রেরণা হিসেবে কাজ করেছে। যে শিশু বেড়েই উঠতে পারল না সে বড় হয়ে কি হবে সে ভাবনায় তাকে জার্মানীর রাস্তায় ধর্ষণকারী হিসেবে দেখানোর মধ্যে দিয়ে প্রকৃত বিবেচনায় কার্টুনিস্টের নিজের অভিপ্রায়ই ফুটে উঠেছে। যে সমাজ আকন্ঠ ব্যাভিচারে লিপ্ত তাদের মেধা-মননে এরচেয়ে বেশিকিছু থাকার কথা নয়। এই মানসিকতা জঙ্গি মানসিকতার চেয়েও ঘৃণ্য। যারা এটা প্রকাশ করেছে এর মধ্যদিয়ে তারা মূলত জাতিবিদ্বেষ ও সাম্প্রদায়িকতাকেই উস্কে দেয়ার অপচেষ্টা করেছে। এটি আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী ইহুদিদের নীল-নকশার অংশ হিসেবেই বিবেচিত। আলোচ্য কার্টুনের মধ্য দিয়ে যে বিদ্বেষ ছড়ানোর অপচেষ্টা হয়েছে সে সম্পর্কে নতুন করে বলার কিছু নেই। সারা দুনিয়ার মানুষ সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে। দুনিয়ার সকল মহলই একমত যে, আজকের বিশ্বকে এগিয়ে নিতে সকলকেই সাথে নিতে হবে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তার দায়িত্ব ছাড়ার একবছর আগে সেদিন পুনরায় মুসলমানদের অপমান না করার এবং তাদের সম্মান করার জন্য মার্কিনীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। প্রথম মেয়াদে ক্ষমতা গ্রহণের পরপরই তিনি মিশরে এসে মিশরবাসী ও এবং সেই সাথে পৃথিবীবাসীর কাছে মুসলিম বিশ্বের সাথে সম্পর্ক উন্নয়নের আহ্বান জানিয়েছিলেন। শার্লি এবদো এর আগেও মহানবী (সা.)-এর কার্টুন প্রকাশ করেছিল। এবারে যা করেছে তা মূলত বিদ্বেষপ্রসূত। ভাবতেও অবাক লাগে একটি ভাগ্য বিড়ম্বিত দুর্যোগকবলিত বিধ্বস্ত মৃত মানব শিশু কি করে আধুনিক সভ্যতার দাবিদারদের প্রতিহিংসার বিষয়বস্তুতে পরিণত হতে পারে।
ফরাসী বিপ্লব সম্পর্কে মনে করা হয়, সেসময়কার ফরাসী দার্শনিক বুদ্ধিজীবীরা হয়ত বিপ্লব সংঘটিত করাননি তবে তারা দক্ষতার সাথে কারণগুলো প্রকাশ ও আলোকপাত করে সেগুলোর বিশ্লেষণ এবং জনমত গঠনে সহায়তা করেছেন। আজকের ফরাসী সমাজে কি তাদের সত্যিকার প্রতিনিধিত্ব রয়েছে কিনা সে প্রশ্নই বড় করে তুলেছে শার্লি এবদো। আয়লানের কার্টুন প্রকাশের পর যারা শার্লি এবদোর নিন্দা করেছেন আমরাও তাদের সাথে কণ্ঠ মিলিয়ে বলতে চাই, এটা অমার্জনীয় অপকর্ম। এভাবে বিদ্বেষ ছড়িয়ে, প্রতিহিংসা জাগ্রত করে প্রকৃতপক্ষে কারো কোন লাভ হবে না। বিশ্বের শান্তি-নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চাইলে পারস্পরিক শ্রদ্ধা, শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান ও মানবিক ঔদার্য প্রদর্শনের বিকল্প নেই। বিশ্ব শান্তি ও নিরাপত্তার স্বার্থে সংশ্লিষ্টদের বোধদয় হবে, এটাই প্রত্যাশিত।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ