Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৪ আগস্ট ২০২০, ২০ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৩ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস উদ্বোধন অনুষ্ঠান ৫৪টি দেশের বর্জন উপস্থিতি ৩২টি দেশের

ইসরাইলি বর্বরতার বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাপী নিন্দা

| প্রকাশের সময় : ১৬ মে, ২০১৮, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : ফিলিস্তিনে ব্রিটেনের প্রতিষ্ঠিত এবং যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্র ও অর্থ সাহায্যপুষ্ট ইসরাইল গত সোমবার গাজায় গণহত্যা চালিয়ে ৬১ জন ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে। আহত হয়েছে প্রায় ২ হাজার ৭শ’। গাজার ফিলিস্তিনিরা তিন সপ্তাহ ধরে জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস উদ্বোধনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ও নিজেদের ভ‚মিতে প্রত্যাবর্তনের দাবিতে বিক্ষোভ করছিল। সোমবার মার্কিন দূতাবাস উদ্বোধনের আগে ইসরাইলি সৈন্যরা গাজা সীমান্তে এই গণহত্যা চালায়। এ ইহুদি বর্বরতার বিরুদ্ধে বিশ^ব্যাপী নিন্দা ও প্রতিবাদ ধ্বনিত হচ্ছে। এদিকে সোমবার মার্কিন দূতাবাসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বর্জন করে ৫৪টি দেশ। তবে ৩২টি দেশ এ অনুষ্ঠানে যোগ দেয়। খবর আল জাজিরা ও মিডল ইস্ট মনিটর।
ইসরাইলের সংবাদপত্র হারেৎজ জানায়, জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগদানের জন্য ইসরাইলে দূতাবাস থাকা ৮৬টি দেশের রাষ্ট্রদূতকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। কিন্তু ৫৪টি দেশ এ অনুষ্ঠান বর্জন করে। বর্জনকারী দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে রাশিয়া, মিসর, ভারত, জাপান ও মেক্সিকো। ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ভুক্ত ৪টি দেশ অনুষ্ঠানে যোগ দিলেও বাকি দেশগুলো এ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেনি। এ দেশগুলো হলঃ অস্ট্রিয়া, হাঙ্গেরি, রোমানিয়া ও চেক রিপাবলিক। ইইউ সদস্য নয় ইউরোপের এমন ৫টি দেশ অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ঃ আলবেনিয়া, মেসিডোনিয়া, সার্বিয়া, ইউক্রেন ও জর্জিয়া। আফ্রিকার ১২টি দেশ এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিল ঃ অ্যাঙ্গোলা, ক্যামেরুন, ডিআর কঙ্গো, রিপাবলিক অব দি কঙ্গো, আইভরি কোস্ট, কেনিয়া, দক্ষিণ সুদান, তাঞ্জানিয়া, ইথিওপিয়া, নাইজেরিয়া, জাম্বিয়া ও রুয়ান্ডা। উত্তর আমেরিকা থেকে যুক্তরাষ্ট্র এবং দক্ষিণ আমেরিকা থেকে অনুষ্ঠানে যোগদান করে ৬টি দেশ। এ দেশগুলো হল ঃ ডোমিনিকান রিপাবলিক, এল সালভাদর, গুয়াতেমালা, পানামা, হন্ডুরাস ও প্যারাগুয়ে। এশিয়া থেকে যোগদানকারী ৪টি দেশ হলঃ মিয়ানমার, ফিলিপাইনস, থাইল্যান্ড ও ভিয়েতনাম।
বিশ^ব্যাপী নিন্দা ও প্রতিবাদ
এদিকে, মার্কিন দ‚তাবাস তেল আবিব থেকে জেরুজালেম স্থানান্তরের প্রতিবাদে ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারীদের ওপর ইসরাইলের গণহত্যার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন বিশ্ব নেতারা।
ইইউ’র পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক প্রধান ফেডেরিকা মোঘেরিনি সোমবার এক বিবৃতিতে বলেন, আজ ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে শিশুসহ কয়েক ডজন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। তিনি বলেন, ‘ইসরাইলকে অবশ্যই শান্তিপ‚র্ণ প্রতিবাদ এবং বল প্রয়োগের অনুপাতের নীতির প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করতে হবে।’
গাজায় সহিংসতা নিয়ে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বিবৃতি দিয়েছেন। এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আমরা গাজায় সহিংসতা ও বিপুল প্রাণাহানির প্রতিবেদন নিয়ে উদ্বিগ্ন।’
গাজায় এই হতাহতের খবরে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জার্মানি। সোমবার সন্ধ্যায় প্রকাশিত একটি বিবৃতিতে জার্মান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গাজার হত্যার জন্য ইসরাইলের নিন্দা করে শান্তিপ‚র্ণ বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে তাজা গোলাবারুদের ব্যবহার বন্ধ করার আহŸান দেশটি ইসরাইলের প্রতি আহŸান জানিয়েছে। বার্লিনের বিবৃতিতে বলা হয়, গাজা স্ট্রিপের লোকেরা শান্তিপ‚র্ণ বিক্ষোভ চালিয়ে যাওয়ার অধিকার রাখে। তবে, উত্তেজনাপ‚র্ণ পদক্ষেপের বিরুদ্ধে সতর্ক করে দেয়া হয়।
মার্কিন দ‚তাবাস জেরুজালেমে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্তের নিন্দা জানিয়েছেন রাশিয়া এবং মিশরের পররাষ্ট্র মন্ত্রীরা। মস্কোয় মিশরের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্তকে রাশিয়া বেশ কয়েকবার নেতিবাচকভাবে ম‚ল্যায়ন করেছে। তিনি বলেন, ‘আন্তর্জাতিক স¤প্রদায়ের সিদ্ধান্তে নির্ধারিত চুক্তি একতরফাভাবে কেউ পরিবর্তন করতে পারে না। জেরুজালেমের অবস্থা নির্ধারণ এই প্রশ্নগুলির মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপ‚র্ণ একটি। এই সমস্যা শুধুমাত্র ইসরাইল ও ফিলিস্তিনি নেতাদের মধ্যে সরাসরি সংলাপের মাধ্যমে সমাধান করা যেতে পারে।’
মিশরের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় শান্তিপ‚র্ণ বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে মারাত্মক বলপ্রয়োগের জন্য ইসরাইলের নিন্দা করে বলা হয়, এই পদক্ষেপ ‘গুরুতর উত্তেজনা বৃদ্ধির’ কারণ যা বিপজ্জনক পরিণতি হতে পারে।
কাতার সোমবারের সহিংসতাকে ‘গণহত্যা’ হিসেবে উল্লেখ করে বলা হয়, গাজা ভ‚খন্ডের প‚র্ব সীমান্তে ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরাইলি সেনাবাহিনী ‘নিয়মানুগ হত্যাযজ্ঞ’ চালাচ্ছে। কাতারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র লুলাহ আল-খাতার বলেন, তার দেশ ইসরাইলের হত্যাকাÐ বন্ধ করতে চাপ দেয়ার জন্য সকল আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক ক্ষমতা আহŸান করছে।
ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভাদ জারিফ গাজার নিরস্ত্র বিক্ষোভকারীদের ওপর ইসরাইলি হামলাকে ‘লজ্জাজনক’ বর্ণনা করেছেন। তিনি গাজা ভ‚খন্ডে এক দশকব্যাপী ইসরাইলি ও মিশরীয় নিষেধাজ্ঞাকে ‘বিশ্বের সবচেয়ে বড় উন্মুক্ত কারাগার’ হিসেবে মন্তব্য করেন।
লেবাননের সংসদ সদস্যরা সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের দ‚তাবাস স্থানান্তরের নিন্দা করেন এবং গাজায় ইসরাইলের হামলাকে ‘নিষ্ঠুর ও বর্বর’ হিসেবে মন্তব্য করেন। মার্কিন দ‚তাবাস তেল আবিব থেকে জেরুজালেম স্থানান্তরের প্রতিবাদে ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারীদের ওপর ইসরাইলের গণহত্যার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন বিশ্ব নেতারা।
কাতার গাজায় ইসরাইলি গণহত্যার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে । কাতারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লোলওয়া আল-খাতের সোমবার এক বিবৃতিতে এ নিন্দা জানান।
সউদী আরব গাজায় নিরস্ত্র মানুষের উপর গুলিবর্ষণের নিন্দা জানিয়েছে, কিন্তু দূতাবাস উদ্বোধন বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি। ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস গাজা সীমান্তে ইসরাইলি হত্যার নিন্দা করেছেন। তিনি তিনদিনের শোক ঘোষণা করেন।
দূতকে দেশে তলব
গাজা হত্যাকান্ডের পর তুরস্ক, দক্ষিণ আফ্রিকা ও আয়ারল্যান্ড ইসরাইল থেকে নিজ নিজ দেশের রাষ্ট্রদূতদের দেশে ডেকে পাঠিয়েছে।

 



 

Show all comments
  • সোহেল ১৬ মে, ২০১৮, ৬:৩৪ এএম says : 0
    সারা বিশ্রে অশান্তির জন্য এরাই দায়ি
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জেরুজালেম


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ