Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫, ১০ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

মসনবী শরীফ

| প্রকাশের সময় : ১৮ মে, ২০১৮, ১২:০০ এএম

মাওলানা জালাল উদ্দীন রূমী রহ.
কাব্যানুবাদ : রূহুল আমীন খান
৬৯০. যেতেই হবে, নয় জ্বালানী কাষ্ট হব, উপায় নাই
জাহান্নামের নি¤œদেশে জ্বলে হব ভষ্ম ছাই।

৬৯১. কথা শেষে ডাকল উযির একেক করে আমীরদের
একই কথা ভিন্নভাবে বলল নিকট প্রত্যেকের।

প্রত্যেক আমীরকে পৃথক পৃথক ভাবে খলীফা নিযুক্ত করণ

৬৯২. প্রতি জনেই বললÑ তুমি ঈসার অছি সত্যিকার
তুমি ছাড়া এই কওমের খলীফা নয় কেউই আর।

৬৯৩. ঈসা তোমায় বানিয়েছেন সবার নেতা নিজ থেকেই
‘তুমি অছি*’ তোমার হুকুম, মানতে হবে সকলকেই।

৬৯৪. তোমার হবে অবাধ্য যে, করবে খেলাফ যেই আমীর
বন্দী করে শির উড়াবে উদ্ধত সেই বিদ্রোহীর।

৬৯৫. এসব হুকুম করবে তামিল হলে আমার জীবন শেষ
তাহার আগে রাখবে গোপন সবার থেকে এই আদেশ।

৬৯৬. প্রকাশ এসব যেমন আমার মরার আগে করবে না
ক্ষমতা ও রাজ্যলাভের পথও সেরূপ ধরবেনা।

৬৯৭. লও হাতে লও এ পুস্তিকাÑ মসীর দেয়া সংবিধান
পৌঁছে দিও সঠিকভাবে সকল লোকের সন্নিধান।

৬৯৮. সব আমীরের নিকট উযির একই কথার টানল জের
বলল এমন একান্তে যে, অন্যে তা না পাইল টের।

৬৯৯. দ্বাদশ আমীরকেই উযির একই কথা দেয় বলে
সম্মানিত করল সবায় চাতুর্যে ক‚ট-কৌশলে।

৭০০ কথার শেষে প্রতিজনে দিল বিধান-বই হাতে
পরস্পরে বিরোধী যার আদেশ নিষেধ সবটাতে।

৭০১. প্রতি ‘বিধানবইয়ে’র বিধান ভিন্ন এমন পরস্পর
প্রতিটি বর্ণ হরফের রূপ যথা হয় ভিন্নতর।

৭০২. এক বিধি ও অন্য বিধির মিল কোথাও নেই এক তিল
দ্ব›দ্ব ফাসাদপূর্ণ সবি, ধোকায় ভরা সব অমিল।

উযিরের আত্মহত্যা

৭০৩. ভক্তদেরে বিদায় করে করল উযির রুদ্ধ দ্বার
নিথর নীরব নির্জনেতে চালিশ দিবস কাটল তার।

৭০৪. প্রতারণার জাল বিছিয়ে করল শেষে আত্মনাশ
সাঙ্গ করে জীবন লীলা হয়ে গেল মৃতলাশ।

৭০৫. ভক্তসমাজ জানল যখন পীর করেছে ইন্তেকাল
রোয কিয়ামত নামল যেনÑ সব দিওয়ানা সব বেহাল।

৭০৬. হাযির হলো গোর-পাশে তার আলু থালু মলিন বেশ
ছাড়ল ভ‚ষণ, ছিঁড়ল বসন, ছিঁড়ল শোকে মাথার কেশ।

৭০৭. মুখে সবার একই বিলাপ আর্তধ্বনি এক যিকির
এতীম করে কোথায় গেল দিক দিশারী যিন্দেগীর।

৭০৮. তুর্ক আরব কুর্দী রূমী জমল গোরে পীর-বাবার
কতো মুরীদ হলো হাযির খোদাই জানে হিসাব তার।

৭০৯. গোরের মাটি মুখে মাথায় ছিটায়Ñ তাদের ভাবনা এই
পুণ্য হবে এতে অঢেল, মুক্তি পাবে সব রোগেই।

৭১০. ধনি-গরীব, আমীর-ফকীর সবাই অধীর টালমাটাল
নেই কোনো ভেদ প্রকাশে শোকÑ সব মুরীদের একই হাল।

৭১১. অশ্রæ ঢেলে দুই নয়নের প্রকাশ করে শোকোচ্ছ¡াস
কাটিয়ে দিল ভক্তরা তার গোরের পাশে একটি মাস।

দ্বাদশ নেতার মধ্যে গদীনশীন হওয়া নিয়ে বিবাদ

৭১২. মাসেক পরে জিজ্ঞাসিল আমীরদের খ্রিস্টগণ
বলুন কাকে করা হবে গদীনশীন নির্বাচন ?

৭১৩. কে সে বলুন যিনি হবেন প্রতিনিধি পীর-বাবার ?
হবেন নায়ক সকল কাজের, অনুসরণ করব যার ?

৭১৪. আমরা সবাই বায়াত যেন করতে পারি তার হাতে
পারি যেন শরণ নিতে সুখে দুখে সবটাতে।

৭১৫. সূর্য যখন অস্তমিত আঁধারে সবÑ উপায় নাই
এই বিপদে মুক্তি পেতে বিকল্প তার চেরাগ চাই।

৭১৬. হারিয়ে গেল ও নূর বদন মোদের মহান রাহ্্নোমার*
চাই মোরা তাঁর প্রতিনিধি, তাঁরই স্মৃতির ইয়াদগার।

৭১৭. চলে গেছে ফুলের ঋতু, বিরানা বাগ, গোলাপ নাই
খোশবু পেতে গোলাপ ফুলেরÑ গোলাপ-পানি চাই সবাই।

৭১৮. খোদা আছেন কিন্তু তিনি দৃষ্টি সীমার মধ্যে নন
প্রতিনিধি হয়ে ধরায় আসেন তাঁহার রাসূলগণ।

৭১৯. ভুল বলেছি! প্রতিনিধি এবং মালিক ভিন্ন নয়
ভাবলে জুদা ভুল হবে তাÑ অভিন্ন ও এক উভয়।

৭২০. ভাববে জুদা মূর্তি পূজায় থাকবে ডুবে যতেক দিন
সুরত মুরত মুছলে তখন দেখতে পাবে সব অভিন্।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ