Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫, ১০ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌
শিরোনাম

মাটি ফুঁড়ে বেরুচ্ছে গরু ভারত সীমান্তে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ মে, ২০১৮, ৮:০৯ পিএম

অবিশ্বাস্য হলেও সত্য যে, ঈদ সামনে রেখে ভারত সীমান্তে এখন মাটির নিচে গরু মিলছে। মাটি ফুঁড়ে বেরুচ্ছে গরু। তবে এই গরু সেই গরু নয়। এই গরু হলো চোরাই গরু। টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়েছে, শিলচরে সীমান্ত রক্ষী বাহিনীরা মাটির নিচে গরু চোরাচালানের কাজে ব্যবহৃত একটি গোপন সুড়ঙ্গ আবিষ্কার করেছে। এর একদিন আগে নিউজএইটিন ডটকম বলেছে, গরু চোরাচালানিরা নতুন কৌশল অবলম্বন করছে। তারা এখন সীমান্ত রক্ষীদের ফাঁকি দিতে সীমান্ত সড়কের ওপর থাকা বক্সকালভার্টের মধ্যে গরু ঢুকিয়ে পাচার করছে। ঈদ সামনে রেখে দক্ষিণ আসামের বিভিন্ন চোরাই রুট আবার চাঙ্গা হয়ে উঠেছে। নিলামা বাজার এলকায় প্রায় ২০ ফুট লম্বা একটি কালভার্ট অতিক্রমকালে পুলিশ গত সোমবার রাতে দু’ব্যক্তিকে আটক করেছে। গত মাসে করিমগঞ্জের পুলিশ ১০ চোরাচালনিকে গ্রেপ্তার করেছে। তারা এই গোপন সুড়ঙ্গ দলের নতুন সদস্য বলেই মনে করা হচ্ছে। পুলিশ সুপার জানান, কালভার্টের পাইপগুলো ১০ থেকে ১৫ ফুট নিচে প্রোথিত। টহল দেয়ার সড়কগুলো সাধারণত ৩ ফুট ব্যাসের। করিমগঞ্জের এ রকম রাস্তা আছে ১০৬ কিমি। এর মধ্যে এরকম প্রায় ৬৩টি ‘প্রাকৃতিক শূন্যতা’ রয়েছে। আর দুটি অংশের বড় দুটি জায়গায় কাঁটাতারের বেড়া নেই। চোরাচালানি আগের চেয়ে কমেছে। কারণ বিএসএফ নজরদারি বৃদ্ধি করেছে। তাই বিএসএফকে ফাঁকি দিতে এখন সুড়ঙ্গ পথও কাজে লাগানো হচ্ছে। তারা এটা প্রতিহত করতে সুড়ঙ্গগুলোতে আলোর ব্যবস্থা করবেন। ওই রিপোর্টে বলা হয়, উত্তর প্রদেশসহ বিভিন্ন স্থান থেকে যে গরু মাত্র ৪ থেকে ৫ হাজার রুপিতে কেনা হয়, সেই গরু বাংলাদেশে ৬০ থেকে ৭০ হাজার টাকায় বিক্রি হয়। শুক্রবার টাইমস অব ইন্ডিয়ার রিপোর্টে বলা হয়, কথিত ওই সিক্রেট টানেল বা গোপন সুড়ঙ্গটি ভারতের করিমগঞ্জ থেকে সীমান্ত পর্যন্ত বিস্তৃত। টানেলটি বিএসএফের মদনপুর সীমান্ত ফাঁড়ির কয়েক মিটার দূর থেকে গহীন অরণ্যের ভূগর্ভে অবস্থিত। পত্রিকার রিপোর্টে করিমগঞ্জের সঙ্গে সীমান্ত ৯২ কিলোমিটার উল্লেখ করা হলেও গোপন সুড়ঙ্গের দৈর্ঘ্য কতটা তার উল্লেখ নেই। টাইমস অব ইন্ডিয়া।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ