Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯ আশ্বিন ১৪২৫, ১৩ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

ইসলামী শিক্ষার সাথে আধুনিক শিক্ষা অর্জন করলে ভালো আলেম ও ভালো অফিসার হবে -শিক্ষামন্ত্রী

আল্লাহর নৈকট্য লাভের মাধ্যম হলো সিয়াম-সাধনা পরিকল্পনামন্ত্রী

| প্রকাশের সময় : ২২ মে, ২০১৮, ১২:০০ এএম

মাদকসহ সামাজিক সঙ্কট মোকাবেলায় আলেমদের নিয়ে সরকারকে কাজ করতে হবে এ এম এম বাহাউদ্দীন
স্টাফ রিপোর্টার : দেশের আলেমরা যদি ইসলামী শিক্ষার পাশাপাশি আধুনিক শিক্ষা অর্জন করে তাহলে একইসাথে ভাল আলেম ও ভাল অফিসার তৈরি হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। তিনি বলেন, মাদরাসা শিক্ষার্থীরা যাতে শুধু ধর্মীয় শিক্ষা নয়, আধুনিক শিক্ষাও অর্জন করতে পারে এজন্য ধর্মীয় শিক্ষার সাথে আধুনিক শিক্ষার সমন্বয় করা হয়েছে। এখন মাদরাসায় কোরআন, হাদীসের সাথে সাধারণ ধারার শিক্ষার্থীদের সমান বাংলা, ইংরেজি ও গণিত বিষয়েও শিক্ষা দেয়া হচ্ছে। এতে শিক্ষার্থীরা একদিকে যেমন ইসলামী শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে ওঠে অন্যদিকে আধুনিক শিক্ষার মাধ্যমে ডাক্তার-ইঞ্জিনিয়ারও হতে পারে। গতকাল (সোমবার) বিকেলে রাজধানীর মহাখালিস্থ গাউসুল আজম কমপ্লেক্সে আয়োজিত এক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলে তিনি একথা বলেন। মাদরাসা শিক্ষকদের একক ও বৃহৎ অরাজনৈতিক সংগঠন বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীন মানবতা বিকাশে মাহে রমজানের ভূমিকা শীর্ষক এই আলোচনা সভা, দোয়া ও ইফতার মাহফিলের আয়োজন করে।
বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের সভাপতি ও দৈনিক ইনকিলাব সম্পাদক আলহাজ্ব এ এম এম বাহাউদ্দীনের সভাপতিত্বে ও মহাসচিব অধ্যক্ষ শাব্বীর আহমদ মোমতাজীর পরিচালনায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী, ধর্ম বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বজলুল হক হারুন এমপি। বক্তব্য রাখেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মোঃ সোহরাব হোসাইন, কারিগরি ও মারদাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মোঃ আলমগীর, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মহিউদ্দীন খান, এ কে এম জাকির হোসেন, আবুল হাসান মাহমুদ চৌধুরী, রওনক মাহমুদ, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের মহাপরিচালক প্রফেসর মাহাবুবুর রহমান, মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান এ কে এম ছায়েফ উল্যা, ইসলামের আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. আহসান উল্লাহ, জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের যুগ্ম মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ড. এ কে এম মাহবুবুর রহমান প্রমুখ।
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ইসলাম ধর্ম হচ্ছে মানবতা ও কল্যাণের ধর্ম। ইসলাম ধর্ম নৈতিকতা ও মানবিক মূল্যবোধে উদ্বুদ্ধ করে। তিনি বলেন, ১৯৭১ সালের পর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একটি দরিদ্র রাষ্ট্র পেয়েছিলেন। সেই রাষ্ট্রকেই উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে পরিণত করেছেন জাতির জনকের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মাদরাসা শিক্ষার উন্নয়নের বিষয়ে তিনি বলেন, মাদরাসা ও ইসলামী শিক্ষা এগিয়ে নিতে বর্তমান সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। শিক্ষার্থীরা যাতে তাদের অর্জিত জ্ঞান বাস্তব জীবনে প্রযোগ করতে পারে সে ব্যবস্থা করা হয়েছে। শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য দূর করা হয়েছে ও মর্যাদা সাধারণ শিক্ষকদের সমান করা হয়েছে। বর্তমান সরকারের সময়ে মাদরাসা শিক্ষার উন্নয়নে বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের দাবির প্রেক্ষিতে ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে, মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তর, উচ্চমানের শিক্ষার জন্য মাদরাসায় অনার্স কোর্স চালু করা হয়েছে। মন্ত্রী বলেন, ইতোমধ্যে দুই হাজার মাদরাসার নতুন ভবন তৈরি করা হয়েছে। আরও দুই হাজার নতুন ভবন তৈরি করা হবে। ইতোমধ্যে তা অনুমদনের জন্য একনেকে প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এটি অব্যাহত থাকবে। একটি ক্ষুধা দারিদ্র জর্জরিত দেশকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজকের এই অবস্থানে নিয়ে এসেছে। দেশের এই অগ্রগতির ধারা যদি অব্যাহত রাখতে চান তাহলে তার প্রতি আস্থা রাখুন।
পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল বলেন, পবিত্র রমজান মাস আমরা যারা পেয়েছি আসরা সত্যিই ভাগ্যবান। কারণ এই রমজান হলো দোয়া কবুলের মাস, সিয়াম সাধনার মাস। আমরা যারা রোজা রাখি আল্লাহর কাছে দোয়া করবো বারবার তিনি যেন আমাদেরকে রমজান মাস পাওয়ার সৌভাগ্য দেন। আর সিয়াম সাধনার মাধ্যমে আল্লাহর নৈকট্য লাভের সুযোগ করে দেন।
কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষা বিভাগের দায়িত্ব দিয়েছেন। দায়িত্ব পেয়ে আমি কারিগরি শিক্ষাকে যুগোপযোগী করার চেষ্টা করছি। মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষা বিভাগের উন্নয়নের জন্য তিনি আগামী বাজেটে আরও বরাদ্দ চেয়েছেন বলে জানান।
জমিয়াতের বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, জমিয়াতুল মোদার্রেছীন ইসলাম প্রচারের জন্য কাজ করছে, এর সাথে সংযুক্ত শিক্ষকরা রাসূল (সা.) এর জীবনাদর্শ ছড়িয়ে দিচ্ছে শিক্ষার্থীদের মাঝে। তিনি বলেন, রাসূল (সা.) এর জীবন আদর্শ অনুসরণ করলে সকলের জীবন সার্থক হবে এবং কোন বিপদ-আপদ হবে না। এজন্য সকলের উচিত ভাল আমল করা, কোরআন পড়া, সত্য কথা বলা।
ধর্ম বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব বজলুল হক হারুন এমপি বলেন, জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের শিক্ষকগণ রমজানের তাৎপর্য বোঝে এবং মানুষকে বোঝায়। এককভাবে এরকম সারাদেশে বৃহৎ ও সংগবদ্ধ সংগঠন আর নেই। কিন্তু সম্প্রতি এই সংগঠন সম্পর্কে অনেকেই উস্কানিমূলক কথা বলে। আমরা সজাগ আছি। উস্কানি দিলে, ষড়যন্ত্র করলে, জমিয়াতুল মোদার্রেছীন ছাড়া মাদরাসা শিক্ষার উপর কোন কিছু চাপিয়ে দেয়ার চেষ্টা করলে তা মেনে নেয়া হবে না।
বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের সভাপতি আলহাজ্ব এ এম এম বাহাউদ্দীন বলেন, সমাজে এখন অনেক ধরণের সমস্যায় আক্রান্ত। প্রধানমন্ত্রী ড্রাগসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন। প্রতিদিন এর সাথে জড়িত মানুষদের হত্যা করতে হচ্ছে। কিন্তু এটা উদ্দেশ্যহীন। কারণ ড্রাগসের সাথে এখন মহিলা, ছোট ছোট বাচ্চারাও জড়িয়ে পড়েছেন। কালকে যখন মহিলা ও বাচ্চাদের মারা শুরু হবে তখন সরকারের জন্য একটা অমার্জনীয় বিষয় হবে। এটা এভাবে বন্ধ করা যাবে না। এধরণের অনেক কিছু সামাজিক অপরাধ, সঙ্কট আছে। এগুলো মোকাবেলা করার জন্য আলেম সমাজকে একত্রে নিয়ে সরকারকে কাজ করতে হবে। জমিয়াতুল মোদার্রেছীন আপনাদের সাথে আছে। এতো সংগঠিত ও শক্তিশালী অর্গান আর কোথাও সরকার পাবে না। সুতরাং সমাজে শান্তি-শৃঙ্খলা আনার জন্য সামনে যে সঙ্কট গুলো আছে সেগুলো মোকাবেলা করা দরকার ।
জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের মহাসচিব অধ্যক্ষ শাব্বীর আহমদ মোমতাজী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালসহ সকলের আন্তরিকতায় মাদরাসা শিক্ষার উন্নয়নে অনেক কাজ হয়েছে। এজন্য আমরা সকলকেই মুবারকবাদ জানাই। কিন্তু একটি গোত্র জমিয়াতুল মোদার্রেছীন ও আলেমদের সাথে সরকারের দুরত্ব তৈরি করার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু আমরা স্পষ্ট করে বলে দিতে চাই, মারদাসা শিক্ষার উন্নয়ন, অগ্রগতি,নীতিনির্ধারণ, সংযোজন ও বিয়োজন সকল কিছুই হবে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও এর সাথে সংশ্লিষ্ট বিভাগগুলোর মাধ্যমে। বাইরের কেউ কথা বললে বা এতে হস্তক্ষেপ করতে চাইলে তা কখনো মেনে নেয়া হবে না। শিক্ষা মন্ত্রণালয় আমাদের অভিভাবক তারা আমাদের দিকনির্দেশনা দিবে, অন্য কেউ দিলে তা হবে না।



 

Show all comments
  • আবুল কাসেম ২২ মে, ২০১৮, ২:৩৫ এএম says : 0
    মাদরাসা শিক্ষকদের একক ও বৃহৎ অরাজনৈতিক সংগঠন বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীন আমাদের প্রিয় সংগঠন।
    Total Reply(0) Reply
  • ইব্রাহিম ২২ মে, ২০১৮, ২:৩৬ এএম says : 0
    এই সুন্দর কথাগুলোর জন্য শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সাহেবকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি
    Total Reply(0) Reply
  • উজ্জল ২২ মে, ২০১৮, ২:৩৭ এএম says : 0
    মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সাহেব আপনি যদি এই কথাগুলো মন থেকে বলে থাকেন তাহলে মাদ্রাসা শিক্ষা ও মাদ্রাসার শিক্ষকদের জন্য কিছু ভালো পদক্ষেপ নিন।
    Total Reply(0) Reply
  • জালাল উদ্দিন ২২ মে, ২০১৮, ২:৪৩ এএম says : 0
    ইনকিলাব সম্পাদক এ এম এম বাহাউদ্দীন সাহেবের সংক্ষিপ্ত এই বক্তব্যের প্রত্যেকটি কথা খুবই মূল্যবান।
    Total Reply(0) Reply
  • এমদাদুল হক ২২ মে, ২০১৮, ২:৪৫ এএম says : 0
    মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনে কাছে এই দোয়া করি যে, আল্লাহ যেন এ এম এম বাহাউদ্দীন সাহেবকে দীর্ঘ হায়াত দান করেন। যাতে তিনি তার বাবার মত দেশ, ইসলাম ও মাদ্রাসার জন্য কাজ করতে পারেন।
    Total Reply(0) Reply
  • সেলিম উদ্দিন ২২ মে, ২০১৮, ২:৪৫ এএম says : 0
    স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদসারাকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মতো জাতীয়করণের আওতাভুক্ত করা, উপবৃত্তি ও টিফিনের ব্যবস্থা এবং নতুন ইবতেদায়ি মাদরাসা প্রতিষ্ঠা, শিক্ষক সংকট দূরীকরণে জমি’আতুল মোদার্রেছীন কর্তৃক জনবল কাঠানো অনুমোদন ও মাদরাসার সহকারী মৌলভীদের বেতন বৈষম্য দূর করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • শাহে আলম ২২ মে, ২০১৮, ২:৪৬ এএম says : 0
    দৈনিক ইনকিলাবের প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ হজরত মাওলানা এম. এ. মান্নান (রহঃ) যেভাবে এ দেশের ইসলাম, মুসলমান ও মাদ্রাসা শিক্ষার জন্য কাজ করে গেছেন ঠিক একইভাবে তার সুযোগ্য সন্তান এ এম এম বাহাউদ্দীন সাহেবেও কাজ করছেন। এজন্য আল্লাহর কাছে দোয়া করি, এই পরিবার ও তাদের সকল কর্মকাণ্ডের প্রতি তিনি যেন রহমত ও বরকত দান করেন।
    Total Reply(0) Reply
  • জামাল ২২ মে, ২০১৮, ২:৪৭ এএম says : 0
    আলেম সমাজকে এড়িয়ে বাংলাদেশে কোন কিছু করা সম্ভব হবে না। তাই যারাই আলেমদের কদর করবে তারাই এগিয়ে যাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Kamrul Hasan ২২ মে, ২০১৮, ২:৪৭ এএম says : 0
    Although, Bangladesh Jamiatul Mudarresin is a Unpolitical social organization, But it Works for Islam and Madrasah Education in Bangladesh.
    Total Reply(0) Reply
  • রেজাউল করিম ২২ মে, ২০১৮, ২:৪৮ এএম says : 0
    মাদক ও সন্ত্রাস এখন দেশের দুই বড় সমস্য। এর সমাধান করা গেলে দেশ অনেক দূর এগিয়ে যাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • সুলতান আহমেদ ২২ মে, ২০১৮, ২:৪৮ এএম says : 0
    ইসলামী সকল দল ও গোষ্টিকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। তাদের সম্মিলিত প্রচেষ্টাই সমাজ, রাষ্ট্র ও পৃথিবী থেকে সকল অন্ধকার দূর হয়ে যাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • মাহফুজ ২২ মে, ২০১৮, ২:৪৯ এএম says : 0
    মদ-গাঁজা-ইয়াবার ছোবলে দেশের যুবসমাজ ধ্বংস হওয়ার উপক্রম হয়েছে। সুশিক্ষার অভাবে সমাজে অনৈতিকতা-অন্যায়-অবিচার বাসা বেঁধেছে। কেবল মাদরাসা শিক্ষাই পারে নতুন প্রজন্মকে মাদকমুক্ত রেখে সুন্দর সমাজ বিনির্মাণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে।
    Total Reply(0) Reply
  • শাজাহান ২২ মে, ২০১৮, ২:৪৯ এএম says : 0
    মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত দেশ প্রতিষ্ঠাই এখন দেশের জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। এই ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া দরকার।
    Total Reply(0) Reply
  • মিল্লাত ২২ মে, ২০১৮, ২:৪৯ এএম says : 0
    নৈতিক ও ধর্মীয় শিক্ষাই পারে মানুষ ও সমাজকে জঙ্গিবাদ ও মাদক থেকে দূরে রাখতে।
    Total Reply(0) Reply
  • মোহাম্মদ ইব্রাহিম ২২ মে, ২০১৮, ১১:১০ এএম says : 0
    মাননীয় বাহাউদ্দীন সাহেব এম পি ও ভুক্ত মাদ্রাসা একটি ও সরকারি হল না এই ব্য পারে আপনারা কেন চুপ বুঝলাম না। দেখতে দেখতে সময় চলে যাবে। আন্দোলন জুরদার করুন ইনশাআল্লাহ সফল হবেন।
    Total Reply(0) Reply
  • Jahan71 ২২ মে, ২০১৮, ৫:২১ পিএম says : 0
    OK. Good but actually Islamic Education is most Modern Education, will be more better and easy to include religious and moral education to all School, Collage and university.
    Total Reply(0) Reply
  • মশিউর রহমান ২২ মে, ২০১৮, ৫:৩১ পিএম says : 0
    মাননীয় মন্ত্রী, মাদ্রাসার ছাত্ররা ইসলামী শিক্ষার সাথে আধুনিক শিক্ষায়ও শিক্ষিত। শুধুমাত্র চাকরিতে তাদেরকে সুযোগ দিয়ে দেখেন তারা দেশটাকে বদলে দেবে।
    Total Reply(0) Reply
  • রফিকুল ইসলাম ২২ মে, ২০১৮, ৬:০৪ পিএম says : 0
    ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির ক্ষেত্রে মাদ্রাসা ছাত্রদেরকে বেশ কিছু বিষয়ে ভর্তি হতে দেয়া হয় না। আগে এই বৈষম্য দূর করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • তামিম ২২ মে, ২০১৮, ৬:১০ পিএম says : 0
    দেশের মাদ্রাসাগুলোই আলোকিত মানুষ সৃষ্টি করে।
    Total Reply(0) Reply
  • ইমরান ২২ মে, ২০১৮, ৬:১১ পিএম says : 0
    মাদ্রাসা শিক্ষিতদের হাতেই দেশে গুরুত্বপূর্ণ পদগুলো নিরাপদ। তারা অন্যান্য সকলের তুলনায় সৎ, নিষ্ঠাবান ও দায়িত্বশীল। কারণ তাদের মধ্যে ইসলামের জ্ঞান আছে, সর্বোপরি মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিন ভয় আছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Abdul Latif ২২ মে, ২০১৮, ৬:১২ পিএম says : 0
    Madrasah Students are all-rounder. They learn Bangla and English like general students. As well as they learn Arabic. On other hand, they learn general education and science like general student. they also learn about Islam. So we think they are better than others.
    Total Reply(0) Reply
  • Bashir Ahmed ২২ মে, ২০১৮, ৬:১৩ পিএম says : 0
    একমাত্র ইসলামী শিক্ষাই পারে সব ধরনের হানাহানি ও হিংসা-বিদ্বেষ ও সব ধরনের অনৈতিকতা থেকে দেশের যুব সমাজকে রক্ষা করতে।
    Total Reply(0) Reply
  • আল আমিন ২২ মে, ২০১৮, ৬:১৬ পিএম says : 0
    জমিয়াতুল মোদারেছীনকে ভাঙার অনেক চেষ্টা হয়েছে। কিন্তু আল্লাহর অশেষ রহমতে তারা সব বিপদ কাটিয়ে উঠেছে। জমিয়াতুল মোদারেছীন আজ বাংলাদেশের এককভাবে মাদ্রাসা শিক্ষকদের সংগঠন।
    Total Reply(0) Reply
  • জাহিদ ২২ মে, ২০১৮, ৬:১৭ পিএম says : 0
    আলেম সমাজকে এড়িয়ে বাংলাদেশে কোন কিছু করা সম্ভব হবে না। তাই যারাই আলেমদের কদর করবে তারাই এগিয়ে যাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • শাফিউন ২২ মে, ২০১৮, ৬:১৯ পিএম says : 0
    স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা যে সিলেবাসে পড়াশুনা করছে সেই একই সিলেবাস পড়ানো হচ্ছে মাদরাসাতেও। ইংরেজি, গণিত, বিজ্ঞানের মতো বিষয়গুলো অভিন্ন থাকার পরও মাদরাসার শিক্ষার্থীরা কোরআন, হাদীসসহ অন্যান্য ধর্মীয় বিষয় পড়াশুনা করছে। ফলে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের চেয়ে বেশি মেধাবী না হলে এতোগুলো বিষয় পড়া তাদের পক্ষে সম্ভব হতো না।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Kowaj Ali khan ২৩ মে, ২০১৮, ৭:২২ এএম says : 0
    বিশ্বের একমাত্র পত ও মত ইসলাম। দুনিয়া এবং আখেরাতের শান্তি আর মুক্তি। আধুনিক শিক্ষা ইসলাম শিক্ষা, তাই সবাইকে ইসলাম শিক্ষায় শিক্ষিত হইতে হইবে। দাড়িঁ রাখিতে হইবে,সূন্নত অনূসরন করিতে হইবে। একমাত্র ইসলাম শিক্ষাই আধুনিক শিক্ষা, সবাই ইসলামের দিকে এগিয়ে আসুন। সকল সমস্যার সমাধান হইবে। ইনশাআল্লাহ। ************
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর