Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৮ সফর ১৪৪১ হিজরী

চাঁদপুর মেঘনা ইলিশ শূন্য বাজারে দাম চড়া

বি এম হান্নান, চাঁদপুর থেকে | প্রকাশের সময় : ২৬ মে, ২০১৮, ১২:০০ এএম

চাঁদপুর শহরের হাট-বাজারে চাহিদা অনুযায়ী মিলছে না পদ্মা-মেঘনার তাজা ইলিশ। আমদানি কম থাকায় ইলিশের দাম চাওয়া হচ্ছে আকাশছোঁয়া। দাম শুনেই খালি হাতে ফিরছেন সাধারণ ক্রেতা। নদীতে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ না আসার কারণ সম্পর্কে গবেষকরা বলছেন, স্রোত এখনো তীব্র হয়নি, পানির প্রবাহ বাড়েনি। নদীর স্রোত বাড়ার সাথে সাথে ইলিশের আমদানি বাড়বে। কিন্তু জেলে, ব্যবসায়ী ও ইলিশপ্রিয়দের অপেক্ষার প্রহর যেনো কাটছে না।
শহরের বিপণীবাগ বাজার ইলিশসহ নানা ধরনের তাজা মাছের সমারোহ। তাজা মাছ মেলে বলে এখানে সব সময় অন্যান্য বাজারের তুলনায় দাম একটু বেশিই রাখা হয়। তবে এবার যেন অন্য সময়ের তুলনায় ইলিশের দাম অনেক বেশি চাওয়া হচ্ছে। বিকেলে বাজার ঘুরে দেখা যায়, বিক্রেতারা ছোট-বড় নানা আকারের ইলিশ নিয়ে বসে আছেন। কিন্তু দাম বেশি হওয়ায় ক্রেতার খুবই সংকট দেখা দিয়েছে।
ক্রেতাদের কাছে প্রতি কেজি মাছ চড়া দাম চাচ্ছেন। বিক্রেতা ফারুক জানান, দু-তিন দিন ধরে ইলিশ নিয়ে এ বাজারে বসছেন তিনি। কিন্তু দাম বেশি বলে ইলিশের ক্রেতা কম পাচ্ছেন। তিনি আরও জানান, ক্রেতারা ইলিশ দামাদামি করে শেষ পর্যন্ত অন্য মাছ নিয়ে বাড়ি ফিরছেন। বাজারে ইলিশ কিনতে আসা ক’জন ক্রেতা বলেন, ‘রমজানে ইলিশ খাওয়ার ইচ্ছে হলেও দামের কারণে কিনতে পারছি না।’
চাঁদপুর বড়স্টেশন মাছঘাটের ইলিশ ব্যবসায়ী আবদুল মালেক খন্দকার জানান, অন্যান্য বছর এ সময় নদীতে কিছু ধরা পড়ত। কিন্তু এ বছর তাও ধরা পড়ছে না। বর্তমানে এক কেজি আকারের ইলিশ ১ হাজার ৬০০ থেকে ১ হাজার ৭০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ৮০০ থেকে ৯০০ গ্রামের ইলিশ ১ হাজার থেকে ১২০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
চাঁদপুর মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা আনিসুর রহমান বলেন, নদীতে এখনো ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ আসার মতো পানি বাড়েনি। স্রোতও অত ধারাল হয়নি। নদীতে পানির প্রবাহ কম থাকায় ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে না।
আনিসুর রহমান আরো জানান, ইলিশ পড়ার এখনো মৌসুম শুরু হয়নি। আশা করা যাচ্ছে, সামনে পানির প্রবাহ ও নদীর স্রোত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ইলিশের সংখ্যা বাড়বে। ইলিশ তীব্র স্রোতে আসে। তাই জেলে, ব্যবসায়ী ও ইলিশপ্রিয়দের মনের মতো ইলিশ পেতে আরও কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে।
এ বছর জাটকা সংরক্ষণে মার্চ-এপ্রিল দুই মাস চাঁদপুর পদ্মা-মেঘনার ১শ’ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে ইলিশসহ সকল ধরনের মাছ আহরণ নিষিদ্ধ ছিল। ১ মে থেকে নিষেধাজ্ঞা শেষ হলেও এখনো ইলিশের রাজধানী নামে খ্যাত চাঁদপুর মাছঘাটে রূপালি ইলিশ উল্লেখযোগ্য পরিমান আমদানি হচ্ছে না। যে পরিমাণ ইলিশ আসছে তাও সাইজে ছোট এবং মূল্য অনেক বেশী।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চাঁদপুর


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ