Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ০৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

কেরালায় ২শ’ বছরের প্রাচীন ‘সামরিক’ মসজিদের পরিবেশবান্ধব ইফতার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ মে, ২০১৮, ১২:০০ এএম

রমজানের পবিত্র মাসে ভ্রাতৃত্ব এবং সৌহার্দ্য ভাগাভাগির চমৎকার গল্প পরিলক্ষিত হয়। যখন এটি কেরালা সম্পর্কে বলা হয় তখন তা হয় বিশেষ কিছু। এখানে গল্পের উৎসন হচ্ছে একটি মসজিদ। ত্রিবান্ধাম শহরে দুই শতাব্দী আগে সৈন্যদের জন্য নির্মিত হয়েছিল এ মসজিদ।
হিন্দু মন্দিরের সাথে এ মসজিদের সীমানা লাগালাগি অবস্থানে রয়েছে। এটি রাজকীয় সেনাবাহিনীর মুসলিম সদস্যদের জন্য ২০০ বছর আগে নির্মাণ করা হয়। কয়েক দশক ধরে বর্তমান কাঠামোয় রূপান্তরিত হবার পর থেকে এখানে ইফতার অনুষ্ঠানের আয়োজক করা হয়ে থাকে। এখানে যেমন মুসলিমরা ইফতারে শরিক হয় তেমনি আসেন অমুসলিম অতিথিরাও। ধর্মীয় বাধা উপেক্ষা করে স্থানীয় রাষ্ট্রীয় সচিবালয়ের কর্মী, ড্রাইভার, ব্যবসায়ী, ভ্রমণকারী এবং প্রান্তিক কর্মকর্তাদের সাথে স্থানীয় জনগোষ্ঠী, রমজান মাসের সন্ধ্যায় পালায়াম জুমা মসজিদে সমবেত হয়। প্রতিদিন এখানে ৯শ’ থেকে ১২শ’ জনের মতো মানুষের ইফতার আয়োজন করা হয়। এখানে মহিলাদের নামাযেরও বিশেষ ব্যবস্থা রয়েছে।
রেকর্ড উদ্ধৃত করে মসজিদের ইমাম মৌলভী ভিপি সুহাইব বলেন, ১৮১৩ সালে মসজিদ নির্মাণ করা হয় এবং সামাজিক ইফতার প্রথাটি অন্তত শতাব্দী প্রাচীন হতে পারে।
তিনি বলেন, মসজিদটি ১৮১৩ খ্রিস্টাব্দে নির্মিত হয়। ১৯৬০-এর দশকে বর্তমান কাঠামোয় পুনর্গঠন ও উন্নয়ন করা হয়।
তিনি বলেন, ‘আমরা ইফতারের সময় পরিবেশবান্ধব প্রোটোকলকেই অনুসরণ করি। আমরা খাবার পরিবেশনের সময় কোনো ধরনের প্লাস্টিকের পণ্য ব্যবহার করি না। আমরা সম্পূর্ণরূপে প্লাস্টিকের পণ্য এড়িয়ে শুধুমাত্র ইস্পাত পাত ব্যবহার করি।
ব্রিটিশ রাজকীয় বাহিনীর হিন্দু সদস্যদের জন্য এখানে মন্দির, খ্রিস্টান সদস্যদের জন্য গীর্জা এবং মুসলিম সৈন্যদের জন্য মসজিদ নির্মাণ করা হয়। পালায়াম শব্দের অর্থ স্থানীয় ভাষায় ক্যান্টনমেন্ট। জুমা মসজিদটিতে ভারতীয় লেখক কমলা দাসের কবর রয়েছে। তিনি ইসলাম গ্রহণ করেছিলেন এবং তার জীবনের বছরগুলিতে সুরাইয়াহা নাম গ্রহণ করেছিলেন। ২০০৯ সালে মারা যান তিনি। মসজিদের কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। সূত্র : পিটিআই।

প্রবাস জীবন বিভাগে সংবাদ পাঠানোর ঠিকানা
probashjibon.inqilab@gmail.com



 

Show all comments
  • মারুফ ২৭ মে, ২০১৮, ২:৪৭ এএম says : 0
    লেখাটি পড়ে খুব ভালো লাগলো
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর