Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০১৯, ০১ শ্রাবণ ১৪২৬, ১২ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

আল-কায়েদার বিবৃতি বিশ্বাসযোগ্য নয় -ডিএমপি

প্রকাশের সময় : ১০ এপ্রিল, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নাজিম উদ্দিন খুনের চার দিন পরেও ক্লু উদ্ধারে ব্যর্থ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। তবে স্পর্শকাতর এ হত্যা মামলার তদন্তে পুলিশের সন্দেহের তীর এখন নিহতের ব্যক্তিগত শত্রæতা ও উগ্রবাদী সংগঠনগুলোর দিকে। অপরদিকে এ হত্যাকাÐের দায় স্বীকার করে আল কায়েদার বিবৃতিকে বিশ্বাসযোগ্য নয় বলে দাবি করেছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ডিসি (মিডিয়া) মারুফ হোসেন সরদার।
গতকাল শনিবার দুপুরে ঢাকা ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে মারুফ হোসেন সরদার বলেন, নাজিমউদ্দিন হত্যাকাÐটি খুবই স্পর্শকাতর একটি বিষয়। প্রাথমিকভাবে আমরা উগ্রবাদী সংগঠন ও তার ব্যক্তিগত শত্রæতার বিষয়টি সামনে রেখে তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছি। এ হত্যার দায় স্বীকার করে সাইট ইন্টিলিজেন্স প্রকাশিত খবর বিষয়ে মারুফ হোসেন বলেন, অতীতেও যেসব হত্যাকাÐ হয়, এর সবক’টিরই দায় স্বীকার করে এ সাইটটি। কিন্তু পরে তদন্তে আমরা তাদের দাবির তেমন কোনো প্রমাণ পাইনি। নাজিম উদ্দিনের বিষয়টিও আমরা তদন্ত করছি। জঙ্গি তৎপরতা পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা সাইট ইন্টেলিজেন্স শুক্রবার নিজস্ব ওয়েবসাইটে এ দায় স্বীকারের খবর প্রকাশ করে। এতে আল-কায়েদার (একিউআইএস) বাংলাদেশ শাখা আনসার আল-ইসলাম দাবি করেছে, নাজিমুদ্দিন সামাদ তার ফেসবুক পাতায় আল্লাহ, নবী মোহাম্মদ ও ইসলামকে অবমামনা করায় প্রতিশোধ হিসেবে তাদের সদস্যরা এ হামলা চালিয়েছে।
এদিকে এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সূত্রাপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সমীর কুমার সূত্রধর গতরাতে ইনকিলাবকে বলেন, ওই সময় পর্যন্ত এ হত্যার মোটিভ উদঘাটন সম্ভব হয়নি। ইতিমধ্যে নিহতের গ্রামের বাড়ি সিলেটের বিয়ানীবাজারের কয়েকজন ঘনিষ্ঠ বন্ধুর সঙ্গে কথা বলা হয়েছে। তারা উল্লেখ করার মতো কিছু জানাতে পারেনি। নিহতের পরিবারের বেশিরভাগ সদস্যরা লন্ডন প্রবাসী হওয়ায় তারাও কিছু জানেন না। তবে ফেসবুকে ইসলাম বিরোধী লেখালেখির যে কথা বলা হয় সেগুলোও পরীক্ষা করে দেখা হয়েছে। সেখানে আপত্তিকর এমন কিছু দেখা যায়নি যে কারণে কোন জঙ্গী গোষ্ঠী তাকে হত্যা করতে পারে। অনেক আগে নাজিমের সঙ্গে একটি মেয়ের সম্পর্ক ছিলো। কিন্তু বর্তমানে সে সম্পর্ক নেই। তবে এ নিয়ে কোন ধরনের বিরোধ কিংবা কারো সঙ্গে শত্রæতা সৃষ্টি হয়নি। পুলিশের এ কর্মকর্তা বলেন, তদন্তের স্বার্থে ওই মেয়েটির সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা চলছে। উল্লেখ্য, গত বুধবার রাত ৯টার দিকে রাজধানীর সূত্রাপুরের একরামপুরে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সান্ধ্যকালীন কোর্সের ছাত্র (২৭) নাজিম উদ্দিন সামাদকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে সূত্রাপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ