Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৭ আশ্বিন ১৪২৫, ১১ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

ওয়ানএমডিবির তহবিল উদ্ধারে মালয়েশিয়া সিঙ্গাপুর জোট

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ জুন, ২০১৮, ২:০৯ পিএম

রাষ্ট্রীয় উন্নয়ন তহবিল ওয়ানএমডিবির পাচার হওয়া অর্থ ফেরত আনতে একসঙ্গে কাজ করছে মালয়েশিয়া ও সিঙ্গাপুর।
ওয়ানএমডিবি তহবিল কেলেঙ্কারির সঙ্গে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে বলে মনে করা হয়। এ নিয়ে তদন্ত প্রতিবেশী দেশ সিঙ্গাপুরের কর্মকর্তাদেরকে নিয়ে শুরু করেছে মালয়েশিয়ার টাস্কফোর্স।

নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর মাহাথির মোহাম্মদ আশা প্রকাশ করেন, পাচার হওয়া বেশিরভাগ অর্থ ফেরত আনা যাবে। ২০০৯ সালে মালয়েশিয়ার অর্থনীতির উন্নয়নে ওয়ানএমডিবি তহবিল গঠন করা হয়েছিল।

এতে ৩০০ কোটি ডলারের বেশি অর্থ ছিল। এ তহবিলের মাধ্যমে কুয়ালালামপুরকে বিশ্ব অর্থনীতির কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত করার পাশাপাশি কৌশলগত বিনিয়োগের মাধ্যমে দেশের অর্থনীতি গতিশীল করার পরিকল্পনা করা হয়েছিল।

ওই তহবিলের অর্থ আত্মসাতের মাধ্যমে মালয়েশীয়দের প্রতারিত করা হচ্ছে, ২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃপক্ষ তাদের কাছে এ সংক্রান্ত তথ্য প্রমাণ থাকার কথা জানিয়ে অন্তত ১০০ কোটি ডলারের সম্পদ জব্দ করার উদ্যোগ নেয়।

যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল কোর্টে এ সংক্রান্ত একটি মামলাও হয়। মার্কিন বিচার বিভাগের করা ওই মামলার কাগজপত্রে মালয়েশিয়ার সদ্য সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের নাম উল্লেখ না করে মালয়েশিয়া অফিসিয়াল ওয়ান বলা হয়।

ততদিনে অর্থ কেলেংকারিতে মালয়েশিয়াও নাজিবের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়ে গেছে। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি ওয়ানএমডিবি তহবিল থেকে ৭০ কোটি মার্কিন ডলারের বেশি অর্থ নিজের পকেটে পুরেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের ওয়ালস্ট্রিট জার্নাল ওই সময় এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। যদিও নাজিব শুরু থেকেই সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

রাজনীতি থেকে দীর্ঘ ১৫ বছরের বিরতির পর ৯২ বছর বয়সে আবারও দেশের হাল ধরা মাহাথির বলেন, ওয়ানএমডিবি তহবিলের বেশিরভাগ অর্থ আমরা ফেরত আনতে সক্ষম হব বলেই আমার বিশ্বাস। নাজিবের হয়ে কাজ করা সরকারি সংস্থাগুলোয় পরিবর্তন আসবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে মাহাথির বলেন, নির্দিষ্ট কয়েকজনের অবশ্যই পতন হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ