Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২১, ১১ মাঘ ১৪২৭, ১১ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

এমপিওভুক্তির জন্য বাজেটে অর্থ বরাদ্দ থাকছে

| প্রকাশের সময় : ৫ জুন, ২০১৮, ১২:০০ এএম

অর্থনৈতিক রিপোর্টার : ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার জন্য অর্থ বরাদ্দ থাকছে। তবে বরাদ্দকৃত অর্থ শুধু শিক্ষকদের বেতন-ভাতা পরিশোধের জন্য দেওয়া হবে না। মোট বরাদ্দের বেশির ভাগ স্কুলের অবকাঠামো নির্মাণ বা উন্নয়নের জন্য ব্যয় করতে হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।
শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার বিষয়টি বাজেট বরাদ্দে অন্তর্ভুক্ত করা হলেও এ খাতে যা বরাদ্দ দেওয়া হবে, তার ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ শিক্ষকদের বেতন-ভাতা খাতে ব্যয় করা যাবে। অর্থাৎ যেনতেন ভাবে শিক্ষক নিয়োগ দেওয়ার সুযোগ থাকছে না। তবে ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ অর্থ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নির্মাণ এবং উন্নয়নের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হবে।
অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত আগামী ৭ জুন দুপুর সাড়ে ১২টায় জাতীয় সংসদের চলতি অধিবেশনে বর্তমান সরকারের অর্থমন্ত্রী হিসেবে টানা ১০ম বাজেট সংসদে উপস্থাপন করবেন। প্রতি অর্থবছরের বাজেটকে অর্থমন্ত্রী একটি শিরোনামে ভূষিত করে থাকেন। এবারের বাজেটের শিরোনাম হবে ‘সমৃদ্ধ আগামী : অগ্রযাত্রার বাংলাদেশ।’
এর আগে সকাল ১০টায় কেবিনেট বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে ২০১৭-১৮ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেট পাশ করা হবে। রোজার দিন এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাষ্ট্রীয় সফরে বিদেশ যাওয়ার কর্মসূচি থাকায় খুব সংক্ষিপ্ত আকারে বাজেট উপস্থাপন করবেন অর্থমন্ত্রী। পরের দিন ৮ জুন দুপুর আড়াইটায় বাজেট পরবর্তী সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে। ২৮ জুন সংসদে অর্থবিল পাশ হবে। ৩০ জুন ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট পাশ হবে।
সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে পরবর্তী জাতীয় সংসদ নির্বাচন। সে হিসেবে অর্থমন্ত্রীর বাজেট বাস্তবায়নের সময় পাওয়া যাবে মাত্র ছয় মাস। তবে তিনি পুরো অর্থবছরের বাজেটই জাতীয় সংসদে উপস্থাপন করবেন।
এ প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী বলেন, চলতি অর্থবছরের বাজেট বাস্তবায়নের জন্য মাত্রা ছয় মাস সময় পাওয়া যাবে। তবু নিয়ম রক্ষার জন্য আমি পুরো অর্থবছরের বাজেট দিয়ে যাবো। বর্তমান সরকারের মেয়াদ শেষে পরবর্তী নির্বাচনে সে দল সরকার গঠন করবে তারা ইচ্ছে করলে এ বাজেট অনুসরণ করতে পারে অথবা তাদের মত নতুন করে বাজেট প্রণয়ন করতে পারে।
তবে পরবর্তী নির্বাচনে বিপুল ভোটে জিতে আওয়ামী লীগই সরকার গঠন করবেন। এমন আশা-পোষণ করে প্রবীণ এই রাজনীতিবিদ মুহিত বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার দেশের বিপুল উন্নয়ন সাধন করেছে। দেশের উন্নয়নের জন্যই জনগণ বারবার আওয়ামী লীগকে ভোট দেবে। আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করে এই বাজেটই বাস্তবায়ন করবে।
অন্যান্য অর্থবছরের মত আগামী অর্থবছরের বাজেটেও শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বিদ্যুৎ খাত অগ্রাধিকার পাবে। তবে সরকারি কর্মচারীদের জন্য নতুন কোনো বার্তা আপাতত থাকছে না। তবে সার্বজনীন পেনশন ব্যবস্থা প্রবর্তনের যে ধারণা অর্থমন্ত্রী দিয়েছিলেন, তার একটি রূপরেখা তিনি দেবেন বলে জানা গেছে।
সরকারে রাজস্ব আয়ের অন্যতম খাত মূল্য সংযোজন কর-ভ্যাট আদায় নিয়ে নতুন ঘোষণা থাকছে। বর্তমানে ভ্যাটের একাধিক ¯ø্যাব রয়েছে। ভ্যাটের এই ¯ø্যাব কমিয়ে সর্বাধিক দুই থেকে তিনটি ¯ø্যাব করা হতে পারে। এছাড়াও আয়কর আদায়ের ক্ষেত্রে বেশকিছু জটিলতা রয়েছে। যেমন বর্তমানে কারো কাছ থেকে অতিরিক্ত আয়কর আদায় করা হলে তা ফেরত না দিয়ে পরবর্তী অর্থবছরে সমন্বয় করা হয়। এতে নানা ধরনের জটিলতার পাশাপাশি আয়কর দাতারা হয়রানির শিকার হন। আগামী অর্থবছরে কারো কাছ থেকে অতিরিক্ত আয়কর আদায় করা হলে তা নগদ ফেরত দেওয়ার ব্যবস্থা থাকবে। এজন্য বাজেটে এ খাতে বরাদ্দ দেওয়া হবে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন