Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬, ১৭ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।
শিরোনাম

সরকারি চাকরিজীবীদের লম্বা ছুটি হলো না

শবে কদরের ছুটি ১৩ জুন

| প্রকাশের সময় : ৬ জুন, ২০১৮, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : পবিত্র শব-ই-কদর উপলক্ষে নির্বাহী আদেশে সরকারি ছুটি ১২জুনের পরিবর্তে আগামী ১৩জুন পুন: নির্ধারণ করেছে সরকার। গতকাল মঙ্গলবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এ ছাড়া সরকারি কর্মচারীদের দাবি ছিল বৃহস্পতিবার সরকারী ছুটি ঘোষনা দেয়ার তা হয়নি।
জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো, দৌলতুজ্জামান খান স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, যে সকল অফিস সময় সূচি ও ছুটি তাদের নিজের আইন-কানুন দ্বা নিয়ন্ত্রত হয়ে থাকে অথবা যে সকল অফিস, সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানের চাকরি সরকার কতৃর্ক অত্যাবশ্যক চাকরি হিসেবে ঘোষনা করা হয়েছে সে ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট অফিস , সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান নিজস্ব আইন-কানুন অনুয়ায়ী জনস্বার্থে বিবেচনা করে এ ছুটি ঘোষনা করবে।
উল্লেখ কেলেন্ডার অনুয়ায়ী ১৭ মে রোজা হওয়ার কথা ছিল কিন্তু চাঁদ দেখা না যাওয়ার সেই রোজা ১৮ মে থেকে শুরু হয়। সেই অনুয়ায়ী পবিত্র শব-ই-কদরে সরকারি ছুটি ছিল ১২জুন। এখন তা পরিবর্তে ১৩জুন পুন: নির্ধারণ করা হয়।
আর দিন দশেক পরেই পবিত্র ঈদুল ফিতর। এবারের ঈদে সরকারি চাকুরিজীবীদের জন্য লম্বা ছুটি মিলছে না। গ্রামে গিয়ে পরিবার-পরিজন নিয়ে ঈদ উদযাপন নিয়ে অনেকেই আছেন শঙ্কায়। ঈদে সাধারণত তিন দিন সরকারি ছুটি পায় সরকারি চাকুরিজীবীরা। তবে রোজা পুরোপুরি ৩০টা হলে ছুটি একদিন বাড়ে। এবছর রোজা যদি ২৯টা হয় তবে এবার ঈদ হবে ১৬ জুন শনিবার। এ হিসেবে সাপ্তাহিক ছুটি বাদ দিলে ঈদের ছুটি মিলছে মাত্র একদিন ১৭ জুন রোববার। পরদিন ১৮ জুন থেকে যথারীতি আবারো সরকারি অফিসের কার্যক্রম শুরু হবে। এ নিয়ে মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরসহ সকল বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে ব্যাপক হতাশা। তাদের অনেকেই বলছেন, পরিবার-পরিজন নিয়ে গ্রামে ঈদের ছুটি কাটাতে চেয়েছিলাম তা আর হচ্ছে না। বিশেষ করে ঈদের সময়ে রাস্তা-ঘাটে যে যানজট হয় তাতে করে এতো অল্প সময়ে গ্রাম থেকে ফিরে কর্মস্থলে যোগ দেয়া সম্ভব নয়। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, রোজা শুরুর আগে বুদ্ধ পূর্ণিমা, মে দিবস ও শবেবরাতের সাথে সাপ্তাহিক ছুটি মিলিয়ে অনেকেই দীর্ঘ ৯ আবার কেউ ৬ দিন ছুটি কাটিয়েছিল। তবে এবার ঈদে ছুটি কম থাকায় সবার মন অনেকটাই খারাপ। আবার অনেকেই বলছেন, ওই ধরনের ছুটি ঈদে পেলে ভালো হতো। অন্যদিকে স্থানীয় সরকার বিভাগের এক কর্মকর্তা জানান, ঈদের ছুটি নিয়ে কোনো আলোচনা হয়নি। স্বাভাবিক ছুটি হিসেবে ঈদের ছুটি থাকবে বলে জানান তিনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ছুটি

১ মে, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ