Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ০২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

সব ধর্মবিশ্বাসীকে একসূত্রে গেঁথেছে ইস্তাম্বুলের ইফতার

| প্রকাশের সময় : ৭ জুন, ২০১৮, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : ‘এটা একট অবিশ্বাস্য দৃশ্য’ বলে তার উচ্ছ¡াস প্রকাশ করলেন ইসাক হালেভা। তিনি বসে রয়েছেন ইস্তাম্বুলের একটি প্রসিদ্ধ তাকসিম স্কয়ারে মুসলিম মুফতী, খ্রিস্টান বিশপের পাশে। ইফতারে সবার সঙ্গে দাওয়াত দেওয়া হয়েছে ইহুদী রাবাইকেও। ইফতারের আয়োজন করেছে বেওগলু মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন। তাকসিম স্কয়ারের অবস্থান এই পৌর এলাকাতেই। ধর্মীয় তথা আদর্শগত মতপার্থক্যের কারণে কেউ আজ খ্রিস্টান, কেউ ইহুদী আর কেউ মুসলিম। কিন্তু ইফতার আয়োজন সকলকে একসূত্রে গেঁথে দিয়েছে।
ইসলাম ছাড়াও অন্যান্য ধর্মের কেন্দ্রভূমি ইস্তাম্বুলের পথ রমাযানে প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে ইফতার আয়োজনের কারণে। তুরস্কের জনবহুল শহরের রাস্তায় স্থাপিত ইফতার টেবিলে এসে বসেন আশপাশের প্রতিবেশী এমনকি পথচারীরাও। খেজুর বা সুপেয় পানি দিয়ে তারা ইফতার খোলেন। স্থানীয় একটি ফ্ল্যাটে তৈরি করা হয় রুটি আর এ ইফতার আয়োজনে অর্থ যোগান দেয় স্থানীয় পৌরসভা। যে কেউ এ ইফতারে শরিক হতে পারেন।
রাবাই হ্যালেভা বলেন, ‘এটা একটা বিশাল ব্যাপার যে, সব ধর্মের মানুষ একসাথে বসে তাঁর দয়ার জন্য আল্লাহ তাআ‘লার প্রতি শুকরিয়া জানায়। এটা সমগ্র বিশ্বের জন্য একটা বার্তা দেয়। আমরা এখানে আমাদের সাথে ফেরেশতাদের উপস্থিতি অনুভব করতে পারি’।
এ ইফতারে আরো ছিলেন স্থানীয় খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দ এবং ইস্তাম্বুলভিত্তিক বিভিন্ন কূটনৈতিক মিশনের সদস্যরা। মুফতী সাহেব সবাইকে নিয়ে দোয়া করেন।
খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি ইউসুফ সেটিন বলেন, “প্রভু আমাদের কাছে আশা করেন যে, আমরা প্রত্যেকে একে অপরের সহযোগিতায় ধৈর্য ও সহিষ্ণুতার সাথে এগিয়ে আসব। ভালোবাস ছাড়া আপনি ধৈর্য প্রদর্শন করতে পারবেন না। আমি প্রভুর নিকট প্রার্থনা করি, প্রভু যেন আমাদের এই ধৈর্যের মাসে একজনকে অপর জনের কাছাকাছি নিয়ে আসেন।”
তাকসিম স্কয়ার ছাড়াও আরেকটি নামকরা শহর সুলতান আহমেত এলাকায়ও এ ধরনের ইফতারের আয়োজন করা হয়। স্থানীয় মেয়র বলেন, দেশটি ছিল এবং থাকবে ধর্মীয় বিভিন্ন ধর্মাবলম্বী ভাইবোনদের লালনভূমি। এখানে যেরূপ সব ধর্মের মানুষ অবস্থান করছেন দেশটিও থাকবে বিভিন্ন ধর্মের মানুষের শান্তির আবাস। এই ইফতার টেবিল মানবতার এক মরুদ্যানের মতো। সূত্র : আনাদলু।

 

প্রবাস জীবন বিভাগে সংবাদ পাঠানোর ঠিকানা
probashjibon.inqilab@gmail.com



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর