Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১১ কার্তিক ১৪২৭, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

ধর্মঘটে জুটমিল শ্রমিকদের খোরা মিছিল আজ খুলনার রাজপথ-রেলপথ অবরোধ শুরু

প্রকাশের সময় : ১১ এপ্রিল, ২০১৬, ১২:০০ এএম

বিশেষ সংবাদদাতা, খুলনা : বকেয়া মজুরি পরিশোধ, পাটখাতে প্রয়োজনীয় অর্থবরাদ্দসহ পাঁচ দফা দাবিতে খুলনাঞ্চলের সরকারি সাত জুট মিলে শ্রমিকদের ধর্মঘট চলছে। ধর্মঘটের কারণে মিলগুলো অচল হয়ে পড়েছে। মিলের উৎপাদন বন্ধ থাকায় বড় ধরনে লোকসানে পড়ার শঙ্কা রয়েছে সংশ্লিষ্টরা। এদিকে, ধর্মঘটের ৬ষ্ঠ দিনে গতকাল রোববার সকাল ১০টায় খুলনা মহানগরীর খালিশপুর ও আটরা শিল্পাঞ্চলে খোরা মিছিল করেছে জুটমিল শ্রমিকরা। মিছিলে শ্রমিকদের হাতে থালা-বাসন ও পড়নে ছিড়া গেঞ্জি, শার্ট, পাঞ্জাবী পরিহিত ছিল।
বাংলাদেশ রাষ্ট্রায়ত্ত জুট মিল সিবিএ-ননসিবিএ ঐক্য পরিষদের ডাকে ৪ এপ্রিল থেকে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট পালন করছে শ্রমিকরা। শুক্রবার একদিন সাপ্তাহিক ছুটির পর শনিবার থেকে ফের ধর্মঘটে নামে শ্রমিকরা। দাবি আদায়ের আল্টিমেটাম শেষে আজ সোমবার থেকে আবারো খুলনার রাজপথ-রেলপথ অবরোধে নামছে শ্রমিকরা।
পাঁচ দফার মধ্যে রয়েছে পাটখাতে প্রযোজনীয় অর্থ বরাদ্দ, শ্রমিকদের বকেয়া মজুরী প্রদান, মজুরী কমিশন বাস্তাবায়ন, মহার্ঘ ভাতা প্রদান, আলীম জুট মিল ব্যক্তিমারিকানায় হস্তান্তর প্রক্রিয়া বাতিল।
চলমান আন্দোলন কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছে, খুলনার খালিশপুরের প্লাটিনাম ও ক্রিসেন্ট জুট মিল, দিঘলিয়ার স্টার জুট মিল, আটরা শিল্প এলাকার ইস্টার্ন ও আলিম জুট মিল এবং যশোর নওয়াপাড়া রাজঘাট এলাকার যশোর জুট মিল লিমিটেড (জেজে আই) ও কার্পেটিং জুট মিল।
বাংলাদেশ রাষ্ট্রায়ত্ত জুট মিল সিবিএ-ননসিবিএ ঐক্য পরিষদের আহŸায়ক মোঃ সোহরাব হোসেন জানান, শ্রমিকদের বিষয়ে কেউ চিন্তা করে না। শ্রমিকরা আজ অবহেলিত। দীর্ঘদিন ধরে মজুরি না পেয়ে শ্রমিকদের পেটে ভাত নেই। ছেলে মেয়েদের মুখে খাবার তুলে দিতে হিমসিম খেতে হচ্ছে। সামনে নতুন বছর। পহেলা বৈশাখে সরকারি চাকুরীজীবীদের বৈশাখী ভাতা প্রদান করা হচ্ছে। তারা ইলিশ মাছ কিনে খাবে। অথচ শ্রমিকরা সরকারি জুট মিলে কাজ করে আজ একই সময়ে দাবি আদায়ে ভুখা পেটে আন্দোলন করছে। তারই অংশ হিসেবে রোববার সকালে থানা-বাসন নিয়ে খোরা মিছিল করা হয়।
বাংলাদেশ রাষ্ট্রায়ত্ত জুট মিল সিবিএ-ননসিবিএ ঐক্য পরিষদের যুগ্ম আহŸায়ক মোঃ খলিলুর রহমান জানান, ৪ এপ্রিল থেকে লাগাতার ধর্মঘট পালন করে আসছি। সেই সাথে তিনদিন রাজপথ ও রেলপথ অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছি। জেলা প্রশাসকের অনুরোধে তিন দিনের জন্য অবরোধ কর্মসূচি স্থগিত করা হয়। তবে, এখনও পর্যন্ত শ্রমিকদের বিষয়ে কোন সঠিক সমাধান আসেনি। এছাড়া আজ রোববারের মধ্যে শ্রমিকদের দাবি বিষয়ে সুষ্ঠ কোন সমাধান না আসলে (আজ) সোমবার থেকে প্রতিদিন ১৬ ঘন্টা করে কঠোরভাবে রাজপথ ও রেলপথ অবরোধ কর্মসূচি পালন করা হবে। ভুখা মিছিলে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ রাষ্ট্রায়ত্ত জুট মিল সিবিএ-ননসিবিএ ঐক্য পরিষদের আহŸায়ক মোঃ সোহরাব হোসেন, মোঃ শাহ আলম, এস এম জাকির হোসেন, দীন ইসলাম, কাওছার আলী মৃধা, মোঃ আলাউদ্দিন, খলিলুর রহমান, মোঃ আব্দুস সালাম জমাদ্দার, আঃ রশিদ, বেল্লাল মল্লিক, আঃ মান্নান, শাহানা শারমিন ও আবুল কালাম জিয়া প্রমুখ।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ধর্মঘটে জুটমিল শ্রমিকদের খোরা মিছিল আজ খুলনার রাজপথ-রেলপথ অবরোধ শুরু
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ