Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫, ১৫ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

শিক্ষার্থীদের সওমের মাহাত্ব্য শেখাচ্ছে মিনেসোটার স্কুল

প্রকাশের সময় : ১১ জুন, ২০১৮, ১২:০০ এএম | আপডেট : ১২:০৭ এএম, ১১ জুন, ২০১৮

ইনকিলাব ডেস্ক : বিশ্বের সব প্রান্তের মুসলিমরাই সওম পালন করছেন। তবে কিছু মুসলিম সঙ্গত কারণে আর কিছু মুসলিম অবহেলার কারণে সওম পালন থেকে বিরত থাকছেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মুসলিমদের ১০ জনের মধ্যে ৮ জনই সওম পালন করছেন বলে জরিপের ফলাফল জানিয়েছে পিউ রিসার্চ সেন্টার। মিনেসোটা পাবলিক রেডিও (এমপিআর)-এর প্রতিবেদক ব্রান্ট উইলিয়ামস শিকাগোর ইন্টারফেইথ ইয়ূথ কোরের স্টুডেন্ট লিডারশিপের ডিরেক্টর জেহান মোহাজির এবং ইসলাম বিষয়ে মানুষের মাঝে থাকা ভুল ধারণা দূরীকরণের ওপর আলোচক হানাদি শিহাবুদ্দীনের সঙ্গে কথা বলে সওমের কিছু মৌলিক বিষয় নিয়ে ধারণা পেয়েছেন।
এমপিআর প্রতিবেদক বলেন, ‘রমজানে সওম পালন করার অনেকগুলো উপকারিতা রয়েছে। এর একটি হচ্ছে, ক্ষুধার্ত ও পিপাসার্ত থেকে গরীব ও অভাবী মানুষের দুঃখ-কষ্ট অনুভব করা যায়। আরেকটি হচ্ছে, প্রতিহিংসা দমন করা যাতে আধ্যাত্মিক জীবনে মনোনিবেশ করা যায়। তবে তিনি মিস শিহাবুদ্দীনের নিকট থেকে জেনেছেন, সওমের পেছনে যে কারণটি সবচেয়ে বড় তা হচ্ছে আল্লাহর নির্দেশ। কারণ, আল্লাহই তার অনুগত বান্দাকে তার সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে সওম পালনের নির্দেশ দিয়েছেন।
আল-আমাল স্কুল মিনেসোটার মুসলিমদের অন্যতম প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠানটি রমজানে আর ১১ মাসের চেয়ে ভিন্ন রুটিনে চলে। ক্লাসের সময় পরিবর্তন করা হয় এবং ঘণ্টাও কমানো হয়। শিক্ষার্থীদের অধিকাংশই সওম পালন করে না। তবে তারা বড় হয়ে সওম পালন করার জন্য আকুল। প্রতিষ্ঠানটির মুসলিম শিক্ষার্থীদের পরিচালক ওমর আলী বলেন, আমরা আমাদের সময় পরিবর্তন করেছি, কারণ এ মাসে লাঞ্চের প্রয়োজন নেই। তিনি বলেন, শিশু শিক্ষার্থীদের জন্য সওম পালন বাধ্যতামূলক নয়। তবে মধ্য ও উচ্চ পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা তাদের অভিভাবকের কাছ সওম পালনের জন্য আর্জি জানায়।
‘আমি এখনও সওম পালন করছি না, কিন্তু তবে সওম পালন করতে পারলে আমি খুব খুশী হতাম। আমার আল্লাহ সওম পালন করতে বলেছেন’ -বলছিল ষষ্ঠ গ্রেডের শিক্ষার্থী মুমিনা মোহাম্মদ। সে জানায়, সুবহে সাদিক থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত পানাহার ত্যাগের চেয়ে সওম অনেক বড় ব্যাপার। ‘রমজান এমন একটা মাস যেখানে আপনি আপনার চরিত্রকে সংশোধন করতে পারবেন এবং বিশেষত আপনি অশ্লীল ভাষা প্রয়োগ, মন্দ কাজ অথবা অধিক টিভি দেখা নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। আপনার মধ্যে জাগ্রত হবে ধৈর্য, দয়া এবং মানুষের প্রতি উদারতা’ বলেন মুমিনা।
নবম গ্রেডের ইকরাম ওমর বলেন, সওম ভাগ্যাহতদের প্রতি সহমর্মিতা প্রদর্শনের শিক্ষা দেয়। ‘সওমের সবচেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে গরীব ও ধনিকে এক কাতারে এনে দাঁড় করায়। আমরা অনুভব করতে পারি সিরিয়া ও সোমালিয়ার মুসলিমরা কত কষ্ট ভোগ করেন। তারা প্রতিটি দিন যায় ক্ষুধার্ত অবস্থায়’-বলেন ওমর।
আলী বিশ্বাস করেন, কোন বিষয়টিতে শিক্ষার্থীদের বেশি মনোযোগ দেয়া প্রয়োজন সেটা শেক্ষায় রমাযান মাস।
‘তাদের আরো ইতিবাচক, আরো মনোযোগী, অপরের প্রতি আলো ইতিবাচক হতে শেখায়। এটা সত্যিই তাদের ওপর ভাল প্রভাব ফেলে; - বলেন আলী।
১০ম গ্রেডের আইয়ুব দাউদ সবচেয়ে ভাল ব্যক্তি হতে চায় যা হতে সাহায্য করে রমজান।
‘আমি একটি ভাল মানুষ, ভাল ব্যক্তি হতে চাই’- দাউদ বলেছিলেন। ‘আমি মানুষকে আরও সামগ্রিকভাবে সাহায্য করতে চাই। এটা আত্ম উন্নতির একমাত্র মাস’।
মিনেসোটা মুসলমানরা দিনে প্রায় ১৭ ঘণ্টা সওম পালন করছেন, কুরআন তেলাওয়াত করছেন, দু‘আ করছেন এবং দুঃস্থদের দান-খয়রাত করছেন। আমরা যেসব শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলেছি, তারা বলেছে, রমজান তাদের মধ্যে সামাজিকতার শক্তিশালী অনুভূতি তৈরি করে। সূত্র : সিবিএস মিনেসোটা।


‘দেশের মানুষ শান্তিতে নাই’Ñউলিপুরে এরশাদ
শফিকুল ইসলাম বেবু, কুড়িগ্রাম থেকে : ‘দেশের মানুষ শান্তিতে নাই। যুব সমাজ শান্তিতে নাই। মাদকে সব আচ্ছন্ন করে ফেলেছে। পরিবর্তন চায় মানুষ। সুশাসন দেখতে চায় মানুষ। সুশাসন দিতে পারে একমাত্র জাতীয় পার্টি।’ গতকাল রোববার দুপুরে কুড়িগ্রামের উলিপুর স্টেডিয়ামে এক জনসভায় জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, আমাদের বেলায় মাদক ছিল না। মানুষ খুন হয় নাই। আমরা মানুষকে শান্তি দিয়েছি। আমাদের বেলায় দুর্নীতির কথা ছিল না। এই হাসিনার আমলে আমাদের জয়ের যাত্রা শুরু হোক। জাতীয় পার্টির জয়যাত্রা শুরু হোক।
উলিপুর স্টেডিয়াম মাঠে উপজেলা জাতীয় পার্টির উদ্যোগে জনসভা অনুষ্ঠিত হয়। উলিপুর জাতীয় পার্টির সভাপতি আতিয়ার রহমান মুন্সির সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের, মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় চীফ হুইপ তাজুল ইসলাম চৌধুরী। স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা, রংপুর সিটি কর্পোরেশন এর মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা এবং কুড়িগ্রাম-৩ আসনের জাতীয় পার্টির মনোনিত প্রার্থী ডা: আক্কাছ আলী সরকার প্রমুখ। উল্লেখ্য, কুড়িগ্রাম-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী মাঈদুল ইসলাম মুকুল অসুস্থ্যতাজনিত কারণে মৃত্যুর পর তার শূন্য আসনে উপ-নির্বাচনে অংশগ্রহন ও জাতীয় পার্টির মনোনিত প্রার্থীকে পরিচয় করিয়ে দেওয়া ও ভোট প্রার্থনার উদ্দেশ্যে এই সফর করেন।

 

প্রবাস জীবন বিভাগে সংবাদ পাঠানোর ঠিকানা
probashjibon.inqilab@gmail.com



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ