Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৩ পৌষ ১৪২৫, ৯ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী

সিরাজগঞ্জের সয়দাবাদ-এনায়েতপুর সড়ক যেন মরণ ফাঁদ

সিরাজগঞ্জ থেকে সৈয়দ শামীম শিরাজী | প্রকাশের সময় : ১২ জুন, ২০১৮, ১২:০০ এএম

সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম সয়দাবাদ-এনায়েতপুর সড়কের প্রায় ২০ কিলোমিটার রাস্তাটি এখন পথচারী ও যানবাহনের যাত্রীদের কাছে এক মরন ফাঁদে পরিনত হয়েছে। পুরো সড়ক জুড়ে সৃষ্টি হয়েছে ছোট বড় খানাখন্দের। আর ধীরগতির যানবাহনের জন্য ৭ বছর আগে বাইলেনের কাজ শুরু হলেও কাজ শেষ হয়নি এখনো। একারনে চলাচলের অনুপোযোগী এই সড়কটিতে প্রতিনিয়তই ঘটছে দুর্ঘটনা।
তবে সড়ক বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন চলতি মাসেই এটির টেন্ডার প্রক্রিয়া শুরু হবে। আর খুব দ্রæতই চলাচলে উপযোগী করার জন্য কাজ করা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন। তবে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের অভিযোগ সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডকে বাধাগ্রস্থ করতেই এই সড়কের কাজের এতো ধীরগতি।
জানা যায়, তাঁত শিল্প সমৃদ্ধ আর জনবহুল এনায়েতপুর, বেলকুচি ও চৌহালী উপজেলার প্রায় ১৩ লাখ মানুষের জেলা সদর ও রাজধানী ঢাকায় যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম এনায়েতপুর-সায়দাবাদ সড়ক। জনবহুল এই সড়কের খানাখন্দের দুর্ভোগ ও ধীরগতির যানবাহন চলাচল থেকে মুক্তি দিতে ২০১১ সালের ৯ এপ্রিল বাইলেনসহ প্রায় ২০ কিলোমিটারে রাস্তার নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর পাইলট প্রকল্পের আওতায় বাইলেনের কাজ শুরু করলেও ৭ বছর পার হতে চললেও সে কাজ এখনো শেষ করতে পারেনি সড়ক ও জনপথ বিভাগ। সড়কের যে অংশটুকু নির্মাণ করা হয়েছে তার অধিকাংশ স্থান বৃষ্টির পানিতে ধ্বসে ছোট বড় গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। আর সে কারনে প্রতিনিয়ত ছোট বড় দুর্ঘনার শিকার হচ্ছেন চলাচলকারী যাত্রী ও পথচারীরা।
ঈদের আগেই নতুনভাবে রাস্তাটি নির্মাণ করার আকুতি জানান যাত্রী সাধারণ, বাস-ট্রাক চালক ও পরিবহন মালিকেরা। তারা জানান, এনায়েতপুরপুর-সয়দাবাদ বাইলেন সড়ক নির্মাণ কাজ শেষ না হওয়ায় ও মুল সড়ক সংস্কার না করায় এখন মরন ফাঁদে পরিনত হয়েছে জনগুরুত্বপূর্ন এই সড়কটি। প্রতিদিনই ঘটছে ছোট বড় দুর্ঘটনা, সময়ও বেশি লাগে, সুস্থ মানুষকে অসুস্থ হতে হয়। মানুষের দুর্ভোগের কোন সীমা নেই। এ সড়কটির জন্য ঈদে ঘরমুখো মানুষের দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে।
তাঁতশিল্প প্রধান এই এলাকার অর্থনীতিকে সচল রাখতে দ্রুত সড়কটির সংস্কারে যথাপোযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানান -সচেতন মহল ও স্থানীয়রা। অন্যদিকে, সিরাজগঞ্জ সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী জানান, আগামী চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহেই এ সড়কের টেন্ডার আহবান করা হবে। তবে ঈদের আগে সাময়িক কাজ করে চলাচলের উপযোগী করা হবে বলে তিনি আশ্বাস দেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর