Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৫ জুন ২০১৮, ১১ আষাঢ় ১৪২৫, ১০ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী

সাটু‌রিয়ায় বেতন বোনাসের দাবিতে প্রশিকা কর্মী‌দের অনশন

স‌াটু‌রিয়া (মা‌নিকগঞ্জ) সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৩ জুন, ২০১৮, ২:৩১ পিএম

বকেয়া বেতন ভাতার দাবীতে অনশন কর্মসূচি পালন করছে মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলার ধানকোড়া ইউনিয়নের কৈট্টা প্রশিকা মানব সম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্রের শ্রমিকরা।
বুধবার সকাল থেকে প্রশিকা অফিসের সামনের অনশনের যোগ দেন সেখানকার শতাধিক শ্রমিক।
প্রশিকার কৈট্টা কেন্দ্রের আইডিবি শাখার স্টোর কিপার মিহির রঞ্জন রায় জানায়, ১৮ বছর যাবৎ তিনি প্রশিকায় কর্মরত রয়েছেন। গত ১৫ মাস যাবৎ তিনি কোন বেতন ও উৎসব বোনাস পাচ্ছে না। এতে করে এক ছেলে ও এক মেয়েকে নিয়ে অসহায়ভাবে দিনাতিপাত করছেন তিনি। ছেলে মেয়েদের পড়াশুনা বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়ে গেছে। এই অবস্থার পরিত্রান চান তিনি।
প্রশিকার সার্ভিসেস সুপারভাইজার আকতার হোসেন জানায়, প্রশিকার ওই চাকুরীর উপর নির্ভর করে তার সংসার জীবন। টাকা পয়সার অভাবে সন্তানদের পড়াশুনা বন্ধ হয়ে যাওয়ার পথে। অর্থনৈতিক অভাবের কারণে এইচ.এস.সি পরীক্ষায় বড় ছেলে ভালো ফলাফল করার পরেও তাকে মেডিকেল ভর্তি কোচিং করাতে না পারায় সেও মেডিকেলে পড়াশুনার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।
শ্রাবনী ধর নামে আরেক কর্মী জানায়, দীর্ঘ সময় ধরে তারা বেতন ভাতা থেকে বঞ্চিত। বিষয়টিকে কেন্দ্র করে এর আগেও আন্দোলন, মানববন্ধন, ও অনশন পালন করেও কোন ফলাফল আসেনি। এতে করে প্রশিকার শতাধিক কর্মীর ঈদ আনন্দ নেই বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
প্রশিকা মানব সম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্রের জেনারেল ম্যানেজার শহিদুল ইসলাম জানায়, এক বছর দুই মাস আগে বেতন ভাতার দাবি নিয়ে আন্দোলন করে ওই শ্রমিকেরা অফিস থেকে বের হয়ে যায়। পরে অনেক চেষ্টার পরেও তারা আর কাজে যোগদান না করায় নতুন করে শ্রমিক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। হুট করে তারা প্রশিকায় প্রবেশ করে অনশনের মাধ্যমে প্রশিকার সম্মান ক্ষুন্ন করার চেষ্টা করছে।
সাটুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি ) জানায়, প্রশিকায় শ্রমিকদের অনশনের খবর পেয়ে থানা থেকে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। আইন শৃঙ্খলার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে।

 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

fifa-worldcup-2018