Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৫ জুন ২০১৮, ১১ আষাঢ় ১৪২৫, ১০ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী

ঈদের কেনাকাটা : শেষ মহূর্তে আতর টুপি জায়নামাজ কেনার ধুম

তারিক ইমন | প্রকাশের সময় : ১৩ জুন, ২০১৮, ৫:৪৯ পিএম

ঈদের কেনাকাটার শেষ মহুর্তে রাজধানীসহ সারাদেশের বাজারগুলোতে আতর, টুপি ও জায়নামাজ কেনার ধুম পড়েছে। নতুন পায়জামা পাঞ্জাবির সাথে পুরনো টুপি যেন বেজায় বেমানান। আর যুগযুগ ধরে চালে আসছে বাহারি সুগন্ধের আতরের ব্যবহার। জায়নামাজটাই বা নতুন না হলে কেমন হয়। আর তাই ঈদের সাজ ও প্রস্তুতিকে পরিপূর্ণ করতে ক্রেতারা এখন ভীর জমাচ্ছেন আতর টুপি ও জায়নামাজের দোকান গুলোতে। সে কারণে ছোট ছোট দোকানগুলোতে এখন ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড়। বুধবার রাজধানীর বায়তুল মোকাররম মসজিদের পাশে আতর ও টুপির দোকানগুলোতে ভিড়ের ঠেলায় যেন হাঁটার জো নেই। দোকানিদেরও যেন ফুসরত নেই কথা বলার। স্বল্প কথায় বেশি বিক্রির প্রবণতাই দেখা গেল বেশি। নতুন টুপি ও আতরের সঙ্গে অনেকে কিনে নিচ্ছেন পছন্দ মতো জায়নামাজ ও সুরমা।
বিক্রেতারা বলছেন এবার আকর্ষণীয় নকশি আর নানা কারুকাজে সুসজ্জিত টুপির প্রতি ক্রেতাদের আকর্ষণ বেশি। দেশি টুপির নকশি ও কারুকাজের মান ভালো হওয়ায় এবার বিদেশি টুপির চেয়ে দেশি টুপি বেশি বিক্রি হচ্ছে। তবে মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ওমান ও পাকিস্তানের টুপির প্রতি ক্রেতাদের আগ্রহ অনেক। মাইনুদ্দিন নামে এক বিক্রেতা ইনকিলাবকে বলেন, আমাদের এখানে ৫০ টাকা থেকে শুরু করে হাজার টাকা দামের পর্যন্ত টুপি আছে। তবে ১০০-২০০ টাকা দামের টুপি বেশি বিক্রি হচ্ছে।
বিক্রেতারাও বিভিন্ন দোকান ঘুরে খুঁজছেন বাহারি ডিজাইনের বিভিন্ন সাইজের টুপি। টুপি কিনতে আসা আমিনুল ইসলাম নামে এক পেশাজীবি ইনকিলাবকে বলেন, টুপি হচ্ছে আমাদের প্রিয় রাসূল (সাঃ) এর সুন্নত। তাছাড়া ঈদের দিনে নতুন পাঞ্জাবির সঙ্গে নতুন টুপি না থাকলে খুব বেমানান লাগে। তাই বায়তুল মোকাররমের সামনে টুপি কিনতে আসা। নবীর সুন্নত হিসেবে সুগন্ধী আতর কেনারও ইচ্ছা রয়েছে।
এদিকে যেন দম ফেলার সুযোগ নেই আতর বিক্রেতাদের। বায়তুল মোকাররম মসজিদের পাশে আতর দোকানদারদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ২৫ রমজানের পর থেকেই থেকে আতর ও টুপি বিক্রির পরিমাণ বেড়েছে। সারা বাছর ২ টি সময়য়েই সব থেে বেশি আতর বিক্রি হয়। আর তা হচ্ছে দুই ঈদে। বাজারে ক্রেতা অনেক থাকায় বেশি দর কষাকষির সুযোগ দেয়া যায় না। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই এক দামে বিক্রি করা হচ্ছে। আতর কেনার ক্ষেত্রে ক্রেতাদের চাহিদা ২০০ থেকে ৩০০ টাকার মধ্যেই বেশি। তবে কেউ কেউ চার পাঁচ হাজার টাকা দামের আতরও কেনেন। দেশের তৈরি আতরের মধ্যে রয়েছে শাহী দরবার, আলিফ, মারজান, বিলকিস, জেসমিন, রজনী, মদিনা ইত্যাদি। এসব আতরের দাম ৫০ থেকে ১৫০ টাকার মধ্যে। এ আতরগুলোই বেশি বিক্রি হচ্ছে। তবে বিদেশি আতরও বিক্রি হচ্ছে।
এছাড়া ঈদের নামাজের প্রস্তুতিকে পরিপূর্ণ করতে আতর, টুপির পাশাপশি জায়নামাজ কেনার ধুম লক্ষ করা গেছে। রাজধানীর বায়তুল মোকাররম সহ বিভিন্ন মার্কেটগুলোতে বিক্রি হচ্ছে দেশি বিদেশী বিভিন্ন ব্র্যান্ডের জায়নামাজ। যার দাম ২০০ টাকা থেকে শুরু করে বিক্রি হচ্ছে কয়েক হাজার টাকা পর্যন্ত।

 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
fifa-worldcup-2018
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ