Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ০৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

চট্টগ্রামে জাকাত দান-সদকা বিতরণে মাহে রমজানের ভিন্ন আমেজ

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৪ জুন, ২০১৮, ১২:০০ এএম

যথাযথ ধর্মীয় মর্যাদায় ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা ইবাদত বন্দেগী ও জিকির-আজকারের মধ্যদিয়ে পবিত্র লাইলাতুল কদর পালনের পর এবার বন্দরনগরীসহ বৃহত্তর চট্টগ্রামে জাকাত, দান-সদকা বিতরণে মাহে রমজানে ভিন্ন আমেজ সৃষ্টি হয়েছে। রোজাদার বিত্তবান ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা অভাবী, গরীব ও দুস্থ মানুষের মাঝে জাকাত, দান-সদকা বিতরণ শুরু করেছেন। প্রতিবছরের ন্যায় এবারও বন্দরনগরীর বনেদী পরিবার, ব্যবসায়ী, শিল্প প্রতিষ্ঠান ও কল-কারখানার মালিকরা দান-সদকার পাশাপাশি গরীব, দুস্থ ও অসহায় পরিবারের মাঝে জাকাতের কাপড়, শাড়ি, লুঙ্গিসহ বিভিন্ন ঈদ সামগ্রী বিতরণ করছেন। জনপ্রতিনিধিরাও তাদের নিজ নিজ এলাকায় জাকাতের কাপড়, ঈদ সামগ্রী বিতরণ করছেন পাশাপাশি বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, মসজিদ, মাদরাসা, এতিমখানায়ও দান-সদকা করছেন। গতকাল (বুধবার) চট্টগ্রাম মহানগরীতে বনেদী পরিবারগুলোর বাড়ির সামনে, শিল্প প্রতিষ্ঠান ও কল-কারখানার সামনে এবং এসব প্রতিষ্ঠানের মালিকের বাড়ির সামনে গরীব, দুস্থ নারী-পুরুষের জটলা দেখা গেছে। এসব ব্যক্তি প্রতিষ্ঠানের মালিকরা তাদের সাধ্যের মধ্যে দান-সদকা ও জাকাত প্রদান করছেন। এছাড়া ধর্মপ্রাণ সচ্ছল প্রত্যেক মুসলমান ঈদুল ফিতরের দিন গরীব, দুস্থ ও মিসকীনদেরকে নির্ধারিত পরিমাণ ফিতরাও দেবেন।
এদিকে পবিত্র কোরআনে প্রত্যেকের নিজস্ব সম্পদ থেকে আটটি খাতে জাকাত প্রদানের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। প্রথম খাত ঃ ফকির- যার নিসাব পরিমাণ সম্পদ নেই। যেসকল স্বল্প সামর্থ্যরে দরিদ্র মুসলমান যথাসাধ্য চেষ্টা করা সত্তেও দৈহিক অক্ষমতাহেতু ন্যায়সঙ্গত প্রয়োজন মেটাতে পারেনা তারাই ফকির। তাদের জাকাত দেয়ার কথা বলা হয়েছে। দ্বিতীয় খাত ঃ মিসকীন- মিসকীন সেই ব্যক্তি যার কিছুই নেই, যার কাছে একবেলা খাবার নেই। তৃতীয় খাত ঃ ইসলামী সরকারের পক্ষে লোকদের কাছ থেকে জাকাত, উশর প্রভৃতি আদায় করে বায়তুল মালে জমা প্রদান, সংরক্ষণ ও বণ্টন কাজে নিয়োজিত ব্যক্তিবর্গ।
চতুর্থ খাত ঃ নতুন মুসলিম- যার ঈমান এখনও পরিপক্ক হয়নি অথবা ইসলাম গ্রহণ করতে ইচ্ছুক অমুসলিম। পঞ্চম খাত ঃ বন্দী মুক্তি-অন্যায়ভাবে কোন নিঃস্ব ও অসহায় ব্যক্তি বন্দি হলে তাকেও মুক্ত করার জন্য জাকাতের অর্থ ব্যয় করা যাবে। ষষ্ঠ খাত ঃ ঋণগ্রস্ত ব্যক্তি। সপ্তম খাত ঃ আল্লাহর পথে- সম্বলহীন মুজাহিদের যুদ্ধাস্ত্র/ সরঞ্জাম উপকরণ সংগ্রহ এবং নিঃস্ব ও অসহায় গরীব দ্বীনি শিক্ষারত শিক্ষার্থীকে এ খাত থেকে জাকাত প্রদান করা যাবে। অষ্টম খাত ঃ অসহায় মুসাফির- যে সমস্ত মুসাফির অর্থকষ্টে নিপতিত তাদের মৌলিক প্রয়োজন পূরণ এবং বাড়ি ফিরে আসতে পারে এমন পরিমাণ অর্থ জাকাত থেকে প্রদান করা যায়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর