Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ০২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

১২ দিনের মতো খোলা আকাশের নিচে শিক্ষকরা

স্পিকার ও সংসদ সদস্যদের নিকট স্মারকলিপি প্রদান

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২১ জুন, ২০১৮, ৬:২১ পিএম

রোদ-বৃষ্টি উপেক্ষা করে এমপিকরণের দাবিতে টানা ১২ দিনের মতো জাতীয় প্রেস ক্লাবের বিপরীত পাশে অবস্থান করছেন নন-এমপিও শিক্ষক কর্মচারীরা। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই এখানে অবস্থান নিয়ে বিভিন্ন স্লোগান দিয়ে বিক্ষোভ করেন তারা। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ি সকাল ১০টায় থেকে তিনজন শিক্ষকের একটি প্রতিনিধি দল স্পিকার, ডেপুটি-স্পিকার এবং সকল জাতীয় সংসদ সদস্যদের স্মারকলিপি প্রদান করেন। আন্দোলনে প্রতিদিন বিভিন্ন জেলা থেকে শিক্ষক-কর্মচারীরা (স্কুল-কলেজ-মাদরাসা) যোগ দিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন শিক্ষকরা। আন্দোলন থেকে ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’ ‘এমপিও না দিলে বাড়ি ফিরে যাবো না’; ‘একদফা দফা এক দাবি এমপিওভুক্তিকরণ চাই’; ইত্যাদি বিভিন্ন লেখা সংবলিত প্লেকার্ড হাতে স্লোগানে প্রেস ক্লাব এলাকা জুড়ে উত্তাল হয়ে উঠে।

শিক্ষক নেতৃবৃন্দ বলেন, প্রহসনমুলক এমপিওভুক্তির নীতিমালা স্থগিত করে দ্রুত প্রধানমন্ত্রীর সকল স্বীকৃতিপ্রাপ্ত নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির কার্যকরি ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে সকল নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারী অবস্থানে যোগ দেবে। শুধু তাই নয় এ সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে উপকার ভোগি শিক্ষার্থী অভিভাবকসহ, দেশের সুশিল সমাজ আমাদের সাথে যোগ দেবে। এমনকি বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়–য়া ছাত্র-ছাত্রীরা অবস্থান স্থলে যোগ দেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে। এতে করে পরিস্থিতি অন্যরকম হলে, তার দ্বায়-দায়িত্ব সরকারকেই বহন করতে হবে।
শিক্ষামন্ত্রকে উদ্দেশ্য করে শিক্ষকরা বলেন, দীর্ঘ ৭ বছর ধরে আপনি বলে এসেছেন বাজেটে এমপিওভুক্তির খাতে অর্থপ্রাপ্তি স্বাপেক্ষে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হবে। কিন্তু এখন বলছেন বাজেটে অর্থ না থাকলেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তি করা হবে। আপনার এধরনের স্ববিরোধি বক্তব্য শিক্ষকরা প্রত্যাখ্যান করেছেন এবং তিব্র নিন্দা জানিয়েছেন।
উল্লেখ্য, এমপিওভুক্তির দাবিতে নন-এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে লাগাতার কর্মসূচি শুরু করেন। টানা ওই অবস্থান ও অনশনের একপর্যায়ে ৫ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে তার তৎকালীন একান্ত সচিব সাজ্জাদুল হাসান সেখানে গিয়ে আশ্বাস দেন। এরপর শিক্ষক-কর্মচারীরা আন্দোলন কর্মসূচি স্থগিতের ঘোষণা দেন। এরপর সরকারের বিভিন্ন পর্যায় থেকে বলা হয়েছে, নতুন অর্থবছরে নতুন বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হবে। কিন্তু অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের যে বাজেট প্রস্তাব করেন, সেখানে তিনি নতুন এমপিওভুক্তির বিষয়ে সুস্পষ্ট কিছু বলেননি। তারপর থেকেই এমপিওভুক্তির দাবিতে টানা ১২ দিন ধরে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের বিপরীত পাশে আন্দোলন করে যাচ্ছেন নন এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ