Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৭ আশ্বিন ১৪২৫, ১১ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

হেরে বিদায় শঙ্কায় আর্জেন্টিনা!

তবুও সুযোগ আছে মেসিদের

ইমরান মাহমুদ | প্রকাশের সময় : ২২ জুন, ২০১৮, ১২:০৫ এএম | আপডেট : ৩:০১ এএম, ২২ জুন, ২০১৮

শুরু থেকেই ছন্নছাড়া আক্রমণ, পাল্টা আক্রমণে ডিফেন্ডারের খামতি, আর দলের সেরা তারকা লিওনেল মেসিকে খেলাতে না পারার সঙ্গে বেশ কিছু সুযোগ মিসের মহড়া। যার খেসারত দ্বিতীয়ার্ধে এসে দিতে হয়েছে আর্জেন্টিনাকে। গোলরক্ষক উইলি কাবাইয়েরোর মারাত্মক ভুলে এগিয়ে যায় ক্রোয়েশিয়া। সেই ভুলের খেসারত দিতে না দিতেই ৮০ মিনিটের মাথায় দ্বিতীয় গোল। সেখান থেকে আর ঘুরে দাঁড়াতে পারল না আর্জেন্টিনা। উল্টো শেষ সময়ে আরেক গোলে বড় ব্যবধানে হেরে পড়ে গেল গ্রুপ পর্ব থেকেই বাদ পড়ার শঙ্কায়। ৩-০ গোলের দুর্দান্ত জয়ে এক ম্যাচ বাকি থাকতেই শেষ ষোলোতে উঠে গেছে ক্রোয়েশিয়া। শেষ ষোল’য় তাদের সম্ভাব্য প্রতিপক্ষ ফ্রান্স অথবা ডেনমার্ক।

শেষ ম্যাচে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে জিততে তো হবেই। পাশাপাশি শুক্রবার আইসল্যান্ডের বিপক্ষে সুপার ঈগলদের জয় কামনা করতে হবে মেসিদের। আর ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষেও জয়হীন থাকতে হবে আইসদের। আর যদি আইসল্যান্ড জিতেই যায় তাহলে শেষ ম্যাচে ক্রোয়েশিয়াকে জিততে হবে। তার সঙ্গে নাইজেরিয়ার বিপক্ষেও বড় ব্যবধানে জিততেই হবে আর্জেন্টিনার।

এই ম্যাচে পরিবর্তন যে হতে পারে সেই আভাস হোর্হে সাম্পাওলি আগেই দিয়েছিলেন। আর্জেন্টিনা দলে সেই তিনটি পরিবর্তন হল আগের ম্যাচে খেলা বিলিয়া, রোহো ও ডি মারিয়ার জায়গায় দলে এসেছে মেরকাদো, আকুনা ও এনজো পেরেজ।

সেন্ট্রাল ডিফেন্সের এই পরিবর্তনেও ম্যাচ শুরুর ৫ মিনিটেই সুযোগ পেয়ে গিয়েছিল ক্রোয়েশিয়া। বাঁ প্রান্ত দিয়ে পেরিসিচ উঠে এসে নিয়েছিলেন শট। সেটা দারুণভাবে ঠেকিয়ে দিয়েছেন কাবায়েরো। ১০ মিনিটের মধ্যে মাত্র ৩ বার বলে স্পর্ষ পেয়েছেন মেসি, বাকিদের নিষ্প্রভতায় যা থেকে ভালো কোন সুযোগ তৈরি হয়নি।

১২ মিনিটের মাথায় মেজার শট দারুণভাবে ব্লক করেছেন লভরেন। তবে বল যতবারই আর্জেন্টিনার রক্ষণে যাচ্ছিল, চাপে পড়ে যাচ্ছিলেন ওটামেন্ডিরা। ২২ মিনিটে অবশ্য মের্কাদো ক্রস করেছিলেন, কিন্তু তা ক্রসবারে চুমু খেয়ে চলে যায় সাইডলাইনের বাইরে।

ম্যাচের ৩১তম মিনিটে সবচেয়ে সহজ সুযোগটি খুইয়েছে আর্জেন্টিনা। খলি পোস্টেও গোল দিতে পারেনি এনজো পেরেস! ক্রোয়েশিয়া ডিফেন্ডারদের ভুল বোঝাবুঝিতে বল পেয়ে গিয়েছিলেন বক্সে, কিন্তু ফাঁকা পোস্ট পেয়েও মারলেন বাইরে! স্টেডিয়ামে খেলা দেখতে অাসা কিংবদন্তি ম্যারাডোনাও বিশ্বাস করতে পারছিলেন না নিজের চোখকে, বিশ্বকাপে এমন গোলের সুযোগ যে বারবার পাওয়া যায়না!

৩৩ মিনিটে মানজুকিচও পেয়েছিলেন দারুণ একটা সুযোগ। কিন্তু ডান দিক থেকে উড়ে আসা ক্রসে মাথা ছুঁইয়েও তা রাখতে পারলেন না পোস্টে। প্রথমার্ধ শেষের ঠিক আগে মদ্রিচের পাস থেকে রেবিচ পেয়েছিলেন আরও একটা সুযোগ। কিন্তু বক্সের বাইরে থেকে তাঁর নেওয়া শট চলে যায় পোস্টের ওপর দিয়ে এমনই নোখ কামড়ানো উত্তেজনা ছড়ায়েই গোলশূণ্য অবস্থাতে বিরতিতে যায় দু’দল।

বিরতি থেকে ফিরে নিজেরদ কিছুটা গুছিয়ে নিতে থাকে আর্জেন্টিনা। সেই গুছিয়ে ওঠার অষ্টম মিনিটে কাবাইয়েরো করলেন ওই মারাত্মক ভুল। গাব্রিয়েল মের্কাদোর ব্যাকপাস ধরে আবার বাড়াতে চেয়েছিলেন তাকে। কিন্তু বল উঠলো উপরে একেবারে রেবিচের কাছে। নিখুঁত ভলিতে কাবাইরোর মাথার উপর দিয়ে বল জালে পাঠালেন এই ফরোয়ার্ড (১-০)। প্রথমার্ধেও এ রকম অহেতুক ঝুঁকি নিচ্ছিলেন কাবাইয়েরো। শেষ পর্যন্ত গোল খেয়ে দিতে হলো এর মাশুল। কাছে দাঁড়িয়েই দলের এই করুণ পরিণতি দেখেছেন মেসি।

৬৩ মিনিটে হিগুয়াইনের পাস থেকে দারুণ একটা সুযোগ পেয়েছিলেন মেসি। কিন্তু তাঁর শট ঠেকিয়ে দেন ক্রোয়েশিয়া গোলরক্ষক। এক মিনিট বাদেই গনসালো হিগুয়াইনের কাটব্যাকে মাক্সিমিলিয়ানো মেসার শট ফিরিয়ে ক্রোয়েশিয়ার ত্রাতা গোলরক্ষক দানিয়েল সুবাসিচ।

আরেকটি পাল্টা আক্রমণে ৮০তম মিনিটে ডি-বক্সের বাইরে থেকে বাঁকানো শটে ক্রসবার ঘেঁষে বল জালে পাঠান ক্রোয়েশিয়া অধিনায়ক মদ্রিচ। ছয় মিনিট পর ইভান রাকিতিচের ফ্রি-কিকে বল ক্রসবারে লেগে ফিরলে ব্যবধান বাড়েনি। তবে আর ৫ মিনিট পর ব্যবধান ৩-০ করতে আর কোন ভুল করেননি এই বার্সা তারকা।

প্রতি আক্রমণ থেকে একটি শট ঝাঁপিয়ে ঠেকান আর্জেন্টিনার গোলরক্ষক। তবে বল পেয়ে যান মাতেও কোভাচিচ। তার কাছ থেকে রাকিতিচ যখন বল পান সামনে কেবল মার্কোস আকুনা। গোলের অমন সহজ সুযোগ কাজে লাগাতে ভুল করেননি রাকিতিচ।

বাকি সময়টুকু হয়ত ঘড়ি দেখেই কাটিয়ে দিয়েছে ক্রোয়াটরা। কে জানে, নইলে হয়তো গোলের সংখ্যা বাড়তেও পারতো! মেসির মত বিশ্বসেরা ফুটবলার থাকার পরও অমন বাজে রক্ষণ অার ছন্নছাড়া ফুটবলের আর কী-ই-বা বলার থাকতে পারে।

রাকিতিচ-মদ্রিচদের আলো ছড়ানোর দিনে ম্লান মেসি-আগুয়েরোরা। শুরু থেকেই আর্জেন্টিনার সবচেয়ে বড় দুর্বলতা তাদের রক্ষণভাগ। এদিন ছিল তারা আরও এলোমেলো। ক্রোয়েশিয়ার শক্তিশালী মিডফিল্ড তার পুরো সুবিধা কাজে লাগিয়ে উড়িয়ে দিল হোর্হে সাম্পাওলির শিষ্যদের। সেই সঙ্গে আর্জেন্টিনা তো বটেই বিশ্বকাপে এই প্রথম দক্ষিণ আমেরিকার কোনো দলের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো জিতল ক্রোয়েশিয়া।

আইসল্যান্ডের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে বিশ্বকাপ শুরু করা আর্জেন্টিনা ১৯৭৪ আসরের পর প্রথমবারের মতো নিজেদের শুরুর দুই ম্যাচে কোনো জয় পেতে ব্যর্থ হল। ২০০২ সালে ইংল্যান্ডের কাছে হারের পর এই প্রথম গ্রুপ পর্বে কোনো ম্যাচে হারল দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

আগামী মঙ্গলবার রাত ১২টায় সেন্ট পিটার্সবাগে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে খেলবে আর্জেন্টিনা। একই সময়ে রস্তোভে আইসল্যান্ডের মুখোমুখি হবে ক্রোয়েশিয়া।



 

Show all comments
  • ২২ জুন, ২০১৮, ২:১০ এএম says : 0
    একটা বাজে রাত গেলো। খুবই বাজে।।এতটা খারাপ খেলবে আর্জেন্টিনা তা স্বপ্নেও ভাবিনি।খুবই হতাশাজনক!!!!!!
    Total Reply(0) Reply
  • ২২ জুন, ২০১৮, ২:৩০ এএম says : 0
    এত দিন মেসিকে ভাল খেলোয়ার জানতাম।কিন্তু মেসি এটাকে ভুল প্রমান করে দিল, ছি মেসি।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ