Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ০১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

ড্রাইভিং সিটে সউদী নারীরা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৪ জুন, ২০১৮, ১১:৪৬ এএম

গাড়ির ড্রাইভিং সিটে সউদী আরবের নারীরা। হাজারও প্রতিকূলতার পর রোববার (২৪ জুন) থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে গাড়ি চালাতে পারছেন তারা। এরই মধ্যে দেশটির বিভিন্ন শহরে ড্রাইভিং সিটে বসে দিনটি উদযাপনও করেছেন সৌদি নারীরা।

সউদী আরবই বিশ্বে একমাত্র দেশ, যেখানে নারীদের জন্য গাড়ি চালানো নিষিদ্ধ ছিল। দায়িত্ব নেওয়ার পরপরই দীর্ঘদিনের এ নিষেধাজ্ঞা তুলে দিতে কাজ শুরু করেন বর্তমান যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমান।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বলছে, রোববার দেশটির রাজধানী রিয়াদসহ অন্যান্য শহরে মধ্যরাতের পর নারীরা রাস্তায় গাড়ি নিয়ে নেমে পড়েন। অনেক নারীই তাদের অনুভূতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করেছেন। জীবনের প্রথমবার গাড়ি চালনার ছবিও পোস্ট করেছেন অনেকে।

টেলিভিশন উপস্থাপক ও লেখক সামের আল মাজরান লিখেছেন, আমি সবসময়ই জানতাম যে এ দিনটি আসবে। কিন্তু এটি খুব তাড়াতাড়ি এসেছে। মনে হচ্ছে হঠাৎ করেই। নিজ শহরে প্রথম গাড়ির চালানোর অনুভূতি প্রকাশে তিনি লিখেছেন, নিজেকে পাখির মতো মনে হচ্ছে।

টেলিভিশন উপস্থাপক সাবিকা-আল-দোসারি; সউদী নারীদের জন্য ঐতিহাসিক এই মুহূর্তে বাহরাইন সীমান্তে নিজে ‘সেডান’ চালিয়েছেন।গাড়ির স্টিয়ারিং ধরে তিনি অনুভূতি প্রকাশ করেছেন, ‘দিনটি প্রত্যেক সউদী নারীর জন্য ঐতিহাসিক।’

সৌদি প্রিন্স আল ওয়ালিদ বিন তালালের মেয়ে পুরো পরিবারের সদস্যদের পেছনের আসনে বসিয়ে গাড়ি চালিয়েছেন। টুইটারে বিশেষ এ মুহূর্তের ভিডিও আপলোড করে তিনি লিখেছেন, ‘এটা অনেক বড় একটা অর্জন। এখন মেয়েরা নিজেদের স্বাধীনতা ভোগ করবে।’

দেশটির মানবাধিকার কর্মীরা বলছেন, অনেক নারী এখন নির্ভরতা থেকে মুক্ত হবে। অনেকে ব্যক্তিগত গাড়ি চালক অথবা পুরুষ আত্মীয়ের ওপর নির্ভর করতেন। তাদের আর নির্ভরশীল থাকতে হবে না। আবার পারিবারিক ব্যয়ও কমে যাবে।

সউদীর নীতি-নির্ধারক সংস্থা আরব ফাউন্ডেশনের ঊর্ধ্বতন বিশ্লেষক নাজাহ আল-ওতাইবি বলেন, এটা মুক্তি। সউদী নারীরা এতদিন মৌলিক মানবাধিকার থেকে বঞ্চিত ছিলেন। এ সিদ্ধান্ত তাদের স্বাভাবিক জীবনযাপনে ফিরে যেতে ভূমিকা রাখবে।
চলতি মাসে নারীদের জন্য ড্রাইভিং লাইসেন্স ইস্যু শুরু করে সউদী আরব। রিয়াদ ও জেদ্দায় চালু হয়েছে নারীদের ড্রাইভিং শিক্ষার অনেক প্রতিষ্ঠানও।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ