Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৩ আশ্বিন ১৪২৫, ৭ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৩৫ হাজার ১১২ -সংসদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ জুন, ২০১৮, ৭:০৪ পিএম | আপডেট : ৭:০৬ পিএম, ২৬ জুন, ২০১৮
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানয়েছেন, চলতি বছরের জানুয়ারি-মার্চ পর্যন্ত ২৭ হাজার ৩৪০ মামলায় ৩৫ হাজার ১১২ আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ সময় জব্দ করা হয়েছে তিন কোটি ২৮ লাখ ২৫ হাজার ৬১১ পিস ইয়াবা। এ ছাড়া চলমান অভিযানের অংশ হিসেবে মে ও জুনে ১৫ হাজার ৩৩৩ মামলায় ২০ হাজার ৭৬৭ আসামিকে গ্রেফতার এবং ২৬ লাখ ৫৯ হাজার ৮০৭ পিস ইয়াবা জব্দ এবং এক হাজার ২৮৯ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।
 
মঙ্গলবার (২৬ জুন) জাতীয় সংসদে এমপি ওয়ারেসাত হোসেন বেলালের (নেত্রকোনা-৫) লিখিত প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান।
 
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ভারত ও মিয়ানমার সীমান্তে উভয় দেশের সহযোগিতায় তাৎক্ষণিকভাবে মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনায় বর্ডার লিয়াজোঁ অফিস স্থাপনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। মাদক সমস্যা নিয়ে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে এ পর্যন্ত মহাপরিচালক, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর ও মহাপরিচালক, নারকোটিক্স কনট্রোল ব্যুরো, ভারতের সঙ্গে পাঁচটি ফলপ্রসূ দ্বিপাক্ষিক বৈঠক হয়েছে। পাশাপাশি ইয়াবা পাচার রোধে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে এ পর্যন্ত তিনটি দ্বিপাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিটি বৈঠকে মিয়ানমার ও ভারতের মাদক ব্যবসায়ী এবং মাদক তৈরির গোপন কারখানার তালিকা উভয় দেশের প্রতিনিধিদের কাছে হস্তান্তর করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছে।
 
মিয়ানমারকে ইয়াবার উৎপাদন ও প্রবাহ বন্ধ এবং সীমান্তে অবস্থিত ইয়াবা তৈরির কারখানা সম্পর্কে গোয়েন্দা তথ্য বিনিময়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে অনুরোধ জানানো হয়েছে।
 
মন্ত্রী বলেন, দেশব্যাপী ইয়াবা ব্যবসায়ীদের তালিকা হালনাগাদ করে সর্বাত্মক অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। মাদকের গডফাদার ও পৃষ্ঠপোষকদের আইনের আওতায় আনতে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮ এ খসড়া প্রণয়ন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।
 
তিনি বলেন, বর্তমান সরকার মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছে। এ নীতি বাস্তবায়নে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর, পুলিশ, বিজিবি র‌্যাবসহ আইন প্রয়োগকারী সংস্থা নিরলসভাবে কাজ করছে।
 
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরকে শক্তিশালী ও ঢেলে সাজাতে জনবল এক হাজার ৭০৬ জন থেকে আট হাজার ৫০৫ জনে উন্নীত করা হয়েছে।
 
এমপি দিলারা বেগমের প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দেশে বিভিন্ন ক্যাটাগরির ৬৮টি কারাগার রয়েছে। ২০০৯ সাল থেকে এ পর্যন্ত ১৩টি কারাগার নব নির্মাণ/পুনর্নির্মাণ করে চালু করা হয়েছে। এ ছাড়া বর্তমানে আটটি নতুন কারাগারের নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। যা ৩০ জুনের মধ্যে শেষ হওয়ার কথা। নতুনভাবে আরও ছয়টি কারাগার সংস্কারের কাজ চলছে বলেও জানান তিনি।


 

Show all comments
  • Mohammed Shah Alam Khan ২৭ জুন, ২০১৮, ১০:১২ পিএম says : 0
    স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সংসদে যে বক্তব্য দিয়েছেন সেটা সঠিক বক্তব্য কাজেই এই বক্তব্যের উপর বলা যায় সরকার যে বলে আসছে মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহন করেছেন সেটা তারা করে দেখাচ্ছেন। ............... আল্লাহ্ আমাদের দেশের উকিলদেরকে সত্য কথা বলতে এবং সততার সাথে সঠিক পথে চলার ক্ষমতা দান করুন। আমীন
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ