Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮, ০৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

পাবনায় নদীগর্ভে মানুষের ভাগ্য

| প্রকাশের সময় : ২ জুলাই, ২০১৮, ১২:০৬ এএম

মুরশাদ সুবহানী পাবনা থেকে : তীব্র আকার ধারণ পদ্মা-যমুনার নদীর ভাঙন। একই সাথে ফুঁসে উঠেছে পদ্মা যমুনার সংযোগস্থল সুজানগরের ভাটিতে দুই নদীর পানি। যে কোন মুহুর্তে বিপদ সীমা অতিক্রম করতে পারে। নদী ভাঙনে মানুষের বুকভাটা কান্নায় প্রতিদিন ভারী হচ্ছে বাতাস। ভাঙন রোধে নেই কোন বাস্তবসম্মত পদক্ষেপ। ফলে রোধ হচ্ছে না নদীকূলের ভাঙন। কার্যত নদীকূলের মানুষ বন্যা-ভাঙ্গনে সব হারিয়ে নি:স্ব হয়ে পড়েছেন।
পাবনা সদর, বেড়া উপজেলার নগরবাড়ী, রঘুনাথপুর, কাজীরহাট এলাকা যমুনা নদীর ভাঙনের কবলে পড়েছে। সুজানগরের নাজিরগঞ্জ, সাতবাড়িয়া, নিশ্চিন্তপুরে পদ্মা নদীর ভাঙন শুরু মানিকহাট এলাকায় পদ্মা নদীর ভাঙ্গনে শত শত ঘরবাড়ি, হাট-বাজার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ফসলী জমি ইতোমধ্যেই নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। পাবনার বেড়ার নগরবাড়ীঘাট, কাজীরহাট রঘুনাথপুর যমুনা নদীর ভাঙনে এখন সংকুচিত হয়ে পড়েছে। বেড়ার ভারেঙ্গা মানচিত্র থেকে হারিয়ে গেছে কয়েক বছর আগেই। গত কয়েক বছর ধরে নগরবাড়ী ঘাটসহ আশপাশের এলাকার ব্যাপক ভাঙন চলছে। ভাঙনে নগরবাড়ী ফেরিঘাটসহ রঘুনাথপুর, প্রতাপপুর, মধুপুর, মুন্সিগঞ্জ, যদুপুর, শ্রীনিবাসদিয়া, খানপুরা, ঘোপসিলিন্দা, গনপতদিয়া, নটাখোলাসহ আশপাশের এলাকার কয়েক হাজার মানুষ দিনে দিনে গৃহহারা হয়ে পড়েছেন।
প্রতিদিন ফসলী জমি,বাড়ী-ঘর, মসজিদ নদী গর্ভে হারিয়ে যাচ্ছে। পাবনা সদর উপজেলায় দোগাছী,ভাঁড়ারা, চরতারাপুর, পদ্মা ও মরা পদ্মার ভাঙ্গনে কবলে পড়েছে। যমুনা ও পদ্মা নদীর প্রবল ভাঙ্গনে নদী স্বাভাবিক গতিপথ হারিয়ে ফেলেছে। সাম্প্রতিক সময়ে মাঝারি আকারের ভূমিকম্পে নদী নিজ গতিপথ থেকে আরও কিছু দূর সরে গেছে। নদী বিশেষজ্ঞ ইনকিলাবকে বলেছেন, নদী স্বাভাবিক গতি পথ হারালে আগের চলার পথ খুঁজতে নদ-নদী ভাঙন তীব্রতর হচ্ছে। এ ছাড়াও নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি শুরু হলে ভাঙ্গন তীব্র হয়ে উঠে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের গাফিলতি ও অনিয়ম দুর্নীতির কারণে ভাঙ্গনরোধ স্থায়ী করা সম্ভব হয় না বলে অভিযোগ শোনা যায়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর