Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী

টাইব্রেকার ভাগ্য জিতে শেষ আটে ক্রোয়েশিয়া

ক্রোয়েশিয়া ১ (৩) - (২) ১ ডেনমার্ক

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২ জুলাই, ২০১৮, ১২:২৭ এএম | আপডেট : ২:৫০ এএম, ২ জুলাই, ২০১৮

রাশিয়া বিশ্বকাপের দ্রুততম গোল এবং দ্রুততম সমতায় ফেরার রোমাঞ্চ দিয়েই শুরু হয় ক্রোয়েশিয়া-ডেনমার্কের শেষ আটে ওঠার লড়াই। এই রোমাঞ্চ চললো অতিরিক্ত সময়ে, নির্ধারিত ১-১ গোলের সমতার ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে। যেখানে ডেনমার্ককে ৩-২ গোলে হারিয়ে শেষ আটের টিকিট পায় ক্রোয়েশিয়া।

রোববার রাত ১২টায় নিজনি নভগোরোদ স্টেডিয়ামে মাত্রই বাঁশিতে ফুঁ দিয়ে কিক অফের ইশারা করলেন রেফারি। অনেকেই হয়ত তখনও গ্যালারিতে নিজেদের জন্য নির্দিষ্ট সিটই খুঁজে পাননি। এরই মধ্যে দেখা হয়ে গেছে দুই গোল! দ্বিতীয় মিনিটে ডেনমার্ককে এগিয়ে দেন জার্গেনসন, তিন মিনিট বাদে মানজুকিচের গোলে সমতায় ফেরে ক্রোয়েশিয়া।

মাঝে দু’একটি ঝড়ো আক্রমণে কিছুটা চেষ্টা থাকলেও গোলের মুখ দেখেনি কোন দল, আর কোন রোমাঞ্চ ছাড়াই বিরতিতে যায় দু’দল। সেখান থেকে ফিরেও ভাগ্য বদল হয়নি কোন দলের। খেলা গড়ায় অতিরিক্ত ৩০ মিনিটে। এখানেও একই অবস্থা থাকলে মাচ গড়ায় টাইব্রেকারে।

প্রথম আক্রমণেই জালের দেখা পায় দলটি। ঘড়ির কাঁটা তখনও এক মিনিট পেরোয়নি। একটা থ্রো ইন থেকে বল পেয়ে জটলা থেকে মাটিয়াস ইয়োরগেনসেনের শট ক্রোয়েশিয়া গোলরক্ষক দানিয়েল সুবাসিচের পায়ে লেগে জালে জড়ায়।

চতুর্থ মিনিটে সমতা ফেরায় ক্রোয়েশিয়া। পাল্টা-আক্রমণের একটি বল বিপদমুক্ত করার চেষ্টায় হেনরিক ডালসগার্ডের শটে বল ডিফেন্ডার আ্যন্দ্রেয়াস ক্রিস্টেনসেনের মুখে লেগে ডি-বক্সেই থাকে। সুবর্ণ সুযোগ চলে আসে ফাঁকায় দাঁড়িয়ে থাকা মারিও মানজুকিচের সামনে। খুব কাছ থেকে জাল খুঁজ নিতে খুব একটা বেগ পেতে হয়নি জুভেন্টাসের এই ফরোয়ার্ডের।

২৮তম মিনিটে ক্রোয়েশিয়াকে এগিয়ে নেওয়ার সুযোগ নষ্ট করেন ইভান পেরিসিচ। ইভান রাকিতিচের শট ফিরিয়ে দেন কাসপের স্মাইকেল। ফিরতি শটে বল গোলরক্ষকের হাত থেকে ফস্কে গেলে ফাঁকায় থাকা পেরিসিচের সামনে সুযোগ চলে আসে। ইন্টার মিলান ফরোয়ার্ড প্রথম চেষ্টায় শট নিতে পারেননি, দ্বিতীয় চেষ্টার মারেন বেশ উপর দিয়ে।

দশ মিনিট পর লুকা মদ্রিচের ফ্রি কিকে দেয়ান লভরেন হেড লক্ষ্যে রাখতে পারেননি। দুই মিনিট পর ক্রিস্টিয়ান এরিকসেনের ক্রস ক্রসবারের কোণায় লেগে বাইরে যায়। বিরতির খুব কাছে এসে কিছুটা পতি পায় আক্রমণ-পাল্টা অঅক্রমণে। তবে গোলমুখ খুলতে পারেনি কোন দলই।

দ্বিতীয়ার্ধে অবশ্য ক্রোয়েশিয়ার চেয়ে ডেনমার্কের কাছেই বেশি নিয়ন্ত্রণ ছিল বলের। ৭২ মিনিটে পুরো ম্যাচে দুর্দান্ত খেলা পলসেনের পাস থেকে ইয়োর্গেনসেন পেয়েছিলেন সুযোগ। কিন্তু তাঁর শট সরাসরি চলে যায় গোলরক্ষকের হাতে।

 

শেষের দিকে ক্রোয়েশিয়া আবার ফিরে আসার চেষ্টা করে খেলায়। রেবিচ দূর থেকে শট নিয়েছিলেন, কিন্তু সেটা ধরে ফেলেন স্মাইকেল। রাকিতিচের শট চলে যায় পোস্টের বাইরে দিয়ে।

 

অতিরিক্ত সময়ের সবচেয়ে নাটকীয় মুহুর্ত এলো ১১৬ মিনিটে। মদ্রিচের পাসটা রেবিচ গোল দেওয়ার আগে তাঁকে বক্সে ফাউল করা হয়। কিন্তু পেনাল্টি থেকে গোল করতে পারেননি, ঠেকিয়ে দিয়েছেন স্মাইকেল। সুবর্ণ সুযোগ হারাল ক্রোয়েশিয়া।

 

টাইব্রেকারও শুরু হলো নাটক দিয়ে। এরিকসেনের শট ঠেকিয়ে দিলেন ক্রোয়াট সুবাসিচ, আবার ক্রোয়েশিয়ার বাদেলের শট ঠেকিয়ে দিলেন স্মাইকেল।

গ্রুপ পর্বের লড়াই শেষ। এবার শুরু নকআউট পর্ব। হারলেই বিদায়। তাই সর্বোচ্চটা বাজি রেখেই খেলবে দলগুলো। এদিন দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে ১৯৯৮ সালের সেমিফাইনালিস্ট ক্রোয়েশিয়ার মোকাবেলা করবে ১৯৯২ সালের ইউরো চ্যাম্পিয়ন ডেনমার্ক।

আসর শুরু হওয়ার আগে ক্রোয়েশিয়াকে নিয়ে তেমন আলোচনা ছিল না। তবে সবার মনোযোগ কাড়তে বাধ্য করেছে পারফরম্যান্স দিয়েই। আর্জেন্টিনার মতো শক্তিধর দলকে উড়িয়ে দিয়েছে তারা ৩-০ গোলে। তবে প্রতিপক্ষ ডেনমার্কও শক্তির দিক থেকে খুব একটা পিছিয়ে নেই। ফ্রান্সের মতো জায়ান্ট দলকে রুখে দিয়েছে তারা। তাই জমজমাট একটা লড়াই প্রত্যাশা করতেই পারে ফুটবল প্রেমীরা। 

আইসল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম একাদশের নয় জনকে বিশ্রাম দেওয়া ক্রোয়েশিয়া ফিরিয়েছে ইভান রাকিতিচ, মারিও মানজুকিচদের।

ক্রোয়েশিয়া দল : দানিয়েল সুবাসিচ, শিমে ভারসালকো, দেয়ান লভরেন, দোমাগোই ভিদা, ইভান স্ত্রিনিচ, মার্সেলো ব্রজোভিচ, ইভান রাকিতিচ, লুকা মদ্রিচ, ইভান পেরিসিচ, মারিও মানজুকিচ, আন্তে রেবিচ।

নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ডেনমার্ক দলে ফিরেছেন ইউসুফ ইউরারি পৌলসেন।

ডেনমার্ক দল : কাসপের স্মাইকেল, হেনরিক ডালসগার্ড, সিমন কেয়ার, মাটিয়াস ইয়োরগেনসেন, অ্যান্দ্রেয়াস ক্রিস্টেনসেন, মার্টিন ব্রেইথওয়েট, ক্রিস্টিয়ান এরিকসেন, টমাস ডেলেনি, ইউসুফ ইউরারি পৌলসেন, অ্যান্দ্রেয়াস কর্নেলিউস, ইয়োনাস কুনুডসেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রাশিয়া বিশ্বকাপ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ