Inqilab Logo

শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৮ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

দাতাদের অর্থ ব্যবহারে দুর্নীতি হলে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নাসিম

প্রকাশের সময় : ২৫ জানুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, প্রতিটি বিজয়ের মাসে সারা দেশের দরিদ্র নারীদের বিনামূল্যে স্তন ক্যান্সার ও জরায়ুমুখে ক্যান্সারের পরীক্ষা করা হবে। রোববার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে স্তন ক্যান্সার এবং জরায়ুমুখে ক্যান্সার প্রতিরোধ সপ্তাহ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় এবং ইউএনএফপিএ যৌথ ভাবে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এদিকে অপর এক অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন,
স্বাস্থ্যমন্ত্রী তার বক্তব্যে বলেন, ক্যান্সার প্রতিরোধের জন্যই এই সপ্তাহ পালন করা হবে। দেশে এ রোগের সুচিকিৎসা রয়েছে। তবে ক্যান্সার প্রতিরোধের জন্য সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন সচেতনতা। সচেতনতা বাড়াতে তিনি আয়োজকদের জেলা ও থানা পর্যায়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়ে বলেন, শুধু রাজধানীর মানুষেকেই সচেতন করলে হবে না। সারা দেশের মানুষেকে এ বিষয়ে সচেতন করতে হবে। সচেতন হলেই মানুষ এ রোগ থেকে মুক্তি পাবে।
অনুষ্ঠানে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন বিএসএমএমইউ’র প্রফেসর ডা. আশরাফুন্্নিসা। তিনি বলেন, দেশে নারীদের মৃত্যুর অন্যমত প্রধান কারন স্তন ক্যান্সার এবং জরায়ুমুখে ক্যান্সার। সে জন্যই জানুয়ারি মাসের ১৯ থেকে ২৫ তারিখ পর্যন্ত সচেতনতা সপ্তাহ পালনের কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। কল্পোস্কপি পরীক্ষার মাধ্যমে খুব সহজেই যে কোন নারীর এ রোগ নির্ণয় করা সম্ভব। তিনি বলেন, সারাদেশে মোট ২৭ মিলিয়ন নারীর ক্যান্সর স্ক্রিনিং করা প্রয়োজন। কিন্তু এ পর্যন্ত মাত্র ৭ শতাংশ নারীর স্ক্রিনিং সম্পন্ন হয়েছে।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মাহপরিচালক প্রফেসর ডা. দীন মো. নুরুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হেসেবে উপস্থিত ছিলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ডা. কামরুল হাসান খান, ইউএনএফপিএ’র কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টিটিভ আর্জেন্টিনা মেটাভিল পিসিন, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের সচিব নাসিমা বেগম, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এস এম মাহমুদ প্রমুখ।
অনুষ্ঠানের শুরুতে মোহাম্মদ নাসিম সাংবাদিক আলতাফ মাহামুদ এবং আওয়ামী লীগ নেতা এম এ আজিজের রুহের মাগফিতার কামনা করে।
এদিকে রোববার সকালে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম সাসটেইন্যাবল ডেভেলপমেন্ট গোল (এসডিজি) লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে স্বাস্থ্যখাতে দাতা সংস্থার সহায়তা আরও বাড়ানোর আহ্বান জানান। রোববার রাজধানীর হোটেল লেকশোরে বিশ^ ব্যাংক ও বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থার যৌথ আয়োজনে এক অনুষ্ঠানে তিনি এ আহ্বান জানান। স্বাস্থ্য খাতে বৈশ্বিক অর্থায়ন নিয়ে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
দাতাদের দেওয়া অর্থ স্বচ্ছতার সঙ্গে ব্যয় করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্য খাতে দাতাদের দেওয়ার অর্থ নিয়ে কোন দুর্নীতি হলে জড়িতদের বিরুদ্ধে সঙ্গে সঙ্গে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি বলেন, স্বাস্থ্য খাতের মানোন্নয়নে আমরা বিশ^ ব্যাংকসহ দাতা সংস্থার আরও সহায়তা চাই। তাদের সহযোগিতা ও সরকারের বরাদ্দ এক করে এ খাত এগিয়ে যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হয়েছে। মাতৃ ও শিশুমৃত্যু হার হ্রাস, পোলিও মুক্তির সনদসহ স্বাস্থ্য খাতের বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নয়ণ করেছে। সাড়ে ১৩ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিকের মাধ্যমে প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের দোরগোড়ার স্বাস্থ্য সেবা পৌছে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া বর্তমান সরকার দায়িত্ব নেওয়ার পর একযোগে ছয় সহস্রাধিক চিকিৎসক নিয়োগ দিয়ে তাদের গ্রাম ও প্রত্যন্ত অঞ্চলে পদায়ন করা হয়েছে। টাঙ্গাইলের তিন উপজেলায় এক লাখ মানুষের মাঝে হেলথ কার্ড পৌছে দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে সারাদেশের মানুষকে এ সেবার আওতায় আনা হবে।
অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন করেন স্বাস্থ্য সচিব সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, কানাডার রাষ্ট্রদূত হেদার ক্রুডেন, ওয়াশিংটন বিশ^ব্যাংকের জ্যেষ্ঠ স্বাস্থ্য ও পুষ্টি বিষয়ক পরিচালক টিম ইভান্স, বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধি ড. এন পারানিথারন, ব্র্যাকের ভাইস চেয়ারপারসন ড. মোস্তাক রাজা চৌধুরী প্রমুখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: দাতাদের অর্থ ব্যবহারে দুর্নীতি হলে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নাসিম
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ