Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ০৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

মার্কিন যুদ্ধজাহাজের কাছে রাশিয়ার যুদ্ধবিমান : কূটনৈতিক টানাপড়েন

প্রকাশের সময় : ১৬ এপ্রিল, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : বাল্টিক সাগরে মার্কিন যুদ্ধজাহাজের খুবই কাছ দিয়ে উড়ে গেছে রাশিয়ার দুটি যুদ্ধবিমান। গত সোমবারের এ ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার মধ্যে কূটনৈতিক টানাপড়েন দেখা দিয়েছে। বিবিসি জানিয়েছে, নিরাপত্তার স্বার্থে যুদ্ধবিমান দুটি উড়ছিল এবং যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধজাহাজ ইউএসএস ডোনাল্ড কুক দেখে তারা সরে এসেছে- এমন দাবি করেছে রাশিয়া। তবে একে রাশিয়ার ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ হিসেবেই দেখছে যুক্তরাষ্ট্র। রাশিয়ার আচরণের তীব্র সমালোচনা করে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি বলেছেন, চাইলেই রাশিয়ার যুদ্ধবিমান দুটি ভূপাতিত করতে পারত যুক্তরাষ্ট্র। তিনি আরো জানান, এ ঘটনায় মস্কোর সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম মায়ামি হেরাল্ড ও সিএনএনকে জন কেরি বলেন, রাশিয়ার এমন আচরণের আমরা তীব্র নিন্দা জানাই। এমন আচরণ বেপরোয়া, উসকানিমূলক ও ভয়ংকর। আর চুক্তি অনুয়ায়ী বিমান দুটি ভূপাতিত করা যেত।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি আরো বলেন, রাশিয়ার কর্মকা-ে যুক্তরাষ্ট্র মোটেই ভীত নয়, এমন বার্তা দেশটির কাছে পাঠানো হয়েছে। বিবিসি জানিয়েছে, স্থানীয় সময় গত সোমবার বাল্টিক সাগরে রাশিয়ার ঘাঁটির কাছ দিয়ে যাচ্ছিল ইউএসএস ডোনাল্ড কুক। রাশিয়ার দুটি যুদ্ধবিমান ওই জাহাজকে কেন্দ্র করে অন্তত কয়েক ডজনবার চক্কর দেয়। এমনকি বিমানের নয় মিটার দূর দিয়ে একটি বিমান উড়ে যায়। রাশিয়ার একটি হেলিকপ্টারও যুদ্ধজাহাজের কাছে আসে। পরদিনও একটি হেলিকপ্টার ও কয়েকটি যুদ্ধবিমান জাহাজের কাছ দিয়ে উড়ে যায়। ১৯ ৭০ সালের এক চুক্তি অনুযায়ী যুক্তরাষ্ট্র বিমানগুলো ভূপাতিত করতে পারত। তবে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে বিমানে হামলা না চালানোর জন্য কোনো ব্যাখ্যা দেয়া হয়নি।
এ ঘটনাটিকে সাম্প্রতিককালের সবচেয়ে আক্রমণাত্মক সাক্ষাৎ বলে বর্ণনা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর এক কর্মকর্তা। সুখোই এসইউ-২৪ যুদ্ধবিমান দুটি ১১ বার যুদ্ধজাহাজটির খুব কাছ দিয়ে উড়ে গেছে বলে গত বুধবার দাবি করেছেন ওই কর্মকর্তা।
বিমান দুটি এত নিচ দিয়ে উড়ে গেছে যে তাতে সাগরের পানিতে ঢেউ তৈরি হয় বলে দাবি করেছেন তিনি। তবে বিমান দুটি দৃশ্যমান কোনো অস্ত্র বহন করছিল না বলে জানিয়েছেন তিনি। ঘটনার আগের দিনও বিমান দুটি ইউএসএস ডোনাল্ড কুক ডেস্ট্রয়ারটির কাছ দিয়ে উড়ে গেছিল বলে জানিয়েছেন তিনি।
প্রসঙ্গত, লিথুয়ানিয়া ও পোল্যান্ডের মাঝে অবস্থিত রুশ ছিটমহল কালিনিনগ্রাদের নৌসীমা থেকে ৭০ নটিক্যাল মাইল দূরে এ ঘটনা ঘটে। যুক্তরাষ্ট্রের জাহাজটি আন্তর্জাতিক নৌসীমায় ছিল দাবি করে নাম প্রকাশ না করার শর্তে দেশটির ওই কর্মকর্তা বলেন, রেডিওর মাধ্যমে যোগাযোগর চেষ্টা করা হলেও তারা জবাব দেয়নি। গত বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনী ঘটনাটির ছবি ও ভিডিও প্রকাশ করেছে। একটি ছবিতে একটি এসইউ-২৪ যুদ্ধবিমানকে ডোনাল্ড কুকের সামনের অংশের খুব কাছে অত্যন্ত নিচু দিয়ে উড়ে যেতে দেখা যায়। যুক্তরাষ্ট্র ও সোভিয়েত ইউনিয়নে নেতৃত্বাধীন দুই মেরু বিশ্বের সময়কালীন শীতল যুদ্ধের সময় এ ধরনের ঘটনা প্রায়ই ঘটতো। সাগরে এসব ঘটনা এড়াতে ১৯৭২ সালে যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন নৌবাহিনী প্রধান জন ওয়ার্নার ও সোভিয়েত অ্যাডমিরাল সের্গেই গোর্শকোভের মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল। ওই চুক্তিতে আকাশযান বা জাহাজের আশপাশে মহড়া দেওয়া অথবা জাহাজের আশপাশে বিমানশৈলি প্রদর্শন বা কাছাকাছি ক্ষতিকর বস্তু নিক্ষেপ করা নিষিদ্ধ করা হয়েছিল।
হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জন আর্নেস্ট ঘটনাটিকে আন্তর্জাতিক নৌসীমায় ও আন্তর্জাতিক আকাশসীমায় পরস্পরের কাছাকাছি তৎপরতা চালানোর পেশাদার সামরিক রীতির সঙ্গে অসঙ্গতিপূর্ণ বলে মন্তব্য করেছেন। ১১ এপ্রিল ইউএসএস ডোনাল্ড কুক পোল্যান্ডের গদিনিয়া শহরের বন্দর পরিদর্শন শেষে বাল্টিক সাগর ধরে এগিয়ে যাওয়ার সময় ঘটনাগুলো ঘটে। এ সময় জাহাজটিতে পোল্যান্ডের একটি হেলিকপ্টারও ছিল। বিবিসি, রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ