Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫, ৮ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

ভুল চিকিৎসায় প্রসূতি মৃত্যুর অভিযোগ

লোহাগড়া (নড়াইল)উপজেলা সংবাদদাতা: | প্রকাশের সময় : ১১ জুলাই, ২০১৮, ১২:০০ এএম

নড়াইলের লোহাগড়ায় মিজানুর নাসিং হোমের কর্তব্যরত ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় এক প্রসূতি মায়ের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত সোমবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।
নিহতের পরিবার সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার শালনগর ইউনিয়নের চরশালনগর গ্রামের ইমদাদুলের শেখের স্ত্রী মিতা খানম (২২) কে গত সোমবার বিকালে উপজেলার লক্ষীপাশা মিজানুর নাসিং হোমে ভর্তি করা হয়। পরে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ মিতাকে রাতেই সিজার করার পরামর্শ দেয়। মিতার পরিবার ও ক্লিনিক কর্তৃপক্ষের সাথে চুক্তি মোতাবেক রাতেই নড়াইল সদর হাসপাতালের ডাক্তার সুব্রত কুমার সাহা মিতাকে সিজার করে। এ সময় অপারেশন রুমে মিতার চিৎকারে শুনে স্বজনরা অপারেশন রুমে ঢোকার চেষ্টা করে এবং তারা রোগীর সমস্যা জানতে চেষ্টা করে। কিন্তু ক্লিনিকের নার্সরা রোগীর কোন সমস্যা নেই বলে কিছুক্ষন পর একটি শিশু বাচ্চা স্বজনের হাতে দেয়। এর প্রায় দুই ঘন্টা পরও প্রসূতিকে অপারেশন থিয়েটার থেকে বের না করে ডাক্তারসহ ক্লিনিকের লোকজন এদিক ওদিক ছোটা ছুটি করতে থাকে এবং কিছু সময় পর প্রসূতির অভিভাবকদের ডেকে বলে মিতাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করাতে হবে। তড়িঘড়ি করে ওই ক্লিনিকের লোকেরা নিজেরাই এ্যাম্বুলেন্স এনে মিতাকে তুলে দেওয়ার সময় স্বজনরা দেখে প্রসূতির জিহবা বের হয়ে আছে এবং মৃত বলে ধারনা করে। তখন ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ বলে তার এখনো জ্ঞান ফেরেনি। এ অবস্থায় মিতাকে নিয়ে তার স্বজনরা খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জানায় রোগী অনেক আগেই মারা গেছে। নিহত মিতার শাশুড়ী তাসলিমা বেগম জানান,মিজানুর নাসিং হোমের লোকজন ও ডাক্তারের অবহেলার কারণে ওটিতে তার মৃত্যু হয়েছে।
এ ব্যপারে মিজানুর নাসিং হোমের মালিক মিজানুর ও ডাক্তার সুব্রত কুমার সাহা বলেন, প্রসূতি মিতার শ্বাসকষ্টের কারণে সিজারের সময় অসুস্থ্য হয়ে পড়লে খুলনা মেডিকেল হাসপাতালে নেয়ার পথে সে মারা যায়। নড়াইলের সিভিল সার্জন ডাঃ আসাদ উজ্জামান জানান ,এ ব্যপারে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে । তদন্ত শেষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ প্রবীর কুমার বিশ্বাস জানান, এ ব্যাপারে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ