Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ০৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

রামোসদের শুভকামনা, পেলের অভিনন্দন

রোনালদোর আবেঘন বিদায়ী চিঠি

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ জুলাই, ২০১৮, ৯:৪৬ পিএম

রিয়াল মাদ্রিদে থাকছেন না এই আভাস পাওয়া গিয়েছিলো গত মৌসুমেই। পরবর্তি গন্তব্য কোথায় হচ্ছে সেটি নিয়েও চলছিল নানা গুঞ্জন। বিশ্বকাপ ফুটবলের ডামাডোলে অনেকটাই আড়ালে চলে গিয়েছিলো ক্রিশ্চিয়ানো রেনালদোর দলবদল ইস্যুটি। তার দল পর্তুগাল বিদায় নেয়ার পরই ফের আলোচনায় সরব সিআর সেভেনকে নিয়ে। অবশেষে জানা যায় স্পেন ছেড়ে ইতালিতেই পাড়ি জমাচ্ছেন রোনালদো। জুভেন্টাসই হচ্ছে রিয়াল ফরোয়ার্ড পরবর্তি গন্তব্য। গতপরশু আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিত করেছে দুই ক্লাব প্রেসিডেন্ট, সরব হয়েছেন বারের বর্ষসেরা তারকাও। আনুষ্ঠানিক চুক্তি সাক্ষর না হলেও জানা গেছে ১ বিলিয়ন ইউরোতেই স্প্যানিশ জায়ান্টদের ছেড়ে সেরি ‘আ’র রাজাদের ডেরায় চার বছরের চুক্তিতে ঠাঁই নিচ্ছেন পর্তুগালের এই তারকা। তুরিনের ক্লাবটিতে ২০২২ সালের জুন পর্যন্ত খেলবেন এই ফরোয়ার্ড। এই সময়কালে বাৎসরিক ৩০ মিলিয়ন ইউরো করে বেতন ধরা হয়েছে সিআর সেভেনের। সঙ্গে আনুষাঙ্গিক সুযোগ সুবিধা তো থাকছেই।
তুরিনের ক্লাবে যোগ দেয়ার সাথে সাথে বার্নাব্যুতে বর্নিল নয় বছরের অধ্যয়ের সমাপ্তি ঘটবে রোনালদের। গত নয় বছরে রিয়ালের কিংবদন্তি হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন রোনালদো। দলটির হয়ে চারবার জিতেছেন উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ। সর্বশেষ তিনটি জিতেছেন টানা। দুটি লা লিগাসহ জিতেছেন অসংখ্য শিরোপা। সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে রিয়ালের হয়ে করেন রেকর্ড ৪৫১ গোল। ক্যারিয়ারের পাঁচ ব্যালন ডি’অরের চারটিই জিতেছেন ইউরোপিয়ান জায়ান্ট দলের হয়ে। বিশ্বকাপের পর অবসর কাটাতে রোনালদো তার পরিবার নিয়ে ছিলেন গ্রীসে। সেখান থেকে মাদ্রিদে গিয়ে বিদায় জানানো সম্ভব হয়নি তার। রিয়ালকে পাঠিয়ে দিয়েছেন নিজের বিদায়ী চিঠি। আবেগঘন সেই চিঠিতে উঠে এসেছে মাদ্রিদে তার অসাধারণ সময় কাটানোর ইতিহাস, ভালোবাসা, স্প্যানিশ ফুটবলের প্রতি তার সম্মান এবং শ্রদ্ধার বিষয়গুলো, ‘রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে এতগুলো বছর খেলা, মাদ্রিদের মতো এত সুন্দর একটা শহরে থাকতে পারা আমার জীবনে সবচেয়ে আনন্দময় সময়গুলোর একটি। এই ক্লাব, ক্লাবের সমর্থক, এই শহরের প্রতি ভীষণ কৃতজ্ঞ। আমাকে তারা যেভাবে ভালোবেসেছে, আমার প্রতি যে আবেগ দেখিয়েছে সবাইকে শুধুই ধন্যবাদ।’
তার এই চিঠি দাগ কেটেছে সকল রিয়াল সতীর্থদেরও। একে একে নিজেদের অবস্থান জানিয়েছেন, শুভকামনা জানাতেও ভোলেন নি তারা। বার্নাব্যুর হয়ে স্মরণীয় চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জেতার মুহূর্তে রোনালদো সঙ্গে নিজের একটি উদযাপনরত ছবি দিয়ে এই টুইটার বার্তায় রিয়াল অধিনায়ক রামেস লেখেন, ‘তোমার সঙ্গে খেলার প্রতিটি মুহূর্ত অসাধারণ। ভালো থেকো সবসময় বন্ধু!’ যে রোনালদোর কারণে প্রাদপদীপের আলোয় আসতে পারেন নি একসময়ের রেকর্ড ট্রান্সফ্রারে রিয়ালে পাড়ি জমানো ওয়েলশ তারকা সেই গ্যারেথ বেলও জানিয়েছেন নিজের অভিব্যক্তি, ‘রোনালদো- অসাধারণ এক ফুটবলার, দুর্দান্ত এক সতীর্থ, দুঃসময়ের বন্ধু; ভালো থেকো।’
চুক্তি অনুযায়ী আরও তিন বছর রিয়ালের থাকতে পারতেন ৩৩ বছর বয়সী তারকা স্ট্রাইকার। তবে বেতন বৈষম্যের কারণে রিয়াল ছাড়তে চান বলে অনেক আগে থেকেই আভাস দিয়ে আসছিলেন। দলের সাফল্যে বড় ভুমিকা রেখেও বার্সেলোনার লিওনেল মেসি ও পিএসজির নেইমারের চেয়ে কম বেতন পান রোনালদো। ব্যাপারটা তিনি মেনে নিতে পারেননি।
তার এই সিদ্ধান্ত নিয়ে হিনোমন্যতায় ভোগার কোন কারণ যদি থেকে থাকে সেটি দূর হয়ে যেতে পারে এক নিমিষেই। কেননা এটিকে সঠিক বলে রায় দিয়েছেন পেলে। ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তির মতে, চ্যাম্পিয়নরা কখনো নতুন চ্যালেঞ্জ নিতে আগ্রহ হারায় না। রোনালদোর উদ্দেশে পেলে টুইটারে লেখেন- ‘অভিনন্দন, ক্রিশ্চিয়ানো। সান্তোসে অনেক বছর কাটানোর পর অন্য একটা দলে যোগ দেওয়া কঠিন ছিল। তবে ওটা যথার্থ এক দল-বদল ছিল। চ্যাম্পিয়নরা কখনো নতুন চ্যালেঞ্জ নিতে আগ্রহ হারায় না।’
ক্লাব ফুটবলে সান্তোসের হয়ে দীর্ঘ ১৮ বছর খেলার পর নিউ ইয়র্ক কসমসের হয়ে ক্যারিয়ারে ইতি টেনেছিলেন ব্রাজিলের হয়ে তিনটি বিশ্বকাপ জয়ী পেলে। রোনালদোর দল-বদলের সিদ্ধান্তটাকে খুব ভালো করেই বুঝতে পারছেন বলে জানান সাবেক এই ফরোয়ার্ড। হয়ত খুব শিগগীরই বুঝবে বাকিরাও!



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ