Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৮ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৪ জামাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী।

বাবা ছিলেন আমার শিক্ষক

দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান বিচারপতি

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ জুলাই, ২০১৮, ১২:০৩ এএম

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেছেন, বাবাই ছিলেন আমার শিক্ষক। পিতাকে হারিয়ে মনে হয়, আমার ওপর ছায়াও চলে গেছে। বুধবার সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির শফিউর রহমান মিলনায়তনে প্রধান বিচারপতির বাবা সৈয়দ মোস্তফা আলীর স্মরণ সভায় তিনি এসব কথা বলেন। প্রধান বিচারপতির বাবার জন্য দোয়া কামনা করে বুধবার বাংলাদেশ জাতীয় আইনজীবী সমিতি এ মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করে।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেন, আজকে আপনারা এ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে আমার প্রতি যে সহানুভূতি দেখালেন সেটা আজীবন স্মরণ থাকবে। তিনি বলেন, প্রত্যেক সন্তানের কাছেই তার পিতার মৃত্যু খুবই কষ্টের। পিতা বেশি বয়সে মারা যেতে পারে কিন্তু তারপরও পিতার মৃত্যু সন্তানের জন্য কষ্টকর।
অনুষ্ঠানে সিনিয়র আইনজীবী ড. কামাল হোসেন বলেন, সৈয়দ মোস্তফা আলী ছিলেন সবচেয়ে ভাগ্যবান একজন আইনজীবী। তিনি বেঁচে থেকে দেখে গেলেন তার এক সন্তান দেশের প্রধান বিচারপতি। একজন আইনজীবীর এর থেকে বেশি কিছু পাওয়ার নেই। নিজের সন্তানকে দেশের প্রধান বিচারপতি হিসেবে দেখে যাওয়া এর থেকে সৌভাগ্যের আর কী থাকতে পারে। অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, প্রধান বিচারপতির বাবার জীবন স্বার্থক। তিনি সুস্থভাবে বেঁচেছিলেন।
বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন বলেন, সেই ই সফল পিতা যিনি তার সন্তানকে সঠিকভাবে লালন পালন করে প্রতিষ্ঠিত করে। তার সন্তানেরা আজ প্রতিষ্ঠিত। এটাই প্রমাণ করে তিনি একজন সফল পিতা।
দোয়া মাহফিলে আরও বক্তব্য দেন- সিনিয়র আইনজীবী ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলাম, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি জয়নুল আবেদীনসহ সিনিয়র আইনজীবীরা। এছাড়া দোয়া মাহফিলে অংশ নেন আপিল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতিরা এবং আইনজীবীরা। পরে তার মরহুম পিতার জন্য দোয়া কামনা করে।######

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রধান বিচারপতি

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
৮ ডিসেম্বর, ২০১৮

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ