Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৫ এপ্রিল ২০১৯, ১২ বৈশাখ ১৪২৬, ১৮ শাবান ১৪৪০ হিজরী।

আমরা কোন ভাল কাজ করলেই একটি মহল তা নিয়ে আতংক সৃষ্টি করে - প্রধানমন্ত্রী

পাবনা থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৪ জুলাই, ২০১৮, ৪:৫৬ পিএম | আপডেট : ৭:৫২ পিএম, ১৪ জুলাই, ২০১৮

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রূপপুর পারমাণবিক কেন্দ্রের দ্বিতীয় ইউনিটের প্রথম কংক্রিট পোরিং ডেট (এফসিডি) ঢালাই ও উদ্বোধন পরবর্তী প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলছেন, আমারা যখনই কোন ভাল কাজ করি, একটি মহল আছে যারা আতংক সৃষ্টি করে। রূপপুর পারমাণবিক বিদ্য প্রকল্প নিয়ে আতংকিত হওয়ার কিছু নেই। আজ ১৪ জুলাই দুপুর ১টা ১০ মিনিটে তিনি রূপুপর পারমাণবিক প্রকল্প কেন্দ্রের উদ্বোধনী মঞ্চে তাঁর ভাষণ শুরু করেন । প্রায় ২০ মিনিটের ভাষণে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিগত পাক আমলে রূপপুর পারমাণবিক কেন্দ্রের কোন কাজের অগ্রগতি হয়নি। বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করার পর জাতির জনক রূপপুর পারমাণবিক কেন্দ্র গড়ে তোলার স্বপ্ন দেখেন। মাত্র সাড়ে ৩ বছর যুদ্ধ বিধ্বস্ত বাংলাদেশেকে গুছিয়ে নিয়ে তার সময়ে দেশ ৭% প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে সক্ষম হয়েছিল। তিনি জাতির পিতা এবং জাতীয় চারনেতা ও মুক্তিযোদ্ধার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে বলেন, ভারত ও তৎকালীন সোবিয়েট রাশিয়া আমাদের স্বাধীনতা যুদ্ধে অকৃত্রিম সহযোগিতা দিয়েছিল। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর পাকিস্তানী বাহিনীর মাইন পোঁতা ছিল চট্টগ্রামে । এটি রাশিয়া অপসারণ কওে দেয়। এ সময় তাদের কয়েকজন মৃত্যু বরণ করেন। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক মন্ত্রী ইয়াফেস ওসমানের সভাপতিত্বে এই উদ্বোধনী সভায় প্রধান মন্ত্রী আরও বলেন, আমার ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কাজ এগিয়ে নিয়ে যাই। ২০০১ সালে আমারা ক্ষমতায় না আসার কারণে এই কাজ থেমে যায় । এরপর ক্ষমতায় এসে আন্তর্জাতিক রিদিনীতি মেনে এই কাজে হাত দেই । সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট মি: পুতিন। বর্তমানে বাংলাদেশে ১৯ হাজার মেগা ওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হচ্ছে। ৯৩ ভাগ মানুষ বিদ্যুৎ সুবিধা পাচ্ছে। পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প চালু হলে বিদ্যুৎ-এর ঘাটতি থাকবে না। এই অনুষ্ঠানে রাশান উপ-প্রধানমন্ত্রী ইউরি ইভানোভিচ বোরিসভ , আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থার (আইএইএ) পরিচালক দোহি হ্যান এবং বাংলাদেশে এটমিক কমিশনের প্রধান বক্তব্য রাখেন। এ সময় কৃষি মন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, বাণিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ এম.পি, সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা: দীপু মনি, মন্ত্রী পরিষদের সদস্য এবং অন্যান্য আসনের এমপিরা উপস্থিত ছিলেন । এদিকে, আজ সকালে এই প্রথম জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন ২০১৮ (১ম রাউন্ড) পাবনা ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে উদ্বোধন করেন , স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। বিশেষ অতিথি ছিলেন, পাবনা সদর এম.পি গোলাম ফারুক প্রিন্স । সভাপতি করেন , স্বাহ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব হাবিবুর রহমান খান। ডা: আনানের সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন, পাবনার সিভিল সার্জন ডা: মো: তাহাজ্জেল হোসেন ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ