Inqilab Logo

শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ১৫ মাঘ ১৪২৮, ২৫ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

রাজাপুরে সাংবাদিক আলতাফ এর লাশ ৪ বছর পর কবর থেকে কঙ্কাল উত্তোলন

রাজাপুর ( ঝালকাঠি) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৬ জুলাই, ২০১৮, ৮:৩৫ পিএম | আপডেট : ১২:০৯ এএম, ১৭ জুলাই, ২০১৮


ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর উপজেলার কানুদাসকাঠি গ্রামের মৃত তাছেন উদ্দিনের পুত্র ও বিটিভির সিনিয়র ক্যামেরাম্যান সাংবাদিক আলতাফ হোসেন মরদেহ দাফনের ৪ বছর পরে কবর থেকে কঙ্কাল ১৬ জুলাই সোমবারর দুপুরে রাজাপুর থানা পুলিশ কানুদাসকাঠি পারিবারিক কবর থেকে পুলিশ উত্তোলন করেছে। ঝালকাঠি জেলা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আদালত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো: সাখাওয়াত হোসেন এর নেতৃত্বে আলতাফের মরদেহ উত্তোলন করেছে। এ সময় রাজাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক মোঃ আসাদুজ্জামান, অফিসার ইন চার্জ মোঃ শামসুল আরেফিন, ওসি (তদন্ত) হারুন অর রশিদ। আলতাফ হোসেন’র স্ত্রী ছবি আক্তার সাবিনা সহ সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। মামলার বাদী নিহতের ২য়, স্ত্রী ছবি আক্তার সাবিনা ঝালকাঠি জেলা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আদালত এমপি মামলা ১০০/১৭ দায়ের করেন, তাতে বাদী উল্লেখ করেন স্বামী আলতাফ হোসেন সাথে২৭/৭/২০১১ বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। এক সময় বাদী সন্তান সম্ভাব্য হয়,সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার পূর্বেই তার স্বামীকে একটি কুচক্রী মহল জমি জমা আত্মসাতের জন্য মেরে ফেলেছে। -বাদী ২য়স্ত্রী তার স্বামী আলতাফকে ১ম স্ত্রী লাইজু আক্তার(৩০) ৪ সন্তানের জননী তাকে জমিজমা থেকে বঞ্চিত করার জন্য যোগসাজশে স্বামীকে মেরে ফেলেছে। কারণ বিবাহ করার পর থেকে তার স্বামীকে ১ম স্ত্রী র সাথে বিরোধ ছিল যা সাবিনার জানা ছিল না।
হঠাৎ ২০১৪ সালের ৬ মার্চ মারা যায় বলে খবর পায়। রাজাপুরে তার স্বামীর মরদেহ আসামীরা ঢাকা থেকে নিয়ে আসে এবং ৭ মার্চ সকাল ৮ টায় নিয়ে এসে ৯ টার মধ্যেই তাড়াহুড়া করে বাড়িতে জানাজা ও দাফন সম্পন্ন করে।আমি মৃতের কারণ জানতে চাইলে অসুস্থ হয়ে মারা যাওয়ার কথা জানায় আসামীরা।
পরে বাদী স্বামীর মৃত্যু রহস্য জনক মনে হলে তিনি বিগত ১৫ জুলাই-১৮ আদালতে বিষয়টি অবহিত করার পর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সেলিম রেজা আলতাফ হোসেনে’র আদালতে ৯ জনকে আসামী করে নালিশী মামলা নং১০০/১৭ দায়ের করলে বিজ্ঞ আদালত মরদেহ কবর থেকে উত্তোলন করে ডিএনএ পরীক্ষার জন্য নির্দেশ দেন। মামলার বাদী ছবি আক্তার সাবিনা আর ও জানান, তার স্বামীকে হত্যা করেছে। এর পর থেকে তাকে ও তার সন্তানকে নানাভাবে হত্যার ষড়যন্ত্র করছে আসামীরা। তাঁদের কারণে স্বাভাবিক জীবনযাপনও করতে পারছি না।
তারা চরম নিরাপত্তাহীনতায় আছে বলে জানায়। এ ব্যাপারে রাজাপুর থানায় একটি হত্যা মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। মামলা নং ৭ ধারা ৩০২/৩৪ পেনাল কোট। আলতাফের কঙ্কাল(লাশ) ঝালকাঠি মর্গে প্রেরণ করেছে পুলিশ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রাজাপুরে সাংবাদিক আলতাফ
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ