Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২০ আগস্ট ২০১৮, ০৫ ভাদ্র ১৪২৫, ০৮ যিলহজ ১৪৩৯ হিজরী‌

গণতন্ত্র আছে বলেই বিএনপি অগণতান্ত্রিক ভাষায় কথা বলতে পারছে: ওবায়দুল কাদের

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৭ জুলাই, ২০১৮, ১২:৩৯ এএম

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, দেশে গণতন্ত্র আছে বলেই বিএনপি নেতারা অগণতান্ত্রিকভাবে অশ্রাব্য ভাষায় কথা বলতে পারছে। গতকাল সোমবার মহানগর নাট্যমঞ্চে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার কারাবন্দী দিবস উপলক্ষে যুবলীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি বলেন, বাংলাদেশে যদি গণতন্ত্র না থাকতো, তাহলে বিএনপির নেতারা প্রকাশ্য অগণতান্ত্রিক, অশ্রাব্য ভাষায় শেখ হাসিনা ও তার সরকারকে গালি-গালাজ করতে পারতো না। এসব অশ্রাব্য মিথ্যাচার করার পরও পল্টন অফিসের সাংবাদিক সম্মেলন বন্ধ করেনি, পুলিশ হস্তক্ষেপ করেনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, তারা (বিএনপি) যেখানে ইচ্ছা বক্তব্য দিচ্ছেন। সরকারের বিরুদ্ধে অগণতান্ত্রিক ভাষায় কথা বলেও তারা বলছে দেশে গণতন্ত্র নাই। টকশো গিয়ে তাদের নেতারা যে ভাষায় ব্যবহার করেন, এখানে আমরা বিরোধী দলে থাকলে টকশো করার পর তারা রাস্তায় আটকাতো। আমরা তা পারি না। তারা স্বাধীনভাবে কথা বলছেন, তারপরও তারা বলছেন দেশে গণতন্ত্র নাই।
যুবলীগ নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য তিনি বলেন, রাজনীতিতে লেগে থাকুন, পরিশ্রম করুন, দলের জন্য কষ্ট করুন, ত্যাগ করুন তা বৃথা যাবে না। শেখ হাসিনা যতদিন আছে, ত্যাগী কর্মীদেরও ততদিন মূল্যায়ন আছে। কেউ দুইদিন আগে পাই, কেউ দুইদিন পরে পাই। এতে হতাশা কারো মধ্যে যেন না পায়। আমাকে দিয়েই চিন্তা করুন।
আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, এজন্য শেখ হাসিনাকে আমরা শ্রদ্ধা করি, হৃদয় থেকে ভালোবাসি। অন্যদলে নেতারে অনুপস্থিতিতে নিয়ে কানাঘুষা আছে, সমালোচনা আছে। নেতার পথ নিয়ে ভিন্নমত আছে। কিন্তু আওয়ামী লীগ শেখ হাসিনার নেতৃত্ব অটল ও অবিচল। জাতীয় নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশী যুবলীগ নেতাদের উদেশ্যে তিনি বলেন, সব জনমত জরিপ শেখ হাসিনার কাছে জমা আছে। আপনাদের মধ্যে কেউ যদি নির্বাচনের জেতার মতো যোগ্যতা অর্জন করলে বঞ্চিত হবে না।
যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ, সভাপতিমন্ডলীর সদস্য শহীদ সেরনিবায়াত, মুজিবুর রহমান চৌধুরী, প্রকাশনা সম্পাদক ইকবাল মাহমুদ বাবলু, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সভাপতি ইসমাঈল হোসেন চৌধুরী সম্রাট প্রমুখ। ###



 

Show all comments
  • Shahdat Hossain ১৭ জুলাই, ২০১৮, ২:২৬ এএম says : 0
    মিটিং মিছিল এবং জনগণের কথা বলার স্বাধীনতা দেশে এখন নাই। তাহলে গণতন্ত্র থাকলো কোথায়?
    Total Reply(0) Reply
  • Shahalam Bhuyain ১৭ জুলাই, ২০১৮, ২:২৭ এএম says : 0
    No need such type of Democracy.
    Total Reply(0) Reply
  • MD Alomgir Hossin ১৭ জুলাই, ২০১৮, ২:২৭ এএম says : 0
    তাহলে এবার সংবাদ সন্মেলন বন্ধ করার চিন্তা আছে?
    Total Reply(0) Reply
  • বৃষ্টি ১৭ জুলাই, ২০১৮, ২:২৫ এএম says : 0
    গণতন্ত্র!!!!!! সেটা আবার কি???? এটা কই পাওয়াযায়?? নিশ্চয় বইয়ের পাতায় আর সংবিধানের পাতায়!!
    Total Reply(0) Reply
  • Desh Premik Shoinik//দেশ প্রেমিক সৈনিক ১৭ জুলাই, ২০১৮, ১১:১১ এএম says : 0
    তাঁর আগে শুধু একবার গণতান্ত্রিক উপায়ে নির্বাচন করে ক্ষমতায় এসে এ কথা বলার যোগ্যতা অর্জন করো বাজান!!!
    Total Reply(0) Reply
  • Ahmed ১৭ জুলাই, ২০১৮, ১১:২৮ এএম says : 0
    আমাদের গণতন্ত্র বুড়া হয়ে গেছে !!!
    Total Reply(0) Reply
  • Nannu chowhan ১৭ জুলাই, ২০১৮, ৪:০৯ পিএম says : 0
    Eai rokom gontontro prithibir itihashe kothao paowa jachsena tobe dictatorial proshashone paowa jete pare....
    Total Reply(0) Reply
  • Kibria ১৭ জুলাই, ২০১৮, ৪:১২ পিএম says : 0
    khomota apnader kache ache boley apnara ka iccha ta korchen ar bolchen. Mone rakhben er jobar jonogoner kache na den Allahr kache dite hobe ekdin........
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammad sHAFIUL Quader ২০ জুলাই, ২০১৮, ৪:৪৭ পিএম says : 0
    VOTE DAKATI KOR JAL VOTER MADDHOME KHOMOTAI ESHE. AUNNANNO DOLER NETA KORMIDER JAIL ER MODDHE BONDI REKH JAL VOT ER MADDHOME KHOMOTAI ASHA..
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ