Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ আগস্ট ২০১৮, ০৬ ভাদ্র ১৪২৫, ০৯ যিলহজ ১৪৩৯ হিজরী‌

জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি

ইহুদি জাতি রাষ্ট্র আইনের অনুমোদন ইসরাইলি পার্লামেন্টের

ইনকিলাব ডেস্ক : | প্রকাশের সময় : ২০ জুলাই, ২০১৮, ১২:০৩ এএম

বহুল বিতর্কিত একটি বিলকে আইনে পরিণত করেছে ইসরাইলি পার্লামেন্ট। এতে ইসরাইলকে একটি ব্যতিক্রমী ইহুদি রাষ্ট্র বলে বর্ণনা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার পার্লামেন্ট ‘জিউস নেশন স্টেট’ বিলটিকে অনুমোদন করে। এতে সরকারি ভাষা হিসেবে আরবিকে অবনমন করা হয়। এতে আরো বলা হয়, অগ্রগামী ইহুদি বসতি স্থাপন হলো জাতীয় স্বার্থ। শুধু তা-ই নয়, একই সঙ্গে পুরো জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে এই বিলে। এমন ঘটনায় তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে ইসরাইলি আরব এমপিদের মধ্যে। তারা এর তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। কিন্তু তাদের মন্তব্যের কোনো তোয়াক্কাই করেন নি ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। তিনি এ সময়টিকে আত্মপরিচয়ের মুহূর্ত বলে অভিহিত করেছেন। এ বিলটিতে সমর্থন দিয়েছে দেশটির ডানপন্থি সরকার। এতে বলা হয়েছে, ইসরাইল হলো ইহুদিদের ঐতিহাসিক জন্মভূমি। এর ভিতরে তাদের আত্মপরিচয় নির্ধারণের বিশেষ অধিকার আছে। ইসরাইলের পার্লামেন্ট নেসেটে এ বিল নিয়ে ঝড়ো বিতর্ক হয়। আট ঘন্টারও বেশি সময় এ বিতর্ক হলেও বিরুদ্ধে যারা ছিলেন তারা বিলটিকে আটকাতে পারেননি। প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু বিল অনুমোদনের ঘটনার প্রশংসা করে একে ‘বাঁকবদলের মুহূর্ত’ হিসেবে অ্যাখ্যা দিয়েছেন। নেতানিয়াহু নেতৃত্বাধীন ডানপন্থি সরকার সমর্থিত বিলটিতে ইসরাইলকে ‘ইহুদিদের ঐতিহাসিক জন্মভূমি’ হিসেবে অভিহিত করা হয়েছে। বলা হয়েছে, ইহুদিরা ইসরাইলের জাতিগত আত্মনিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রেও বিশেষ অধিকার রাখেন। আট ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে চলা ঝড়ো অধিবেশনের পর ইসরাইলি পার্লামেন্ট নেসেটে বিলটি ৬২-৫৫ ভোটে অনুমোদিত হয় বলে বিবিসি খবরে বলা হয়েছে। প্রেসিডেন্ট ও অ্যাটর্নি জেনারেলের আপত্তিতে বিলটির প্রাথমিক খসড়া থেকে বেশ কয়েকটি ধারা বাদ দেওয়া হয়েছে; ধারাগুলোর একটিতে বিভিন্ন আইনে ‘কেবলমাত্র ইহুদি সম্প্রদায় সৃষ্টিতে’ বিধান সন্নিবেশিত করার কথা বলা হয়েছিল। ইসরাইলের মোট জনসংখ্যা ৯০ লাখ। এদের প্রায় ২০ শতাংশ আরব, যাদের অধিকাংশই সুন্নি মুসলমান; বাকিরা খ্রিস্টান ও দ্রæজ। রয়টার্স।



 

Show all comments
  • পারভেজ ২০ জুলাই, ২০১৮, ২:৫৮ এএম says : 1
    এই আইনের পরিণত ইসরাইলকে ভোগ করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর