Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ আগস্ট ২০১৮, ০৬ ভাদ্র ১৪২৫, ০৯ যিলহজ ১৪৩৯ হিজরী‌

নাগরিক সংলাপে আ.লীগ-বিএনপি

বরিশাল ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২১ জুলাই, ২০১৮, ১২:০১ এএম

বরিশাল সিটি নির্বাচনের ফলাফল যাই হোক, ভোটের পরে নগরীতে রাজনৈতিক সহাবস্থান ও শান্তিপূর্ন পরিবেশ অব্যাহত থাকবে। সিটি নির্বাচন উপলক্ষে আয়োজিত বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের নাগরিক সংলাপে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতৃবৃন্দ এমন প্রতিশ্রæতি দিয়েছেন গতকাল নগরীর একটি বিলাসবহুল হোটেল মিলনায়তনে। সংলাপে প্যানেল আলোচক ছিলেন বিএনপি কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বিলকিস আক্তার জাহান শিরিন ও উত্তর জেলা সভাপতি মেজবাহ উদ্দিন ফরহাদ এবং আওয়ামী লীগ মহানগর সভাপতি গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলাল ও সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট আফজালুল করীম।
নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি, স্থানীয় রাজনৈতিক কর্মী এবং সাংবাদিকরা এ সংলাপে অংশগ্রহন করেন। তারা নগর উন্নয়নে ৫টি প্রধান ইস্যু সহ বিভিন্ন সুপারিশ উপস্থাপন করেন। আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতৃবৃন্দ তাদেরকে আশ্বস্ত করে বলেন, তাদের দলীয় মেয়র প্রার্থী নির্বাচিত হলে সংলাপে উপস্থাপন করা উন্নয়ন কাজগুলো বাস্তবায়ন করবেন। বরিশাল নগরী আধুনিক, পরিচ্ছন্ন ও বাসযোগ্য গড়ে তুলতে সংলাপে নাগরিক প্রতিনিধিরা সুপারিশগুলো উপস্থাপন করেন। সুপারিশগুলোর মধ্যে ফুটপাত সহ উন্নত সড়ক যোগযোগ ও পর্যাপ্ত পয়ঃনিষ্কাশন, আধুনিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, নারী ও পুরুষের জন্য স্বাস্থ্য সম্মত টয়লেট নির্মান, দখলকৃত ও ভরাট হয়ে যাওয়া নদী তীর ও খালগুলো পুনরুদ্ধার করে পানিবদ্ধতা দূরীকরণ, নদী ও খাল খনন করা, পলিথিন ও প্লাস্টিক ব্যাগ ব্যবহার নিষিদ্ধকরন, মাদক ব্যবসা বন্ধ, সাংস্কৃতিক কেন্দ্র, খেলার মাঠ নির্মাণ, নিয়মিত ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন, নারীর জন্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার, নিরাপদ নগর পরিবহন নিশ্চিত করা, নারী উদ্যোক্তাদের জন্য বাজার, হোস্টেল, শিশুদের জন্য দিবা যত্ম কেন্দ্র স্থাপন এবং কম হারে ট্রেড লাইসেন্স ইস্যু প্রভৃতি।
আইন-শৃংখলা নিয়ন্ত্রনে বিশেষ ব্যবস্থা
বরিশাল সিটি নির্বাচনের আগের দ্বিতীয় জুমাতেও প্রার্থীরা ছিলেন মসজিদমুখি। নির্বাচনের দিন পুরো নগরীর আইন-শৃংখলা নিয়ন্ত্রনে রাখতে বিপুল সংখ্যক পুলিশ, আনসার, বিজিবি, আর্মড পুলিশ ব্যাটেলিয়ান ও র‌্যাব মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। নগরীতে ভোটের দিন ১ হাজার ৮শ পুলিশ ও ১হাজার ৭শ আনসার মোতায়েন থাকবে ১৩২টি কেন্দ্রে। এছাড়াও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেদের তত্বাবধানে ১০প্লাটুন বিজিবি এবং প্রায় সম সংখ্যক আর্মড পুলিশ ব্যাটেলিয়ান ও র‌্যাব সদস্যরা টহলে থাকবে। গতকাল মহাজোট প্রার্থী সাদিক আবদুল্লাহ বরিশাল শের এ বাংলা মেডিকেল কলেজ মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করেন। পরে বরিশাল কেন্দ্রীয় মুসলিম গোরস্থানে একটি দাফন কার্যেও শরিক হন। সাদিক আবদুল্লাহ গতকালও নগরীর ১৫, ১৯ ও ২০ নম্বর ওয়ার্ডে কর্মীদের নিয়ে গনসংযোগ করেন।
২০ দলীয় জোট প্রার্থী মুজিবুর রহমান সারোয়ার গতকাল নগরীর আলেকান্দা এলাকায় নুরিয়া স্কুল জামে মসজিদে জুমার নামাজ আদায় শেষে এক জনের নামাজে জানাজায় অংশ নেন। এছাড়াও তিনি নগরীর বেশ কয়েক স্থানে পথসভায় বক্তব্য রাখার পাশাপাশি ব্যাপক গনসংযোগ করেন। গত দুদিন সারোয়ারের পক্ষে নগরীতে মাইকযোগে প্রচারনা, লিফলেট বিতরন ও বাড়ী বাড়ী গিয়ে প্রচারনায় কিছুটা গতি লক্ষ করা গেছে।
এদিকে জাতীয় পার্টির বিদ্রোহী প্রার্থী বশির আহমদ ঝুনুকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ঝুনু মেয়র পদে নির্বাচন করছেন। জাপার মূল প্রার্থী ইকবাল হোসেন তাপসও গতকাল নগরীর বিভিন্ন এলাকায় গনসংযোগে অংশ নিয়েছেন।
ইসলামী আন্দোলন প্রার্থী হজরত মওলানা ওবাইদুল্লাহ মাহবুব গতকাল মাহমুদিয়া মাদ্রাসা মসজিদে জুমার নামাজে খুৎবা প্রদান ও ইমামতি করেন। নামাজ বাদ তিনি সেখানে বক্তব্যও রাখেন। এছাড়া ইসলামী আন্দোলন প্রার্থী গতকাল নগরীর মহাবাজ, কেডিসি বস্তি এলাকা এবং হাটখোলা এলাকায় গনসংযোগের পাশাপাশি বিকেলে টাউনহল প্রাঙ্গন ও ভাটিখানায় দুটি পথসভায় বক্তব্য রাখেন। এসব পথসভায় ইসলামী আন্দোলনের আমীর হজরত মাওলনা সৈয়দ মোঃ রেজাউল করিম পীর ছাহেব চরমোনাই ও নায়েবে আমীর হজরত মাওলানা সৈয়দ ফয়জুল করিমও বক্তব্য রাখেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর