Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৫ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী

২২৭ কোটি টাকার কয়লা উধাও

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২২ জুলাই, ২০১৮, ১২:০১ এএম

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি থেকে উত্তোলন করে রাখা ১ লাখ ৪২ হাজার টন কয়লা যার মুল্য ২২৭ কোটি টাকা উধাও হয়েগেছে। একই সঙ্গে খনির ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী হাবিব উদ্দিন আহমদকে অপসারণ ও মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন ও কোম্পানি সচিব) আবুল কাশেম প্রধানিয়াকে বদলি করা হয়েছে। কয়লার গরমিলের ঘটনায় পেট্রোবাংলার পরিচালক (মাইন অপারেশন) মো. কামরুজ্জামানকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। গতকাল পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মো. ফয়েজ উল্লাহ ইনকিলাবকে কমিটি গঠনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
উত্তোলনযোগ্য কয়লার মজুদ শেষ হয়ে যাওয়ায় ১৬ জুন থেকে বড়পুকুরিয়া খনির কয়লা উৎপাদন বন্ধ রয়েছে। পুনরায় কয়লা উত্তোলন শুরু হবে আগস্ট মাসের শেষে। এ সময়ের মধ্যে পার্শ্ববর্তী বড়পুকুরিয়া কয়লাভিত্তিক ৫২৫ মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতার তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রটি চালু রাখার জন্য প্রয়োজনীয় কয়লার মজুদ রয়েছে বলে ইতিপূর্বে কয়েক দফা পিডিবিকে নিশ্চিত করে খনি কর্তৃপক্ষ। কিন্তু খনি কর্তৃপক্ষ তিন-চারদিন আগে পিডিবিকে জানিয়ে দেয় খনির কোল ইয়ার্ডে কয়লার মজুদ প্রায় শেষ পর্যায়ে বিদ্যুৎ কেন্দ্রে আর বেশিদিন কয়লা সরবরাহ করা সম্ভব হবে না। সেইসঙ্গে বিদ্যুৎ কেন্দ্র কয়লা সরবরাহ কমিয়ে দেয়। বর্তমানে প্রতিদিন মাত্র ৮শ’ থেকে ১ হাজার টন কয়লা সরবরাহ করা হচ্ছে। তা দিয়ে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের তিনটি ইউনিটের মধ্যে একটি ইউনিট চালু রাখা হয়েছে এবং উৎপাদন কমে দাঁড়িয়েছে ১৪০ মেগাওয়াটে। কয়লার অভাবে চার-পাঁচদিনের মধ্যে বড়পুকুরিয়া ৫২৫ মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতার বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যাবে বলে জানা গেছে। খনি কর্তৃপক্ষের হিসাবে কোল ইয়ার্ডে কয়লা থাকার কথা প্রায় দেড় লাখ টন। কিন্তু বাস্তবে শুক্রবার পর্যন্ত ছিল মাত্র পাঁচ থেকে ছয় হাজার টন কয়লা। এক লাখ ৪২ হাজার টন কয়লার কোনো হদিস নেই।
নাম না করার শর্তে এক কর্মচারী জানান, হাবিব উদ্দিন আহমদ ও আবুল কাশেম প্রধানিয়াসহ চার কর্মকতারা দীর্ঘ দিন ধরে ভারতে এসব কয়লা বিক্রি করে আসছে। এদের চুরির ঘটনা সঠিক তদন্ত করলে অনেক তথ্য বের হয়ে আসবে। কয়লার অভাবে বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রটি বন্ধ হওয়ার দ্বারপ্রান্তে উপনীত হওয়ায় পেট্রোবাংলা ও খনি কর্তৃপক্ষের টনক নড়ে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে পেট্রোবাংলা এক অফিস আদেশে খনির মহাব্যবস্থাপক (মাইন অপারেশন) নুরুজ্জামান চৌধুরী ও উপ-মহাব্যবস্থাপক ( স্টোর) খালেদুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত করে চিঠি দেয়।
এছাড়া ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী হাবিব উদ্দিন আহমদ অপসারণ করে পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যানের দফতরে সংযুক্ত করা হয় এবং মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন ও কোম্পানি সচিব) আবুল কাশেম প্রধানিয়াকে পশ্চিমাঞ্চল গ্যাস কোম্পানি লিমিটেড সিরাজগঞ্জে বদলি করা হয়। বড়পুকুরিয়া খনির ব্যবস্থাপনা পরিচালকের (অতিরিক্ত দায়িত্ব) দায়িত্ব দেয়া হয়েছে পেট্রোবাংলার পরিচালক আইয়ুব খানকে। দায়িত্বে অবহেলার কারণেই এই চারজনের বিরুদ্ধে এরকম শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিসিএমসিএল-এর এক কর্মকর্তা।
ক্যাবের জ্বালানি উপদেষ্টা অধ্যাপক শামসুল আলম বলেন, কয়লা চুরির মতো ঘটনায় এর সাথে সংশ্লিষ্টরাই জড়িত রয়েছে। সরকার যদি বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা না নেয় তাহলে একটা সময় এটি ভয়ংকর আকার ধারণ করবে। এটি দেশের জ্বালানি খাতের অশনিসংকেত।



 

Show all comments
  • Mohibbul Islam Muhib ২২ জুলাই, ২০১৮, ৮:২৭ এএম says : 0
    শাস্তিমূলক ব্যবস্থা পরে আগে কয়লার টাকার হিসাব চাই
    Total Reply(0) Reply
  • Jahirul Alam Jahir ২২ জুলাই, ২০১৮, ৮:৩০ এএম says : 0
    শেয়ার বাজার । ব্যাংক । সোনা । কয়লা ।এই গুলা তো সব গেল আর কী বাকী আছে ?
    Total Reply(0) Reply
  • Owhab Pramanik ২২ জুলাই, ২০১৮, ৯:১৩ এএম says : 0
    বাংলাদেশ আছে এটাই আমাদের পরম পাওয়া।
    Total Reply(0) Reply
  • Salik Ahmed ২২ জুলাই, ২০১৮, ১১:০৮ এএম says : 0
    এমডি আর জি এম কে প্রত্যাহার করে চোরদের বাঁচানোর পাঁয়তারা করছে ।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Kamrul Hassan ২২ জুলাই, ২০১৮, ১১:১০ এএম says : 0
    দেশে কি শুরু হয়েছে এইসব??? হিসাব তো একদিন দিতে হবে, আল্লাহ পাক একজন আছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Sazzat Badhan ২২ জুলাই, ২০১৮, ১১:২৫ এএম says : 0
    এগুলো ভালো লক্ষণ না, অনতিবিলম্বে তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জোর দাবী জানাচ্ছি।
    Total Reply(0) Reply
  • Mia uzzal ২২ জুলাই, ২০১৮, ১১:২৬ এএম says : 0
    মানুষ গুম,সোনা গুম,কয়লা গুম,ব্যাংকের টাকা গুম,মানুষের ভোট দেওয়ার গুম,সত্যি কথা বলার অধিকার গুম আর কিছু কি বাকী আছে গুম হবার?
    Total Reply(0) Reply
  • Aminul Amin ২২ জুলাই, ২০১৮, ১১:২৭ এএম says : 0
    এভাবে এদেশে হচ্ছে আমানতের খেয়ানত ব্যাংক সহ সব sector এ।
    Total Reply(0) Reply
  • Bulbul Hossain ২২ জুলাই, ২০১৮, ১১:২৯ এএম says : 0
    ১/২দিন পরে হয়তো শুনবো, কয়লার জায়গায় কয়লা ঠিকই আছে,, এটা বিরোধী দলের ষড়যন্ত্র!
    Total Reply(0) Reply
  • faruq ২২ জুলাই, ২০১৮, ১২:৫১ পিএম says : 0
    Must put them in jail not transfer.must change all ......... systems.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ