Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৪ আগস্ট ২০২০, ২০ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৩ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

বিশ্বকাপের একটি ভেন্যু পাচ্ছে জাতীয় স্টেডিয়ামের স্বীকৃতি

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ জুলাই, ২০১৮, ১২:০৩ এএম

 

এবারের বিশ্বকাপে রাশিয়ার ১১টি শহরের ১২ স্টেডিয়ামে খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই ভেন্যুগুলোর মধ্যে ছয়টি একেবারেই নতুন। যা বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যেই নির্মাণ করা হয়েছে। বাকি ছয়টি সংষ্কারকৃত। ১২টির মধ্যে ছয়টি রাশিয়ান প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবগুলোর হোম ভেন্যু। জানা গেছে, বিশ্বকাপের যে কোন একটি ভেন্যুকে রাশিয়ার জাতীয় স্টেডিয়াম হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। দেশটির সরকারী পর্যায়ের সিদ্ধান্ত বিশ্বকাপের ১২টি ভেন্যুই রাশিয়ান ফুটবলের কাজে ব্যবহার করা হবে।
রাশিয়া প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের ইচ্ছা- বিশ্বকাপের জন্য নির্মিত ও সংষ্কারকৃত স্টেডিয়াগুলো মূলত ফুটবলের জন্যই ব্যবহৃত হবে। এগুলোতে কনসার্ট হল কিংবা প্রদর্শনী কেন্দ্র হিসেবে পরিবর্তন করা হবে না।
কোন বড় ধরনের বিপদ বা নিরাপত্তাজনিত কোন দুর্ঘটনা ছাড়াই এবার রাশিয়ার ১১টি শহরে সফলভাবে শেষ হয়েছে বিশ্বকাপ ফুটবল আসর। এ সফলতায় সারা বিশ্বের কোটি কোটি ফুটবল ভক্ত ও বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রণ সংস্থা ফিফা রাশিয়ার ভূয়শী প্রশংসা করেছে। এখন রাশিয়ার সামনে সময় এসেছে ব্যবহৃত ভেন্যু ও অবকাঠামোগুলো সঠিক ভাবে ব্যবহারের। কালিনিনগ্রাদে সরকারী ও ক্রীড়া বিষয়ক কর্মকর্তাদের সঙ্গে মিলিত হয়ে এক আলোচনা সভায় পুতিন বলেন, ‘ অন্তত আরো পাঁচ বছর পরে বিশ্বকাপের এই ভেন্যুগুলো যাতে স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারে সেজন্য আর্থিক সহায়তা দিয়ে যাবে রাশিয়ান সরকার। বিভিন্ন মতামতের ভিত্তিতে প্রদর্শনী, কনসার্ট, ট্যুরিজম ও বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহারের যে আলোচনা হচ্ছে সেগুলো ঠিক আছে। কিন্তু আমি চাই প্রতিটি স্টেডিয়ামের যাতে নিজস্ব একটি ক্লাব থাকে, নাহলে এটিকে স্টেডিয়াম হিসেবে ব্যবহার করা যাবেনা।’
রাশিয়া যখন ২০১৮ বিশ্বকাপ আয়োজনের স্বত্ব লাভ করেছিল তখনই প্রেসিডেন্ট পুতিন ঘোষণা দিয়েছিলেন, বিভিন্ন ফুটবল ক্লাব যাতে তাদের হোম ভেন্যু হিসেবে পরবর্তীতে স্টেডিয়ামগুলো ব্যবহার করতে পারে সেটাই হবে তার মূল লক্ষ্য।
যদিও বিশ্বকাপে ব্যবহার করা কিছু কিছু স্টেডিয়াম এমন কয়েকটি শহরে নির্মিত হয়েছে যেখানে আর্থিক বিষয়টি একটি চ্যালেঞ্জ হয়ে দেখা দিতে পারে। কালিনিনগ্রাদ হচ্ছে লিথুনিয়া ও পোল্যান্ডের মাঝামাঝিতে অবস্থিত রাশিয়া একটি শহর। যেখানে ৩৫ হাজার ধারণক্ষমতা সম্পন্ন নতুন স্টেডিয়াম নির্মাণ করা হয়েছে। অথচ এই শহরের স্থানীয় ফুটবল দলটি রাশিয়ার দ্বিতীয় টায়ারে খেলে থাকে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন