Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৩ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী

নূরনবীর (সাঃ) অবমাননার প্রতিবাদে নেদারল্যান্ডের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করতে হবে -আওয়ামী ওলামা লীগ

কোরবানির পশুর হাট বৃদ্ধি করে স্পট নির্ধারণ বাতিল করুন

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ জুলাই, ২০১৮, ১২:০২ এএম


রাসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সালামের অবমাননার শাস্তি মৃত্যুদÐ, নেদারল্যান্ডের এমপি গিয়ার্ট ইউল্ডার্স কর্তৃক ব্যঙ্গচিত্র অঙ্কনের প্রতিযোগীতার আয়োজনের ঘোষণার প্রতিবাদ এবং কুরবানী বিরোধী চক্রান্তকারীদের প্রতিহত, কোরবানীর পশুর হাট বৃদ্ধি, নির্দিষ্ট স্থানে কুরবানী দেয়ার সিদ্ধান্ত না নেয়া, ইজারা প্রথা বাতিল করে এর টাকা সারাদেশে দুঃস্থ মুসলমানদের মধ্যে সরকারীভাবে কুরবানীর গোশত বিতরণ, ও সহ ১৩ দফা দাবীতে বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগ ও সমমনা ১৩ দল গতকাল সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে।
নেতৃবৃন্দ নেদারল্যান্ডের এমপি গিয়ার্ট উইল্ডার্স এর ফাঁসির দাবি জানিয়ে বলেন, সে হযরত মুহাম্মদ (সা:) এর ব্যঙ্গচিত্র প্রতিযোগিতা আয়োজনের ঘোষণা দিয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি দেশটি। তাই ঢাকাস্থ নেদারল্যান্ড রাষ্ট্রদূতের মাধ্যমে এরকম ন্যাক্কারজনক ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানাতে হবে এবং তাকে ফাঁসির দাবী করতে হবে।
নেতৃবৃন্দ বলেন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনার অজুহাতে প্রতিবছর স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের কুরবানী বিরোধী চক্রান্তকারীদের নির্দেশে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনসহ সারাদেশে সব সিটি কর্পোরেশন পবিত্র কুরবানীর উপর হস্তক্ষেপ করে আসছে। পশু জবাইয়ের স্থান নির্দিষ্ট করার অবাস্তব ও অগ্রহণযোগ্য নির্দেশনা জারী করে আসছে। যা এদেশের ৯৮ ভাগ জনগোষ্ঠী মুসলমানের ধর্মীয় স্বাধীনতার উপর হস্তক্ষেপের শামিল। শরীয়তের শর্ত-শরায়েত ছাড়া অন্য কোন ভাবেই কুরবানীর উপর হস্তক্ষেপ করা ধর্মীয় অবমাননা। কাজেই নির্দিষ্ট স্থানে কুরবানীর স্পট নির্ধারণ করার কোন সিদ্ধান্ত নেয়া যাবেনা। পরিচ্ছন্নতার জন্য সারাদেশে সকল সিটি কর্পোরেশনের লোকবল ও লজিষ্টিক সাপোর্ট বৃদ্ধি করতে হবে।
নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, ২ কোটি জনসংখ্যার ঢাকা মেগাসিটিতে কুরবানীর পশুর হাট বৃদ্ধি না করে আরো ৩টি হাট কমানো হয়েছে। গতবার এ সংখ্যা ছিলো ২৩টি এবার হয়েছে ২০টি। অথচ ঢাকাসহ সারাদেশে রাস্তাঘাটে পূজা মন্ডপ করা হচ্ছে। রাস্তা বন্ধ করে রথযাত্রার অনুষ্ঠানের মাধ্যমে যানজট ও জনদূর্ভোগ সৃষ্টি করা হয়। অথচ মুসলমানদের ওয়াজিব কুরবানীর বিষয়ে যানজটসহ বিভিন্ন অজুহাতে প্রতিটি এলাকায় পশুর হাট বৃদ্ধি না করে আরো কমানো সা¤প্রদায়িক সিদ্ধান্ত। পরিসংখ্যান অনুযায়ী ঈদুল আদ্বহা উপলক্ষে ঢাকায় ৩০ লাখ পশু কুরবানী হয়ে থাকে। সে অনুযায়ী মাত্র ২০টি পশুর হাটের প্রতিটি থেকে ১ লাখ ৫০ হাজার লোককে কুরবানীর পশু সংগ্রহ করতে হবে। যা অযৌক্তিক এবং অন্যায় সিদ্ধান্ত।
ওলামা লীগ নেতৃবৃন্দ বলেন, ওয়াজিব কুরবানী আদায় করতে হাতের নাগালে কুরবানীর পশু পাওয়া মুসলমানদের ধর্মীয় অধিকার। কুরবানীর মাঠের পাশেই পশুর হাট হওয়া সুন্নত। এতে জনদূর্ভোগ লাঘব হবে। তাই জনস্বার্থে এলাকাভিত্তিক কমপক্ষে দুই শত পশুর হাট বরাদ্দ করা দরকার। যানজটের অজুহাতে কুরবানীর পশুর হাট রাজধানীর বাইরে নেয়া বন্ধ করে কুরবানীর হাটের সময় ১০ দিন করতে হবে এবং কুরবানীর ঈদের ছুটি ১২ দিন দিতে হবে।
বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগের আলহাজ্জ মাওলানা মুহম্মদ আখতার হুসাইন বুখারীর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, আলহাজ্জ কাজী মাওলানা মুহম্মদ আবুল হাসান শেখ শরীয়তপুরী, সাধারণ সম্পাদক- বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগ, আলহাজ্জ হাফেজ মাওলানা মুহম্মদ আব্দুস সাত্তার, সভাপতি- সম্মিলিত ইসলামী গবেষণা পরিষদ, মাওলানা মুহম্মদ শওকত আলী শেখ ছিলিমপুরী, হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ আব্দুল জলিল, হাফেজ মাওলানা মোস্তফা চৌধুরী বাগেরহাটি, মাওলানা মুহম্মদ শোয়েব আহমেদ, মাওলানা মুহম্মদ আব্দুল গফুরসহ ১৩টি ইসলামী সমমনা সংগঠনের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ