Inqilab Logo

ঢাকা, রবিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ০২ পৌষ ১৪২৫, ৮ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

তামিম পেলেও সেঞ্চুরিবঞ্চিত সাকিব রেকর্ড জুটিতেও মিশে থাকলো আক্ষেপ

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ জুলাই, ২০১৮, ১২:১৮ এএম

টেস্টে হোয়াইটওয়াশে শুরু বাংলাদেশের ওয়েষ্ট ইন্ডিজ সফর। যেখানে মিশে আছে ইনিংসে ৪৫ রানে অলআউট হবার লজ্জাও। সেই ক্ষতে প্রলেপ দেবার সুযোগ পাওয়া বাংলাদেশ জ¦লে উঠলো প্রথম ওয়ানডেতেই। নিজেদের পছন্দের ফরম্যাটে ফিরেই স্বরূপে ফিরলেন তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসান। মাশরাফি বিন মুর্তজার বাংলাদেশও পেল রেকর্ড রানের জুটি। সেই হুটিতেই ওয়েস্ট ইন্ডিজে স্বাগতিকদের বিপক্ষে নিজেদের সর্বোচ্চ সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ (২৭৯/৪)।
এদিন গায়ানায় দু’জনের শুরুটা ছিল দুই রকম। নিজেকে পুরোপুরি গুটিয়ে রেখেছিলেন তামিম। প্রথম ২৪ বলে করেছিলেন মোটে ৪ রান। অন্যদিকে দ্বিতীয় ওভারে ক্রিজে আসার পর থেকে ঝুঁকি নিয়ে শট খেলতে শুরু করেন সাকিব। দ্বিতীয় ওভারে এনামুল হক ফিরে যাওয়ার সময় বাংলাদেশের স্কোর ছিল ১ রান। পাওয়ার প্লের সুবিধা কাজে লাগাতে পারেনি বাংলাদেশ। ১০ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর ছিল এক উইকেটে ৩১। সেখান থেকে ২৬তম ওভারে দলের সংগ্রহ তিন অঙ্কে নিয়ে যান তামিম-সাকিব। ১৪৭ বলে গড়েন শতরানের জুটি।
নড়বড়ে শুরুর পর নিজেদের সহজাত ক্রিকেট খেলতে শুরু করেন তামিম-সাকিব। ভাগ্যকে পাশে পাওয়া দুই বাঁহাতি ব্যাটসম্যানই পেয়েছেন জীবন। একাদশ ওভারে আলজারি জোসেফের বলে কাভারে তামিমের কঠিন ক্যাচ মুঠোয় নিতে পারেননি ফিল্ডার। সে সময় বাঁহাতি ওপেনার খেলছিলেন ১৭ রানে। চতুর্দশ ওভারে একটুর জন্য বেঁচে যান ড্যাশিং এই ওপেনার। অ্যাশলি নার্সের বল তার ব্যাটের কানা ছুঁয়ে উইকেটরক্ষকের ঊরুতে লেগে দিক পাল্টানোয় একটুর জন্য ক্যাচ নাগালে পাননি প্রথম স্লিপে থাকা ক্রিস গেইল। পরের ওভারেই জীবন পান সাকিব। জোসেফের বলে ক্যাচ তুলে দিয়েছিলেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। কিন্তু হাতে জমাতে পারেননি গেইল। সে সময় ১৫ রানে ব্যাট করছিলেন সাকিব।
কঠিন সময় পার করে দেওয়ার পর দু’জনই খেলেছেন সহজাত ক্রিকেট। কাছাকাছি সময়ে পঞ্চাশ ছুঁয়েছেন দুই জনেই। জেসন মোহাম্মেদের বলে ১ রান নিয়ে ৮৭ বলে ক্যারিয়ারের ৪২তম ফিফটিতে পৌঁছান তামিম। এই সময়ে তার ব্যাট থেকে আসে চারটি চার ও একটি ছক্কা। আর ৬৮তম বলে দেবেন্দ্র বিশুকে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে নিজের ৩৮তম ফিফটিতে পৌঁছান বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব।
এরপর কিছুটা খেলস ছেড়ে বেরুতে চেষ্টা করেন সাকিব। বড় শট খেলতে গিয়েই সেঞ্চুরি পাওয়া হয়নি সাকিবের। বিশুকে ঠিক মতো সুইপ করতে না পেরে শিমরন হেটমেয়ারের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ১২১ বলে ৬টি চারে ৯৭ রান করে। আক্ষেপে পুড়তে হয়নি তামিমকে। তবে ফিফটির মত সেঞ্চুরিটিও ধীরেই এসেছে তামিমের। ক্যারিয়ারের দশম তিন অঙ্কের দেখা পেতে বাঁহাতি এই ওপেনারের লেগেছে ১৪৬ বল। ওয়ানডেতে এটাই বাংলাদেশের মন্থরতম সেঞ্চুরি। তিন অঙ্কে যেতে তামিম হাঁকান ৭টি চার ও একটি ছক্কা।
বাংলাদেশকে দিয়েছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সর্বোচ্চ রানের জুটি। এর আগে ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে আগের সেরা জুটিটি ছিল ১৭৪ রানের। ২০১২ সালে খুলনায় তৃতীয় উইকেটে সেই জুটি গড়েছিলেন এনামুল হক ও মুশফিকুর রহিম। ওয়ানডেতে এরচেয়ে বড় কেবল একটি জুটি আছে বাংলাদেশের। সেখানেও মিশে আছে সাকিবের নাম। গত বছর চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে পঞ্চম উইকেটে মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে ২২৪ রানের জুটি গড়েছিলেন বাংরাদেশেও টেস্ট ও টি-২০ অধিনায়ক।
চলতি বছরের শুরু থেকে তিনে ব্যাট করছেন সাকিব। তাই দ্বিতীয় উইকেটে জুটি বাঁধছেন তামিমের সঙ্গে। মাত্র ৫ ইনিংসেই তাদের জুটিতে মিলেছে সাফল্যের ইঙ্গিত। দ্বিতীয় উইকেটেও বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় জুটির রেকর্ড এখন এই দু’জনের অধিকারে। ২০১০ সালে ডাম্বুলায় পাকিস্তানের বিপক্ষে ইমরুল কায়েস ও জুনায়েদ সিদ্দিকের ১৬০ রান ছাড়িয়ে গেছেন তারা। দ্বিতীয় উইকেটে এটি তামিম-সাকিবের দ্বিতীয় শতরানের জুটি। এছাড়া একটি ৯৯ ও একটি ৭৮ রানের জুটি আছে তাদের। আগে তৃতীয় কিংবা চতুর্থ উইকেটেই বেশি জুটি বাঁধতেন তামিম-সাকিব। সেখানে তাদের শতরানের জুটি ছিল একটিই। গত বছর ডাম্বুলায় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চতুর্থ উইকেটে গড়েছিলেন ১৪৪ রানের জুটি।
মাঝে আম্পায়ারের বিতর্কিত সিদ্ধান্তে সাব্বির ফিরে গেলে শেষ দিকে এসে পাঁচে নেমে ঝড় তোলেন মুশফিকুর রহিম। তার ব্যাটে আড়াইশ পার হয়ে বাংলাদেশের সংগ্রহ। এতক্ষণ মন্থর ব্যাটিং করা তামিমও খেলেন হাত খুলে। মাত্র ১৯ বলে পঞ্চাশ রানে যায় জুটির রান। তাদের ব্যাটেই ৪ উইকেটে ২৭৯ রান করে বাংলাদেশ। ১৬০ বলে ১০ চার ও তিন ছক্কায় ১৩০ রানে অপরাজিত থাকেন তামিম। মাত্র ১১ বলে ৩০ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন মুশফিক। চার হাঁকিয়ে বাংলাদেশের ইনিংস শেষ করেন মাহমুদউল্লাহ।



 

Show all comments
  • Nadim ২৩ জুলাই, ২০১৮, ১০:৪১ এএম says : 0
    সাবাস বাংলাদেশ সাবাস
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর