Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫, ৮ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

টানা ভারি বর্ষণ বাঁধ ভেঙে প্লাবিত পাঁচ গ্রাম

বেতাগী (বরগুনা) উপজেলা সংবাদদাতা ঃ | প্রকাশের সময় : ২৯ জুলাই, ২০১৮, ১২:০১ এএম

একদিকে বিষখালী নদীর প্রবল জোয়ার এবং অন্যদিকে ভারি বর্ষণ, বরগুনার বেতাগী সদর ইউনিয়নের ল²ীপুরা গ্রামের পোলের হাট বাজার সংলগ্ন পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্মানকৃত বেড়িবাধঁটি ভেঙ্গে নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। এতে পানিতে তলিয়ে যায় শত শত একর ফসলি জমি, পানিবন্দি হয়ে পড়েছে ইউনিয়নের ৫ শতাধিক পরিবার, ব্যাহত হচ্ছে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের পড়ালেখা। চাষাবাদ বন্ধ হয়ে বিপাকে পড়েছে ওই এলাকার কৃষকরা।
গত ৫ দিন ধরে অবিরাম বর্ষণ। এছাড়া পূর্নিমা তিথির চাঁেদর প্রবল আকর্ষণে জোয়ারে বিষখালী নদীর পানি স্বাভাবিকের চেয়ে ৪/৫ ফুট বৃদ্ধি পেয়েছে। ল²ীপুরা ইউনিয়নের বেড়িবাধঁটি ভেঙ্গে ল²ীপুরা, পোলের হাট, ডিসির হাটসহ ৫টি গ্রাম পানিতে তলিয়ে ৫ শতাধিক পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। ভেসে গেছে অর্ধ শতাধিক পুকুর ও ঘেরের মাছ। জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় কাঁচা মাটির রাস্তাঘাট তলিয়ে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে অভ্যন্তরিণ যোগাযোগ ।
কৃষি ব্যবস্থার অবনতির বিষয় উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ ইকবাল হোসেন জানান,‘বেতাগীর বিষখালী নদী সংলগ্ন বেড়িবাধঁটি নদীতে বিলীন হওয়ার কারণে কৃষকদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। পানি এভাবে ৫/৭ দিন অব্যহত থাকলে ফসলের ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে।’
বেতাগী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ জাহাঙ্গীর আলম বলেন,‘দুর্যোগপূর্ন আবহওয়ার কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পানি প্রবেশ করায় উপজেলার খোন্তাকাটা, গ্রের্দল²ীপুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি অর্ধেকে নেমে এসেছে।’
বরগুনা পানি উন্নয়ন বোর্ডের তথ্যানুযায়ী জানা গেছে, বিষখালী ও সুগন্ধা নদীতে স্বাভাবিকের চেয়ে ৪/৫ ফুট পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। এমন পরিস্থিতে বেতাগী উপজেলা পরিষদেও চেয়ারম্যান মোঃ শাহজাহান কবির, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রাজীব আহসান, বেতাগী সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলাম ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাসমূহ পরিদর্শন করেন ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ